ঢাবিতে ছাত্রলীগ নেতা গুলিবিদ্ধ, তদন্তে অগ্রগতি নেই - বিশ্ববিদ্যালয় - Dainikshiksha


ঢাবিতে ছাত্রলীগ নেতা গুলিবিদ্ধ, তদন্তে অগ্রগতি নেই

ঢাবি প্রতিনিধি |

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার দা সূর্যসেন হলের সামনে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের উপ-প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক মেশকাত হোসেন গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনার তদন্তে কোনো অগ্রগতি নেই।

কেউ গুলি করেছিল, না কি নিজের ‘পকেটের পিস্তলের’ গুলিতে তিনি বিদ্ধ হয়েছিলেন- সেই প্রশ্নের জবাব খুঁজে পাননি তারা।

গত ২০ জুলাই রাতে সূর্যসেন হলে ডান পায়ে গুলিবিদ্ধ হন মেশকাত হোসেন। পরদিন এই ঘটনা তদন্তের জন্য হলের তিনজন আবাসিক শিক্ষকদের নিয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মকবুল হোসেন ভূইয়া। তদন্ত কমিটি গত ১ অগাস্ট তদন্তের প্রতিবেদন প্রাধ্যক্ষের কাছে জমা দেন। 

অধ্যাপক মকবুল হোসেন ভূইয়া বলেন, তদন্ত কমিটির সদস্যরা ভিকটিমসহ হলের কয়েকজন কর্মচারীর সাথে এই বিষয়ে কথা বলেছেন। কিন্তু তারা কেউ ঠিকভাবে বলতে পারেননি কে বা কোথা থেকে গুলি করেছে।

তবে নাম প্রকাশ না করার অনুরোধ জানিয়ে সূর্যসেন হলের আবাসিক শিক্ষার্থী কয়েকজন ছাত্রনেতা দাবি করেছেন, ছাত্রলীগ সভাপতি শোভনের অনুসারী মেশকাতের কাছে তারা বেশ কয়েকবার ‘একটি পুরাতন মডেলের পিস্তল দেখেছেন’।

“এই ছাত্রলীগ নেতা যখন হল গেটের কাছে গুলিবিদ্ধ হন তখন তার প্যান্টের পকেটেই সেই পিস্তলটি ছিল এবং অসাবধানতাবশত চাপ লাগায় পায়ে গুলিবিদ্ধ হন,” বলেন একজন। 

ঘটনার দিন বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যমেও গোয়েন্দা সূত্রের বরাত দিয়ে বলা হয়, পকেটে থাকা আগ্নেয়াস্ত্রের ট্রিগারে চাপ লেগেই গুলিবিদ্ধ হয়েছেন মেশকাত। 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অধ্যাপক মকবুল হোসেন বলেন, “গণমাধ্যমের সেই রিপোর্টগুলো আমরাও দেখেছি। তদন্ত কমিটি সেই রিপোর্টগুলো পড়েছে এবং সেই বিষয়গুলোও বিবেচনায় নিয়েছিল। কিন্তু তদন্তে সেই বিষয়ে সত্যতা মেলেনি।”

তদন্ত কমিটি ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্ট বা প্রত্যক্ষদর্শীদের সাক্ষাৎকার নেওয়ার উদ্দেশে যে পাবলিক নোটিশ দিয়েছিল তাতে ‘উল্লেখযোগ্য’ সাড়া পাওয়া যায়নি বলে জানান হল প্রাধ্যক্ষ।

ছাত্রলীগ নেতা মেশকাতের কাছে ‘অবৈধ অস্ত্র ছিল’ বলে সংগঠনের একজন কেন্দ্রীয় নেতাও  কাছে অভিযোগ করেন।

তবে গুলিবিদ্ধ হয়ে ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মেশকাত বলেছিলেন, “রাত সাড়ে ১০টার দিকে হল গেটের সামনে আমি একা বসে মোবাইল টিপতেছিলাম। হঠাৎ করে একটা বিকট শব্দ হয়। তারপর নিচে তাকাতেই দেখি, আমার পা দিয়ে রক্ত ঝরছে। এরপর আমি আর কিছু বলতে পারি না।”

এ বিষয়টি নিয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে কোনো তদন্ত করা হয়নি।

ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক আহসান হাবীব বলেন, “এটা নিয়ে ছাত্রলীগ ওই রকম কোনো ব্যাখ্যা দেয়নি। ছাত্রলীগের বিভিন্ন ইউনিটের সম্মেলন চলছে, এছাড়াও আগস্ট মাসের প্রোগ্রাম, মিছিল-মিটিংয়ের কারণে আমরা দম ফেলার সময় পাচ্ছি না।

“মাঝখানে এই বিষয়টা ক্যামনে কী হইলো ওইভাবে জানা সম্ভব হয়নি। বিভিন্ন ব্যস্ততার কারণে ওই বিষয়টি গুরুত্ব পায়নি-এটা সত্য কথা।”

মেশকাত আগে সূর্যসেন হল শাখা ছাত্রলীগের নেতা ছিলেন। হলের একটি কক্ষে ভাংচুর ও চুরির ঘটনায় তিনি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এক বছরের জন্য বহিষ্কৃত হয়েছিলেন।




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
তিন শর্তে অস্থায়ী এমপিও পাচ্ছে ১৭৬৩ প্রতিষ্ঠান, আলাদা পরিপত্র - dainik shiksha তিন শর্তে অস্থায়ী এমপিও পাচ্ছে ১৭৬৩ প্রতিষ্ঠান, আলাদা পরিপত্র প্রাথমিক শিক্ষকদের চাকরি করতে হবে চর এলাকায়, আসছে চর ভাতা - dainik shiksha প্রাথমিক শিক্ষকদের চাকরি করতে হবে চর এলাকায়, আসছে চর ভাতা ম্যানেজিং কমিটি প্রবিধানমালা সংশোধনের সিদ্ধান্ত ২২ আগস্ট - dainik shiksha ম্যানেজিং কমিটি প্রবিধানমালা সংশোধনের সিদ্ধান্ত ২২ আগস্ট বিএড ৩য়-৫ম সেমিস্টারের ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন ২৫ আগস্ট থেকে - dainik shiksha বিএড ৩য়-৫ম সেমিস্টারের ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন ২৫ আগস্ট থেকে সাত কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ ভর্তির আবেদন শুরু ১০ সেপ্টেম্বর - dainik shiksha সাত কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ ভর্তির আবেদন শুরু ১০ সেপ্টেম্বর এমবিবিএস কোর্সে ভর্তি পরীক্ষা ৪ অক্টোবর - dainik shiksha এমবিবিএস কোর্সে ভর্তি পরীক্ষা ৪ অক্টোবর কোন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের কবে ভর্তি পরীক্ষা, এক নজরে - dainik shiksha কোন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের কবে ভর্তি পরীক্ষা, এক নজরে ঢাবিতে ১ম বর্ষ ভর্তি বিজ্ঞপ্তি - dainik shiksha ঢাবিতে ১ম বর্ষ ভর্তি বিজ্ঞপ্তি শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website