জনপ্রিয়তা হারাচ্ছে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের ভোকেশনাল কোর্স - মতামত - Dainikshiksha


জনপ্রিয়তা হারাচ্ছে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের ভোকেশনাল কোর্স

রিপন কুমার দাস |

ভোকেশনাল শিক্ষা বর্তমানে দেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা পদ্ধতি। আধাদক্ষ ও দক্ষ টেকনিশিয়ান তৈরির জন্য ভোকেশনাল শিক্ষা ব্যবস্থা অত্যন্ত জরুরি। বর্তমানে ভোকেশনাল শিক্ষাক্রমের এসএসসি ভোকেশনাল কোর্সটি অত্যন্ত জনপ্রিয়। কিন্তু ভোকেশনাল শাখার বেশির ভাগ শিক্ষার্থীই এসএসসি ভোকেশনাল কোর্স সম্পন্ন করার পর পরবর্তীতে আর ভোকেশনাল শিক্ষা গ্রহণ করতে পারে না। যদিও কিছু সংখ্যক শিক্ষার্থী নির্দিষ্ট সংখ্যক ট্রেডে জেলা সদরে অবস্থিত সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজে এইচএসসি ভোকেশনাল কোর্সে অধ্যয়ন করে থাকেন। বর্তমানে ২৫০০ এসএসসি ও দাখিল ভোকেশনাল প্রতিষ্ঠানের বিপরীতে ৬৪টি প্রতিষ্ঠানে এইচএসসি ভোকেশনাল কোর্স পরিচালিত হয়ে থাকে। অর্থাৎ এসএসসি ভোকেশনাল কোর্স করার পর মাত্র শতকরা ৩ ভাগ শিক্ষার্থী এইচএসসি ভোকেশনাল শিক্ষাক্রমে শিক্ষার সুযোগ পায়। কিন্তু তারপরও এইচএসসি ভোকেশনাল কোর্সটিকে জনপ্রিয় করা যাচ্ছে না। এর অন্যতম কারণ হচ্ছে, উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের ভোকেশনাল শিক্ষাক্রমের কোর্স কারিকুলাম। ভোকেশনাল শিক্ষা ব্যবস্থায় সাধারণত অপেক্ষাকৃত কম মেধাবীরাই ভর্তি হয়ে থাাকে, কিন্তু উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে তাদের জন্য সাধারণ শাখার বিজ্ঞান বিভাগের বিষয়সমূহের পাশাপাশি অতিরিক্ত হিসাবে ভোকেশনাল বিষয়সমূহ পড়তে হচ্ছে ফলে কাক্সিক্ষত সাফল্য অর্জন করা সম্ভব হচ্ছে না। 

অপর দিকে বর্তমানে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে সাধারণ শাখার জন্য ক গুচ্ছে ৩টি বিষয় ৫০০ নম্বর (প্রথম ২টি ২০০ করে ৩য় টি ১০০ নম্বর) ঃ বাংলা, ইংরেজি, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, খ গুচ্ছে ৪টি বিষয় ৮০০ নম্বর (প্রথম ৩টি মূল ও ১ টি ঐচ্ছিক) ঃ বিজ্ঞান বিভাগ (পদার্থ, রসায়ন, জীব বিজ্ঞান/উচ্চতর গণিত, জীব বিজ্ঞান/ উচ্চতর), বাণিজ্য বিভাগ (হিসাব বিজ্ঞান, ব্যবসায় সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা, ফিন্যান্স, ব্যাংকিং ও বীমা, উৎপাদন ব্যবস্থাপনা ও বিপনন/সাচিবিক বিদ্যা ও অফিস ব্যবস্থাপনা), মানবিক বিভাগ (পৌরনীতি ও সুশাসন, ইতিহাস/ ইসলামের ইতিহাস, অর্থনীতি, ভূগোল, যুক্তিবিদ্যা, সমাজ বিজ্ঞান/ সমাজ কর্ম), গার্হস্থ্য অর্থনীতি বিভাগ (সাধারণ বিজ্ঞান এবং খাদ্য ও পুষ্টি বিজ্ঞান, ব্যবহারিক শিল্পকলা এবং বস্ত্র ও পোশাক শিল্প, গৃহ ব্যবস্থাপানা ও শিশুবর্ধন এবং পারিবারিক সম্পর্ক, সাচিবিক বিদ্যা/ সমাজ বিজ্ঞান/ পৌরনীতি), ইসলাম শিক্ষা বিভাগ (ইসলাম শিক্ষা, ইসলামের ইতিহাস এবং সংস্কৃতি, আরবি, সমাজ বিজ্ঞান/ সমাজকর্ম/ মনোবিজ্ঞান/ যুক্তি বিদ্যা/ ভুগোল/ অর্থনীতি), সংগীত বিভাগ (লঘু সংগীত, উচ্চাংগ সংগীত, অর্থনীতি, পৌরনীতি ও সুশাসন, ইতিহাস) নির্ধারিত রয়েছে। এখানে দেখা যায়, একজন শিক্ষার্থী যে কোন বিভাগের জন্য ক গুচ্ছে ৩টি বিষয় ৫০০ নম্বর ও খ গুচ্ছে ৪টি বিষয় ৮০০ নম্বর অধ্যয়ন করলেই তাদের কোর্স সম্পন্ন সম্ভব হচ্ছে । 

এছাড়া মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের আলিম স্তরের জন্য ক গুচ্ছে ৩টি বিষয় ৫০০ নম্বর (প্রথম ২টি ২০০ করে ৩য় টি ১০০ নম্বর) : বাংলা, ইংরেজি, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, খ গুচ্ছে ২টি বিষয় ক্যাটাগরি ৪০০ নম্বর (প্রথমটি ২০০ নম্বর ও ২য়টিতে ২ ভাগ প্রথম বর্ষে ১০০ নম্বর ও ২য় বর্ষে ১০০ নম্বর) : আল ফিকাহ, কুরআন মজিদ (১ম বর্ষ)+হাদিস ও উসুলুল হাদিস (২য় বর্ষ), গ গুচ্ছে ৩টি বিষয় ৬০০ নম্বর : বিজ্ঞান বিভাগ (পদার্থ, রসায়ন, জীবন বিজ্ঞান/উচ্চতর গণিত), সাধারণ বিভাগ (আরবি, ইসলামের ইতিহাস/ বলাগাত/ মানতিক যে কোন ১টি, পৌরনীতি/ অর্থনীতি যে কোন ১টি), মুজাবিদ মাহির বিভাগ (তাজবিদ, আরবি,  কিরআতে তারতীল (১ম বর্ষ) + কিরআতে হাদর (২য় বর্ষ) নির্ধারণ করা আছে। 

বর্তমানে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের ভোকেশনাল কোর্সে সাধারণ শাখার বিজ্ঞান বিভাগের সকল বিষয় সহ ভোকেশনাল শাখার ট্রেড বিষয় ও আত্মকর্মসংস্থান বিষয় নিয়ে পড়তে হয়। ফলে একজন সাধারণ শিক্ষার্থীর ওপর অনেক সিলেবাসের চাপ পড়ে। ফলে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের ভোকেশনাল শিক্ষাক্রম ক্রমে ক্রমে তার জনপ্রিয়তা হারাচ্ছে এবং সাধারণ বিষয়ের ওপর বেশি জোর দেওয়া ও কারিগরি বিষয়ের ওপর জোর না দেয়ার ফলে একজন শিক্ষার্থী কর্মজীবনে তার পড়াশোনার প্রভাব কাজে লাগাতে সক্ষম হচ্ছে না। এছাড়া উচ্চ মাধ্যমিক ভোকেশনাল কোর্সটিতে ভর্তির জন্য এসএসসি বা সমমান সকলের জন্য উন্মুক্ত করা প্রয়োজন। তাই উচ্চ মাধ্যমিক ভোকেশনাল কোর্সের জন্য পদার্থ, রসায়ন, গণিত, কৃষি বিষয়ের পরিবর্তে ট্রেড বিষয়ের ওপর জোর দিয়ে সাধারণ শাখার ন্যায় ক গুচ্ছে ৩টি বিষয় ৫০০ নম্বর (প্রথম ২টি ২০০ করে ৩য় টি ১০০ নম্বর) : বাংলা, ইংরেজি, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, খ গুচ্ছে ৪টি বিষয় ৮০০ নম্বর (প্রথম ৩টি মুল ও ১টি ঐচ্ছিক) : ট্রেড-১, ট্রেড-২, ট্রেড-৩, ঐচ্ছিক বিষয় হিসাবে (পদার্থ/ রসায়ন/ জীব বিজ্ঞান যে কোন ১টি বিষয়) নির্ধারণ করা প্রয়োজন। বস্ত্র ও কেমিকেল সংশ্লিষ্ট বিষয়ের ট্রেডের জন্য ঐচ্ছিক বিষয় হিসাবে রসায়ন, পুর, তথ্য ও প্রকৌশল সংশ্লিষ্ট বিষয়ের ট্রেডের জন্য ঐচ্ছিক বিষয় হিসাবে পদার্থ এবং কৃষি সংশিষ্ট বিষয়ের ট্রেডের জন্য ঐচ্ছিক বিষয় হিসাবে জীব বিজ্ঞান নির্ধারণ করা যেতে পারে। উচ্চ মাধ্যমিক ভোকেশনাল কোর্সটি এমন ভাবে প্রণয়ন করা দরকার, যাতে একজন শিক্ষার্থী পাশ করার সাথে সাথেই কর্মক্ষেত্রে প্রবেশ করতে পারে অথবা উচ্চ শিক্ষার জন্য ৩ বছর মেয়াদি ব্যাচেলার অব আর্টস (বি এ), ব্যাচেলার অব ভোকেশনাল (বি ভোক) কোর্স সহ ৪ বছর মেয়াদি  বাংলা, ইংরেজি, রসায়ন/ পদার্থ/ উদ্ভিদ বিজ্ঞান/প্রাণিবিজ্ঞান, ব্যাচেলার অব ভোকেশনাল (বি ভোক) কোর্সে ভর্তি হতে পারে। তাই সাধারণ শাখার ন্যায় উচ্চ মাধ্যমিক ভোকেশনাল শাখায়ও একজন শিক্ষার্থী যে কোন ট্রেডের জন্য ক গুচ্ছে ৩টি বিষয় ৫০০ নম্বর ও খ গুচ্ছে ৪টি বিষয় ৮০০ নম্বর (৩টি হবে ট্রেড বিষয় ৬০০ নম্বর) অধ্যয়ন করলেই তাদের কোর্স সম্পন্ন করার ব্যবস্থা করা প্রয়োজন । 

উচ্চ মাধ্যমিক ভোকেশনাল শুধু সাধারণ শাখায় সীমাবদ্ধ না রেখে মাদ্রাসায়ও চালু করা একান্ত প্রয়োজন। প্রস্তাবিত আলিম পর্যায়ে ভোকেশনাল শাখার ক্ষেত্রে সাধারণ শাখার বিষয়সমূহের পাশাপাশি আরও ভবিষ্যৎ কর্মজীবনের কথা চিন্তা করে কারিগরি বিষয় ও ধর্মীয় বিষয় যোগ করা হবে, যার ফলে ভোকেশনাল শিক্ষার্থীদের সাধারণ শাখার শিক্ষার্থীদের চেয়ে সিলেবাসের চাপ বেশি পড়বে। আলিম ভোকেশনালের জন্য মাদ্রাসার আলিমের বিজ্ঞান বিভাগের কোর্স ষ্টাকচারকে ধরে গ গুচ্ছের ৩টি বিষয় ৬০০ নম্বর : বিজ্ঞান বিভাগ (পদার্থ, রসায়ন, জীবন বিজ্ঞান/উচ্চতর গণিত) এর পরিবর্তে ট্রেড এর ৩টি বিষয়কে অর্ন্তভুক্তকরণ অর্থাৎ ক গুচ্ছে ৩টি বিষয় ৫০০ নম্বর (প্রথম ২টি ২০০ করে ৩য় টি ১০০ নম্বর) : বাংলা, ইংরেজি, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, খ গুচ্ছে ২টি বিষয় ক্যাটাগরি ৪০০ নম্বর (প্রথম টি ২০০ নম্বর ও ২য় টিতে ২ ভাগ প্রথম বর্ষে ১০০ নম্বর ও ২য় বর্ষে ১০০ নম্বর) : আল ফিকাহ (২০০), কুরআন মজিদ (১ম বর্ষ)(১০০)+ হাদিস ও উসুলুল হাদিস (২য় বর্ষ)(১০০),  গ গুচ্ছে ৩টি বিষয় ৬০০ নম্বর : ট্রেড-১, ট্রেড-২, ট্রেড-৩ নির্ধারণ করা প্রয়োজন।

 

এছাড়া বিল্ডিং কনষ্ট্রাকশন বিভাগের ট্রেড-১ : মাশনারী, ট্রেড-২ : রড বাইন্ডিং, ট্রেড-৩ : টাইলস ওয়ার্কস, ড্রেসমেকিং বিভাগের ট্রেড-১ : ড্রেস ডিজাইন এন্ড কাটিং, ট্রেড-২ : ড্রেস এটাচ এন্ড সুইং, ট্রেড-৩ : ড্রেস ফিনিসিং অ্যান্ড কোয়ালিটি, বিল্ডিং ডেকোরেশন বিভাগের ট্রেড-১ : ফ্যাসাড ইন্সট্যালেশন, ট্রেড-২ : ফলস এন্ড ড্রাই ওয়াল পার্টিশন, ট্রেড-৩ : কনস্ট্র্রাকশন পেইন্টিং, কটন স্পিনিং বিভাগের ট্রেড-১ : স্পিনিং প্রিপেয়টরী, ট্রেড-২ : কটন স্পিনিং, ট্রেড-৩ : পোষ্ট স্পিনিং, মর্ডান উইভিং বিভাগের ট্রেড-১ঃ উইভিং প্রিপেয়টরী এন্ড ফিনিসিং, ট্রেড-২ : মর্ডান ওয়েভার, ট্রেড-৩ : ফেব্রিক স্ট্রাাকচারিয়াল ডিজাইন, বিউটিফিকেশন বিভাগের ট্রেড-১ : স্কিন কেয়ার সার্ভিস, ট্রেড-২ : হেয়ার কেয়ার সার্ভিস, ট্রেড-৩ : নেইল কেয়ার সার্ভিস, ফুড প্রসেসিং এন্ড প্রিজারভেশন  বিভাগের ট্রেড-১ : বেকিং (বিস্কুট ও ব্রেড), ট্রেড-২ : ডেইরি প্রোডাক্ট, ট্রেড-৩ : ফুড প্যাকেজিং, এগ্রোবেসড ফুড বিভাগের ট্রেড-১ : ফ্রুট এন্ড ভেজিটেবল প্রসেসিং, ট্রেড-২ঃ ফুড গ্রেইন মিলিং, ট্রেড-৩ : ¯œ্যাকস ফুডস প্রোডাকশন, লাইভ ষ্টক বিভাগের ট্রেড-১ : ডেইরী ফার্ম ম্যানেজমেন্ট, ট্রেড-২ : ক্যাটল ফার্ম ম্যানেজমেন্ট, ট্রেড-৩ : ডেইরি প্রোডাক্টক, বিষয় নির্ধারণ করা যেতে পারে।

কারিগরি ও মাদ্রাসায় শাখায় সাধারণ শাখার সমমান করতে গিয়ে এত বেশি সাধারণ বিষয়ে পাঠ্যক্রম অর্ন্তভুক্ত করা হয়েছে যার ফলে এই শাখা দুটিতে সাধারণ মানের শিক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষা গ্রহণ অসম্ভব হয়ে উঠেছে। বিশেষ করে ভোকেশনাল শাখাটি স্বল্পমেধাবী, দরিদ্র, ঝরে পড়া শিক্ষার্থীদের কাছে আতংকের বিষয় হয়ে দাড়িয়েছে, এ থেকে মুক্তির জন্য ও দক্ষ জনগোষ্ঠী তৈরির জন্য পাঠ্যক্রমের বোঝা কমানো অতীব জরুরি । 


লেখক: ট্রেড ইন্সট্রাক্টর, ডোনাভান মাধ্যমিক বিদ্যালয়, পটুয়াখালী। 

 

[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নন]




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
ডিগ্রি ভর্তির অনলাইন আবেদন শুরু আজ - dainik shiksha ডিগ্রি ভর্তির অনলাইন আবেদন শুরু আজ বৈশাখী ভাতা ও ইনক্রিমেন্ট কার্যকর জুলাই থেকেই - dainik shiksha বৈশাখী ভাতা ও ইনক্রিমেন্ট কার্যকর জুলাই থেকেই সরকারি হলো আরও ৪ মাধ্যমিক বিদ্যালয় - dainik shiksha সরকারি হলো আরও ৪ মাধ্যমিক বিদ্যালয় ২০ হাজার টাকায় শিক্ষক নিবন্ধন সনদ বিক্রি করতেন তারা - dainik shiksha ২০ হাজার টাকায় শিক্ষক নিবন্ধন সনদ বিক্রি করতেন তারা অকৃতকার্য ছাত্রীকে ফের পরীক্ষায় বসতে দেয়ার নির্দেশ - dainik shiksha অকৃতকার্য ছাত্রীকে ফের পরীক্ষায় বসতে দেয়ার নির্দেশ আইডিয়াল স্কুলে ভর্তি ফরম বিতরণ শুরু - dainik shiksha আইডিয়াল স্কুলে ভর্তি ফরম বিতরণ শুরু নির্বাচনের সঙ্গে পেছাল সরকারি স্কুলের ভর্তি - dainik shiksha নির্বাচনের সঙ্গে পেছাল সরকারি স্কুলের ভর্তি শিক্ষকদের অন্ধকারে রেখে দেড় লাখ কোটি টাকার প্রকল্প! - dainik shiksha শিক্ষকদের অন্ধকারে রেখে দেড় লাখ কোটি টাকার প্রকল্প! একাডেমিক স্বীকৃতি পেল ৪৭ প্রতিষ্ঠান - dainik shiksha একাডেমিক স্বীকৃতি পেল ৪৭ প্রতিষ্ঠান দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website