আমাদের সঙ্গে থাকতে দৈনিকশিক্ষাডটকম ফেসবুক পেজে লাইক দিন।


এমপিওভুক্ত কলেজে পদোন্নতি

মো. আলী এরশাদ হোসেন আজাদ | সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৭ | মতামত

এমপিওভুক্ত কলেজে অধ্যাপনারতকে ‘অধ্যাপক’ বলা হলেও পদোন্নতির ধারায় তাঁদের ‘সহযোগী অধ্যাপক’ বা ‘অধ্যাপক’ হওয়ার উপায় নেই! প্রভাষক থেকে ‘সহকারী অধ্যাপক’ পদোন্নতির ক্ষেত্রেই অনুপাত নামক কালো আইনে তাঁদের অধিকাংশের পথচলা আটকে যাচ্ছে! ‘সহ’ ‘উপ’ ‘যুগ্ম’ ‘সাব’ ‘জুনিয়র’ ইত্যাদি পদবির চূড়ান্ত ধাপে পূর্ণ-পদবিধারী থাকেন। এমপিওভুক্ত কলেজে সহযোগী অধ্যাপক বা অধ্যাপকের পদ না থাকায় জিজ্ঞাসা— ‘সহকারী অধ্যাপকগণ’ কোন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার সহকারী?

এমপিওভুক্ত কলেজে অধ্যক্ষ, উপাধ্যক্ষ হতে চাইলে প্রার্থীকে নতুন করে চাকরি খুঁজতে হয়। চাকরি পেলে আগের পদ ছাড়তে হয়। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর বিভিন্ন বিভাগ, বিষয়ের চেয়ারম্যান, হল প্রভোস্ট, ডিন যে প্রক্রিয়ায় মনোনীত হন ঐ প্রক্রিয়া অনুসরণ করে অধ্যক্ষ উপাধ্যক্ষের পদগুলো পর্যায়ক্রমিক পদায়নের মাধ্যমে পূরণ করা কি অসম্ভব? অথবা পদোন্নতির মাধ্যমে অধ্যক্ষ, উপাধ্যক্ষের পদ পূরণের লক্ষ্যে এমপিওভুক্তদের জ্যেষ্ঠতাক্রমের ‘ফিটলিস্ট’ তৈরি করে ঐ পদগুলো স্বয়ংক্রিয়ভাবে পূরণের ব্যবস্থা করলে অনেক অনিয়ম-দুর্নীতির অবসান সম্ভব। অন্যদিকে ‘প্রভাষক’ পদেই যাঁরা জীবন-যৌবন হারিয়ে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তাঁদেরকে জ্যেষ্ঠতা ক্রমানুসারে ‘সহকারী অধ্যাপক’ ‘সহযোগী অধ্যাপক’ ‘অধ্যাপক’ হিসেবে ‘সম্মানসূচক’ পদোন্নতি দিয়ে অবিলম্বে অনুপাত প্রথা বাতিল করা একটি জরুরি মানবিক প্রত্যাশা।

মো. আলী এরশাদ হোসেন আজাদ

সহকারী অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান, ইসলামিক স্টাডিজ,কাপাসিয়া ডিগ্রি কলেজ, কাপাসিয়া, গাজীপুর ১৭৩০

মন্তব্যঃ ১২টি
  1. মোঃ শহিদুল ইসলাম মন্ডল says:

    কালো আইন(৫ঃ২) বাতিল না হলে প্রভাষক থেকেই অবসরে যেতে হচ্ছে। এটা আমার ব্যর্থতা নয়; কালো আইনের প্রভাব। প্রয়োজনে আমাদের পরীক্ষার মাধ্যমে পদোন্নতি দেয়া হোক। আমার ছাত্র এখন সহকারী অধ্যাপক আর আমি প্রভাষক ; এ অপমান লুকাবো কোথায়?

  2. মো. নাসির উদ্দিন আকন, প্রভাষক, পরিসংখ্যান, আজিজ আহম্মেদ কলেজ, দুমকি , পটুয়াখালী says:

    একই সময় দুইজন দুই কলেজে যোগদান করে একজন সহকারী অধ্যাপক ও একজন প্রভাষক থাকবেন এ কেমন নিয়ন , এ রকম ‍নিয়ম মানা যায় না, দূঃখজনক । এ রকম আইন সরকারের বিবেজনা করে দেখা উচিৎ বলে আমি মনে করি ।

  3. Md Mashiur Rahman says:

    A good post. Expecting more posts from the writer.

  4. কামাল উদ্দিন সজীব /প্রভাষক /বিপুলাসার,কুমিল্লা। says:

    প্রভাষক থেকে ধাপে ধাপে উপরে ওঠার বিধি করা জরুরি। এ ক্ষেত্রে আনুপাতিক পদ্ধতি আইন বিলুপ্ত করা দরকার।

  5. মুহাম্মাদ মজিবুর রহমান says:

    Soho oddapok podobi batil kore bsorkari koleje Ba-Oddapok kore din.

  6. রবিউল says:

    সারা জীবন আদু ভাই এর মত প্রভাষক থাকলে, শিক্ষকদের মানসিক অবস্থা
    ও আদু ভাইয়ের মত হবে। তাই ৫:২ এই কালো আইন রহিত করা জরুরি।

  7. Firoj ahmed,lecturer chemistry, Tista M A Fazil Madrashah says:

    সরকারি কলেজ এর প্রভাষকগনের মত বেসরকারি প্রভাষকগনের পদউন্নতি পরিখা চালু করা উচিত।

  8. সাইফুল ইসলাম says:

    তা করা উচিত

  9. Ikbal,lecturer says:

    এ কালো আইন ( অনুপাত প্রথম) বাদ দিয়ে পরীক্ষার মাধ্যম এ সহকারী অধ্যাপক হওয়ার ব্যবস্থা করলে শিক্ষার মান আরও বৃদ্ধি পেত।

  10. অভিজিত সরকার, প্রভাষক says:

    মাথা গুনে সহকারী অধ্যাপক মনোনয়ন বন্ধ করা হোক। এর ফলে কোন কোন ক্ষেত্রে সহকারী অধ্যাপক ইংরেজী উচ্চারন বা বানান জানে না এমন ব্যাক্তিও সহ:আধ্যা: পদে উন্নীত হয়।পাশা পাশি যে এই পদের যোগ্য তিনি তার ন্যায্য প্রাপ্তি থেকে বঞ্চীত হয়।

  11. মোঃ শাহীন আলম says:

    প্রয়োজনে বিশেষ পরীক্ষার মাধ্যমে মূল্যায়ন করে পদোন্নতি দেয়া দরকার। বেসরকারি কলেজে অনুপাত প্রথার কারণে চাকুরিজীবন শেষ হলেও প্রভাষক থেকে সহকারী অধ্যাপক উন্নিত হতে পারা যাচ্ছেনা।

আপনার মন্তব্য দিন