এবার রাজপথেই ননএমপিও শিক্ষকদের ইফতার (ভিডিও) - বিবিধ - Dainikshiksha


এবার রাজপথেই ননএমপিও শিক্ষকদের ইফতার (ভিডিও)

শফিকুল ইসলাম |

এবার রাজপথেই ইফতার করলেন নন এমপিও শিক্ষকরা। জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বসতে দেয়নি পুলিশ। তাই আজ ১৩ জুন প্রেসক্লাবের ঠিক বিপরীত পাশের রাস্তার ওপর ইফতার করলেন ননএমপিও শিক্ষক-কর্মচারিরা। এমপিওদের দাবিতে গত ১০ জুন থেকে পুলিশের বাধা/লাঠিচার্জ উপেক্ষা করে শিক্ষকরা অবস্থান ধর্মঘট চালিয়ে যাচ্ছেন। বুধবারও (১৩ জুন) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করতে গিয়ে কয়েক দফা পুলিশের বাধার মুখে পড়েন আন্দোলনরত শিক্ষকরা। পাঁচজনকে আটক করে পরে ছেড়ে দেয়।  প্রচণ্ড গরমে দিন শেষে সন্ধ্যায় ফুটপাতে ক্লান্ত শিক্ষকরা ইফতার করেন।

এর আগে সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এমপিওর দাবিতে বিক্ষোভরত তিনজন নারী শিক্ষকহ পাঁচজনকে আটক করে শাহবাগ থানার পুলিশ। এ সময়ে পুলিশের পিটুনিতে তিনজন শিক্ষক আহত হন। তবে, আটকের কিছু সময় পর দুইজন শিক্ষককে ছেড়ে দিলেও তিন নারী শিক্ষককে ছেড়েছে বেলা দুইটার দিকে। এছাড়া প্রেসক্লাবের সামনে থেকে শিক্ষকদের সরিয়ে দেয় পুলিশ। বিকেলে ফের তারা প্রেসক্লাবের সামনে বসার চেষ্টা করলে পুলিশ বাধা দেয়। পরে রাস্তার বিপরীত পাশের সড়কে বসেন। আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) ফের প্রেসক্লাবের সামনে বসার চেষ্টা করবেন তারা।

আরও পড়ুন: তিন ননএমপিও নারী শিক্ষক আটক, পুলিশের লাঠি চার্জে আহত ৩

নজরুল ইসলাম নামের একজন শিক্ষক বলেন, অতীতে অনেক আন্দোলনের খবর শুনেছি, দেখেছি। কিন্তু দূর্ভাগ্য আমাদের জানুয়ারিতে শিক্ষাসচিবের আশ্বাসে আমরা অনশন ভেঙ্গে শ্রেণিকক্ষে ফিরে গেলাম। কিন্তু জুন মাস যায় যায়। বাজেটে কোনো ঘোষণা নেই। বাধ্য হয়েই আমরা রাস্তার ওপর ইফতার করলাম। এটা আমাদের প্রতিবাদ। দাবি না মানলে ঈদের দিনও আমরা রাজপথেই থাকবে। 

 

নন এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের  যুগ্ম সম্পাদক মো. আনোয়ার হোসেন দৈনিকশিক্ষা ডটকমকে জানান, আমাদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি থেকে পুলিশ ৫ জন শিক্ষককে আটক করে। এরমধ্যে দুই জন শিক্ষককে কিছু সময় পর ছেড়ে দেয়া হলেও তিন নারী শিক্ষককে ছাড়েন দুইটার দিকে। এসময় তিনজন শিক্ষক পুলিশের পিটুনিতে আহত হন। তাদেরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। কিন্তু আটক তিন নারী শিক্ষক এবং হাসপাতালে ভর্তি তিন শিক্ষকের নাম জানাতে পারেননি শিক্ষক নেতা আনোয়ার হোসেন।

ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ ড. বিনয় ভূষণ রায় বলেন, শিক্ষামন্ত্রী গত ১০ বছর ধরে বলে আসছেন বাজেটে বরাদ্দ থাকলে এমপিওভুক্ত করা হবে। অথচ উনি নতুন করে আবার মিথ্যাচার করছেন যে বাজেটে বরাদ্দ জরুরি বিষয় নয়। এমপিওভুক্তির সুনির্দিষ্ট বক্তব্য বা গেজেট প্রকাশের দাবি জানিয়ে বিনয় ভূষণ রায় বলেন প্রয়োজনে ৩০ জুন পর্যন্ত রাজপথেই থাকবো। 

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ গত ১০ জুন  সাংবাদিকদের বলেন, বাজেটে অনেক বিষয়ে উল্লেখ করে দেওয়া নেই। এটা জরুরি বিষয়ও নয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জন্য যে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে, সেটা ফয়সালা করে এমপিওভুক্ত করা হবে। তবে কতগুলো প্রতিষ্ঠানকে করা হবে সে বিষয়ে কিছু বলেননি শিক্ষামন্ত্রী।

এমপিওভুক্তির দাবিতে নন এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা গত বছরের ২৬ ডিসেম্বর থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে লাগাতার কর্মসূচি শুরু করেন। নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের ডাকে টানা ওই অবস্থান ও অনশনের একপর্যায়ে গত ৫ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে তাঁর তৎকালীন একান্ত সচিব সাজ্জাদুল হাসান ও শিক্ষা সচিব মো: সোহরাব হোসাইন সেখানে গিয়ে আশ্বাস দেন। এরপর শিক্ষক-কর্মচারীরা আন্দোলন কর্মসূচি স্থগিতের ঘোষণা দেন। এরপর সরকারের বিভিন্ন পর্যায় থেকে বলা হয়েছে আসন্ন অর্থ বছরে নতুন বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হবে।কিন্তু অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত গত ৭ জুন যে বাজেট প্রস্তাব করেন, সেখানে তিনি নতুন এমপিওভুক্তির বিষয়ে সুষ্পষ্ট কিছু বলেননি।

আসছে অর্থ বছরের বাজেটে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দুই বিভাগের জন্য ৫৩ হাজার ৫৪ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। এটি প্রস্তাবিত জাতীয় বাজেটে খাতওয়ারি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বরাদ্দ। তবে বরাদ্দের ক্ষেত্রে প্রাথমিক বিদ্যালয়, কারিগরি বিদ্যালয় ও কলেজ নির্মাণসহ বিভিন্ন অবকাঠামোর ওপর গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। 



পাঠকের মন্তব্য দেখুন
স্কুল-কলেজে চাকরিতে প্রবেশের সর্বোচ্চ বয়স ৩৫ বছর - dainik shiksha স্কুল-কলেজে চাকরিতে প্রবেশের সর্বোচ্চ বয়স ৩৫ বছর এমপিও নীতিমালা ২০১৮ জারি - dainik shiksha এমপিও নীতিমালা ২০১৮ জারি চতুর্দশ শিক্ষক নিবন্ধনের মৌখিক পরীক্ষা ২৪ জুন - dainik shiksha চতুর্দশ শিক্ষক নিবন্ধনের মৌখিক পরীক্ষা ২৪ জুন নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের তথ্য চেয়ে গণবিজ্ঞপ্তি - dainik shiksha নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের তথ্য চেয়ে গণবিজ্ঞপ্তি দাখিল-২০২০ পরীক্ষার মানবণ্টন প্রকাশ - dainik shiksha দাখিল-২০২০ পরীক্ষার মানবণ্টন প্রকাশ ইবতেদায়ি সমাপনীর মানবণ্টন প্রকাশ - dainik shiksha ইবতেদায়ি সমাপনীর মানবণ্টন প্রকাশ জেএসসির চূড়ান্ত সিলেবাস ও মানবণ্টন প্রকাশ - dainik shiksha জেএসসির চূড়ান্ত সিলেবাস ও মানবণ্টন প্রকাশ জেএসসির বাংলা নমুনা প্রশ্ন প্রকাশ - dainik shiksha জেএসসির বাংলা নমুনা প্রশ্ন প্রকাশ একাদশে ভর্তির আবেদন ও ফল প্রকাশের সময়সূচি - dainik shiksha একাদশে ভর্তির আবেদন ও ফল প্রকাশের সময়সূচি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website