অবসর-কল্যাণ ট্রাস্টে ১০ শতাংশ কর্তনে সুবিধাভোগী কে? - মতামত - Dainikshiksha


অবসর-কল্যাণ ট্রাস্টে ১০ শতাংশ কর্তনে সুবিধাভোগী কে?

মো. মোমিন আলী |

বিষয়টির ওপরে লেখার আগে আমি একটি বিষয়ের অবতারণা করতে চাই। আমাদের পাশ্ববর্তী দেশ ভারতে রেলগাড়ি-বাসের ভাড়া ১০ টাকা থেকে বেড়ে হয় সাড়ে ১০ টাকা। অন্যান্য জিনিসের দামও সর্বোচ্চ ২ থেকে ৪ টাকা বাড়ে। অথচ আমাদের দেশে যে কোনো জিনিসের দাম বন্যার পানির মতো হু হু করে বাড়ে সে কথা বলার অপেক্ষা রাখে না। ১০ টাকার জিনিস বেড়ে হয় ২৫-৩০ টাকা। অথচ এতে লাভবান-ক্ষতিগ্রস্ত হবে কারা; যথাযথ কর্তৃপক্ষ একবার ভেবেও দেখেন না। যার সর্বশেষ উদাহরণ শিক্ষকদের অবসর ও কল্যাণ ট্রাস্টে চাঁদা কর্তনের হার ৬ শতাংশ থেকে লাফিয়ে ১০ শতাংশ হয়ে গেল।

১০ শতাংশ কর্তনে বেসরকারি শিক্ষকগণ ২৫ বছর চাকরি করার পর অবসর ও কল্যাণ ট্রাস্টে মোট ৭৫ + ২৫ = ১০০ মাসের বেতন সমপরিমাণ টাকা পাবেন। এখন আমি একটি হিসাবের মাধ্যমে দেখাব যে, ১৬ হাজার টাকা বেতন স্কেলে একজন শিক্ষক ১০ শতাংশ টাকা যদি ব্যাংকে জমা করেন তাহলে তিনি ২৫ বছর পরে কত টাকা পেতেন।

মনে করি, ২৬ বছর বয়সে একজন শিক্ষক ১৬ হাজার টাকা স্কেলে চাকরি শুরু এবং শেষ করলেন। তাহলে ১৬ হাজার টাকা স্কেলে ১০ শতাংশ হারে কর্তনে প্রতি মাসে ১৬ শ টাকা অর্থাৎ {(১৬০০×১২) ×১০} = ১ লাখ ৯২ হাজার টাকা ব্যাংকে ১০ বছর মেয়াদে জমা করলে ১০ বছর শেষে তিনি কমপক্ষে ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা পাবেন।

এই টাকা ৬ বছর মেয়াদে ব্যাংকে দ্বিগুণ মুনাফা প্রকল্পে বিনিয়োগ করলে ২৫০০০০×২ = ৫০০০০০ এবং এই টাকা পরবর্তী ৬ বছর মেয়াদে ব্যাংকে দ্বিগুণ মুনাফা প্রকল্পে বিনিয়োগ করলে ৫০০০০০×২ = ১০০০০০০ এবং এই টাকা পরবর্তী ৬ বছর মেয়াদে ব্যাংকে দ্বিগুণ মুনাফা প্রকল্পে বিনিয়োগ করলে ১০০০০০০×২ = ২০০০০০০ এবং এই টাকা পরবর্তী ৬ বছর মেয়াদে ব্যাংকে দ্বিগুণ মুনাফা প্রকল্পে বিনিয়োগ করলে ২০০০০০০×২ = ৪০০০০০০ টাকা হবে এবং তখন তার বয়স হবে।

২৬+১০+৬+৬+৬+৬=৬০ বছর। অথচ অবসর ও কল্যাণ ট্রাস্ট থেকে তিনি পাবেন ১৬ লাখ টাকা। তাহলে প্রশ্ন ১০ শতাংশ কর্তনে সুবিধাভোগী কে? এখানে প্রশ্ন আসতে পারে ১৬ টাকা স্কেল ২৫ বছর পরে অনেক বেশি হবে? হ্যাঁ, কিন্তু স্কেল বেশি হলে ১০ শতাংশ কর্তনে টাকার পরিমাণও অনেক বৃদ্ধি হবে। অন্যান্য স্কেলে তথৈবচ। তবে যারা অবসরে গিয়ে অবসর ভাতা না পেয়ে শেষ বয়সে অবহেলার শিকার হচ্ছেন তাদের প্রতি এবং সকল বেশিকদের প্রতি লক্ষ্য রেখে কর্তনের হার ৬ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ৭ শতাংশ করা যৌক্তিক কিনা বিষয়টি বিবেচনাযোগ্য।

লেখক: সহকারী আইসিটি শিক্ষক, কালিগঞ্জ, সাতক্ষীরা।

[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন]




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় ২৮ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১ হাজার ৭৬৪ - dainik shiksha করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় ২৮ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১ হাজার ৭৬৪ এসএসসির ফল পেতে প্রাক-নিবন্ধনের সময় বাড়ল - dainik shiksha এসএসসির ফল পেতে প্রাক-নিবন্ধনের সময় বাড়ল নন-এমপিও শিক্ষকদের তালিকা তৈরিতে ৯ নির্দেশ - dainik shiksha নন-এমপিও শিক্ষকদের তালিকা তৈরিতে ৯ নির্দেশ কলেজে ভর্তি : দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে - dainik shiksha কলেজে ভর্তি : দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছুটি বাড়ল ১৫ জুন পর্যন্ত - dainik shiksha বিশ্ববিদ্যালয়ের ছুটি বাড়ল ১৫ জুন পর্যন্ত এসএসসি পরীক্ষার ফল জানা যাবে রোববার ১২টা থেকে - dainik shiksha এসএসসি পরীক্ষার ফল জানা যাবে রোববার ১২টা থেকে ঘরে বসেই পরীক্ষা নেয়ার চিন্তা - dainik shiksha ঘরে বসেই পরীক্ষা নেয়ার চিন্তা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি ১৫ জুন পর্যন্ত, ৩১ মে থেকে অফিস-আদালত খুলছে - dainik shiksha শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি ১৫ জুন পর্যন্ত, ৩১ মে থেকে অফিস-আদালত খুলছে দাখিলের ফল পেতে প্রি-রেজিস্ট্রেশন যেভাবে - dainik shiksha দাখিলের ফল পেতে প্রি-রেজিস্ট্রেশন যেভাবে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website