কেন্দ্র ফি না দেয়ায় ব্যবহারিক পরীক্ষা স্থগিত, কলেজে ভাংচুর - কলেজ - Dainikshiksha


কেন্দ্র ফি না দেয়ায় ব্যবহারিক পরীক্ষা স্থগিত, কলেজে ভাংচুর

জামালপুর প্রতিনিধি |

কেন্দ্র ফি জমা না দেয়ায় জামালপুর সদরের তুলসীপুর ডিগ্রি কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের কৃষি শিক্ষা বিষয়ের ব্যবহারিক পরীক্ষা স্থগিত করে দিয়েছে দিগপাইত শামছুল হক ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্র কর্তৃপক্ষ। পরীক্ষাবঞ্চিতরা এর প্রতিবাদে তুলসীপুর কলেজের অধ্যক্ষের কক্ষসহ বেশ কয়েকটি কক্ষের দরজা-জানালা ও বেঞ্চ ভাংচুর করেছে। শনিবার (১৮ মে) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

পরীক্ষার্থীদের অভিযোগ ও কেন্দ্র সূত্রে জানা গেছে, জামালপুর সদরের দিগপাইত শামছুল হক ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্রে তুলসীপুর ডিগ্রি কলেজের ৪৩৬ পরীক্ষার্থী এবারের এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নেন। বৃহস্পতিবার থেকে একই কেন্দ্রে শুরু হয়েছে বিজ্ঞান ও কৃষি শিক্ষা বিষয়ের ব্যবহারিক পরীক্ষা। এই কেন্দ্রের অন্যান্য কলেজ কর্তৃপক্ষ সময়মতো কেন্দ্র ফি পরিশোধ করলেও তুলসীপুর ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ তার কলেজের পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে আদায় করা এক লাখ ৮৫ হাজার ৭২৪ টাকার মধ্যে এক লাখ টাকা পরিশোধ করেছেন। বাকি টাকা পরিশোধ না করায় কেন্দ্র সচিব শনিবারের কৃষি শিক্ষা বিষয়ের ব্যবহারিক পরীক্ষা সাময়িক স্থগিত ঘোষণা করেন।

ফলে ব্যবহারিক পরীক্ষাবঞ্চিতরা কেন্দ্র ত্যাগ করে বেলা সাড়ে ১০টার দিকে তাদের তুলসীপুর ডিগ্রি কলেজে গিয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও স্থানীয় সড়ক অবরোধ করে অধ্যক্ষের স্বেচ্ছাচারিতার বিচার দাবি করেন। একই সঙ্গে তারা ব্যবহারিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ নিশ্চিত করারও দাবি জানান। একপর্যায়ে বিক্ষুব্ধ পরীক্ষার্থীরা অধ্যক্ষের কক্ষসহ বেশ কয়েকটি কক্ষের দরজা-জানালা ও বেঞ্চ ভাংচুর করে। এ সময় অধ্যক্ষ মো. জাহাঙ্গীর আলম লিচু কলেজে ছিলেন না। পরে তিনি কলেজে উপস্থিত হয়ে কেন্দ্র ফি পরিশোধ করে ব্যবহারিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ করে দেয়ার আশ্বাসের প্রেক্ষিতে বিক্ষুব্ধ পরীক্ষার্থীরা তাদের আন্দোলন স্থগিত ঘোষণা করলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। 




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
এমপিওভুক্তির তালিকায় প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন - dainik shiksha এমপিওভুক্তির তালিকায় প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ - dainik shiksha মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ মারধরে অসুস্থ হলে আবরারকে অন্য রুমে নিয়ে গিয়ে পেটাই : রবিন - dainik shiksha মারধরে অসুস্থ হলে আবরারকে অন্য রুমে নিয়ে গিয়ে পেটাই : রবিন কী আছে শিক্ষক গোকুল দাশের লাইব্রেরিতে, কেন বিক্রির বিজ্ঞাপন? - dainik shiksha কী আছে শিক্ষক গোকুল দাশের লাইব্রেরিতে, কেন বিক্রির বিজ্ঞাপন? ৪২ শতাংশই অন্য চাকরি না পেয়ে শিক্ষকতায় এসেছেন - dainik shiksha ৪২ শতাংশই অন্য চাকরি না পেয়ে শিক্ষকতায় এসেছেন ডিগ্রি ১ম বর্ষ পরীক্ষার ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত - dainik shiksha ডিগ্রি ১ম বর্ষ পরীক্ষার ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website