চৌগাছায় দুটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শতভাগ পাস - এসএসসি/দাখিল - দৈনিকশিক্ষা


চৌগাছায় দুটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শতভাগ পাস

চৌগাছা প্রতিনিধি |

যশোরের চৌগাছায় ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় অংশ নেয় ৬৭টি স্কুল ও মাদরাসার পরীক্ষার্থীরা। এর মধ্যে দুটি প্রতিষ্ঠান থেকে শতভাগ পরীক্ষার্থী পাস করেছে এবং একটি প্রতিষ্ঠানের সব পরীক্ষার্থীই অকৃতকার্য হয়েছে। 

উপজেলা শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, এ বছর উপজেলার ৪৪টি স্কুল থেকে মোট ২ হাজার ৯৫১ জন এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাস করেছে ২ হাজার ৫১০ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৪৯ জন। মাকাপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ৪৪ জন অংশ নিয়ে সবাই পাস করেছে। এসএসসিতে উপজেলায় মোট পাসের হার ৮৫ দশমিক ০৫ শতাংশ।

এদিকে, উপজেলায় ২১টি মাদ্রাসা থেকে ৫৮৯ জন পরীক্ষা দিয়ে পাস করেছে ৪৪৬ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৯ জন। এর মধ্যে সিংহঝুলী দাখিল মাদরাসা থেকে ২৪ জন অংশ নিয় সবাই কৃতকার্য হয়েছে। মাকাপুর দাখিল মাদরাসা থেকে ২২ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়ে সবাই অকৃতকার্য হয়েছে। উপজেলায় মোট পাসের হার ৭৫ দশমিক ৭২ শতাংশ।

শতভাগ পাস করা প্রতিষ্ঠান দুটির প্রধানরা দৈনিক শিক্ষা ডটকমকে জানান, শিক্ষক-শিক্ষার্থী, অভিভাবকের সাথে সমন্বয় করে পাঠদান করায় তারা শতভাগ সফলতা পেয়েছেন।

শতভাগ ফেল করা প্রতিষ্ঠানের সুপার তরিকুল ইসলাম দৈনিক শিক্ষা ডটকমকে বলেন, ‘মাদরাসাটি ২০০১ খ্রিষ্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত হয়।আমি ১৫ বছর দায়িত্ব পালন করছি। বিগত দশ বছরের গড় পাসের হার ৯৫ শতাংশেরও বেশি। এ বছরে ২২ জন পরীক্ষার্থীর একজনও পাস করবে না বিষয়টি মেনে নিতে পারছি না। আমার বিশ্বাস প্রযুক্তিগত কোনো ত্রুটির কারণে এমন বিপর্যয় হয়েছে। ফলাফল পুনঃবিবেচনার জন্য বাংলাদেশ মাদরাসা বোর্ডে আবেদন করব।’

তিনি আরও জানান, ‘মাদরাসাটিতে প্রায় ২০০ ছাত্র-ছাত্রী ও ১৭ জন শিক্ষক-কর্মচারী রয়েছে। বিগত বছরগুলোতে কাম্য সংখ্যক পরীক্ষার্থী না থাকায় এমপিওর জন্য আবেদন করতে পারিনি। এবছর কাম্য সংখ্যক পরীক্ষার্থী ছিল। কিন্তু অনাকাঙ্ক্ষিত ফলাফল মেনে নিতে পারছি না।’

প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি স্থানীয় ইউপি সদস্য ইমান উদ্দীন দৈনিক শিক্ষা ডটকমকে বলেন, ‘মাদরাসায় সাধারণত দুর্বল ছেলে মেয়েদের পড়তে দেয়া হয়। তার পরেও এখানকার শিক্ষকরা চেষ্টা করেন। যে কারণে বিগত বছরগুলোতে ভালো ফলফলা অর্জন করেছে প্রতিষ্ঠানটি। এ বছর কেন এমন হয়েছে বলতে পারছি না।’

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আবুল কালাম রফিকুজ্জামান দৈনিক শিক্ষা ডটকমকে বলেন, ‘যেহেতু এই মাদরাসার পূর্বের একদশকের ফলাফল খুবই ভালো। প্রযুক্তিগত কোনো ত্রুটি হয়েছে কি না প্রতিষ্ঠান প্রধানকে বাংলাদেশ মাদরাসা বোর্ডে যোগাযোগ করতে বলা হয়ছে।’




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
করোনায় ৩০ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২ হাজার ৬৮৬ - dainik shiksha করোনায় ৩০ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২ হাজার ৬৮৬ আশ্রয়কেন্দ্র হিসাবে বন্যা দুর্গত এলাকায় স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার নির্দেশ - dainik shiksha আশ্রয়কেন্দ্র হিসাবে বন্যা দুর্গত এলাকায় স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার নির্দেশ তিন শিক্ষকের ডাবল এমপিও : দৈনিক শিক্ষায় প্রতিবেদন প্রকাশের পর অধ্যক্ষকে শোকজ - dainik shiksha তিন শিক্ষকের ডাবল এমপিও : দৈনিক শিক্ষায় প্রতিবেদন প্রকাশের পর অধ্যক্ষকে শোকজ দৈনিক শিক্ষায় প্রতিবেদন প্রকাশের পর : তথ্য গোপন করে নেয়া অনুদানের টাকা ফেরত - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষায় প্রতিবেদন প্রকাশের পর : তথ্য গোপন করে নেয়া অনুদানের টাকা ফেরত শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে ইন্টারনেট : সিদ্ধান্তে আসতে পারেনি মোবাইল অপারেটররা - dainik shiksha শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে ইন্টারনেট : সিদ্ধান্তে আসতে পারেনি মোবাইল অপারেটররা জটিলতার দ্রুত সমাধান চান এমপিওবঞ্চিত শিক্ষকরা - dainik shiksha জটিলতার দ্রুত সমাধান চান এমপিওবঞ্চিত শিক্ষকরা প্রভাষকের বিরুদ্ধে ভুয়া সনদে চাকরির অভিযোগ - dainik shiksha প্রভাষকের বিরুদ্ধে ভুয়া সনদে চাকরির অভিযোগ স্কুলছাত্রের মৃত্যুতে পরোক্ষ দায়ী সেই যুগ্মসচিব নৌঅধিদপ্তরের মহাপরিচালক - dainik shiksha স্কুলছাত্রের মৃত্যুতে পরোক্ষ দায়ী সেই যুগ্মসচিব নৌঅধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ হতে পারছেন না প্রভাষকরা: রুলের জবাব দেয়নি সরকার - dainik shiksha অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ হতে পারছেন না প্রভাষকরা: রুলের জবাব দেয়নি সরকার শিক্ষায় বঙ্গবন্ধুর অবদান নিয়ে লেখা আহ্বান - dainik shiksha শিক্ষায় বঙ্গবন্ধুর অবদান নিয়ে লেখা আহ্বান বিনামূল্যে আন্তর্জাতিক মানের ডিজিটাল কনটেন্ট দিচ্ছে টিউটর্সইঙ্ক - dainik shiksha বিনামূল্যে আন্তর্জাতিক মানের ডিজিটাল কনটেন্ট দিচ্ছে টিউটর্সইঙ্ক শিক্ষকদের ফ্রি অনলাইন প্রশিক্ষণ চলছে - dainik shiksha শিক্ষকদের ফ্রি অনলাইন প্রশিক্ষণ চলছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website