তিন শিক্ষকের ডাবল এমপিও : দৈনিক শিক্ষায় প্রতিবেদন প্রকাশের পর অধ্যক্ষকে শোকজ - কলেজ - দৈনিকশিক্ষা


তিন শিক্ষকের ডাবল এমপিও : দৈনিক শিক্ষায় প্রতিবেদন প্রকাশের পর অধ্যক্ষকে শোকজ

রুহুল আমিন, যশোর প্রতিনিধি |

তথ্য জালিয়াতি করে তিন শিক্ষককে ডাবল এমপিও পাইয়ে দেয়া ঝিনাইদহের মহেশপুরের যাদবপুর কলেজের অধ্যক্ষকে শোকজ করা হয়েছে। তিনজন শিক্ষকের ডাবল এমপিও পাওয়ার বিষয়ে সম্প্রতি দেশের শিক্ষা বিষয়ক একমাত্র পত্রিকা দৈনিক শিক্ষাডটকমে ‘তিন শিক্ষকের বিরুদ্ধে দুই প্রতিষ্ঠান থেকে এমপিও নেয়ার অভিযোগ’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকশিত হয়। প্রতিবেদনটি আমলে নিয়ে থেকে অধ্যক্ষকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৯ জুলাই) মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের খুলনা অঞ্চলের পরিচালক (কলেজ) প্রফেসর হারুন অর রশিদ অধ্যক্ষ মঞ্জুরুল আলম দিনুকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছেন। নোটিশ পাওয়ার সাত কর্মদিবসের মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছে।

শোকজ নোটিশ পাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করেছেন অধ্যক্ষ মঞ্জুরুল আলম দিনু। তিনি দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, বৃহস্পতিবার ইমেইলের মাধ্যমে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের খুলনা আঞ্চলিক অফিস থেকে একটি শোকজ নোটিশ দেয়া হয়েছে। আমি গভর্নিং বডির মিটিং ডেকেছি। মিটিংয়ের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শোকজের জবাব দেব।

জানা যায়, ২০০৪ খ্রিষ্টাব্দের যশোর-ঝিনাইদহের সীমান্তবর্তী অঞ্চল মহেশপুরের যাদবপুর কলেজটি প্রতিষ্ঠিত হয়। শুরুতেই কলেজটিতে শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন চৌগাছার মাকাপুর-বল্লভপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক শরিফুল ইসলাম, এবিসিডি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক হাবিবুর রহমান এবং মহেশপুরের জলুলী দাখিল মাদরাসার শিক্ষক মাওলানা হাফিজুর রহমান। এই তিন শিক্ষক কলেজে যোগাদান করলেও তাদের আগের প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতা অব্যাহত রাখেন এবং এমপিও অনুযায়ী নিয়মিত সরকারি বেতন-ভাতা উত্তোলন করেন। তবে ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দে যাদবপুর কলেজটিকে সরকার এমপিওভুক্ত করলে তারা আবারও এমপিওভুক্ত হয়ে ডাবল বেতন ভাতা উত্তোলন করেন। এজন্য সরকারি নিয়ম অনুযায়ী বকেয়া এক বছরের বেতন-ভাতাও তুলে নেন। ইতিমধ্যে কলেজটি থেকে নিয়মিত বেতন পাওয়ার পাশাপাশি এরিয়ার টাকাও তাদের ব্যাংক হিসেবে জমা হয়ে গেছে। একই সাথে তারা এখনো স্ব স্ব স্কুলের শিক্ষক হিসেবে সরকারি বেতন-ভাতা উত্তোলন করছেন।  

অভিযোগ উঠেছে, এই তিন শিক্ষকের অন্য প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতা করার বিষয়টি গোপন করে যাদবপুর কলেজের শিক্ষক হিসেবে এমপিওভুক্তির জন্য আবেদন করেন কলেজটির অধ্যক্ষ মঞ্জুরুল আলম দিনু। 

এ নিয়ে দৈনিক শিক্ষাডটকমে ‘তিন শিক্ষকের বিরুদ্ধে দুই প্রতিষ্ঠান থেকে এমপিও নেয়ার অভিযোগ’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশ হলে স্থানীয়ভাবে তা সরিয়ে ফেলার জন্য চাপ দেয়া হয়। 

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের খুলনা অঞ্চলের পরিচালক (কলেজ) প্রফেসর হারুন অর রশিদ দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, যাদবপুর কলেজের তিন শিক্ষক ডাবল এমপিও ভোগ করছেন-এমন রিপোর্ট দৈনিক শিক্ষাডটকমে দেখে প্রাথমিকভাবে বিষয়টি অনুসন্ধান করা হয়েছে। প্রাথমিক অনুসন্ধানে অভিযোগের সত্যতা মিলেছে। এজন্য অধ্যক্ষকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে। তার জবাব পাওয়ার পর পরবর্তি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে দৈনিক শিক্ষার চ্যানেলের সাথেই থাকুন। ভিডিওগুলো মিস করতে না চাইলে এখনই দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন এবং বেল বাটন ক্লিক করুন। বেল বাটন ক্লিক করার ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে সয়ংক্রিয়ভাবে ভিডিওগুলোর নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে।

দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
২০২১ খ্রিষ্টাব্দের সরকারি ছুটির তালিকা চূড়ান্ত - dainik shiksha ২০২১ খ্রিষ্টাব্দের সরকারি ছুটির তালিকা চূড়ান্ত হাজী সেলিমের দখলে থাকা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলো উদ্ধারের তাগিদ - dainik shiksha হাজী সেলিমের দখলে থাকা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলো উদ্ধারের তাগিদ লক্ষাধিক শিক্ষকের অবৈধ সনদের বৈধতা দিলেন বিদায়ী প্রাথমিক সচিব - dainik shiksha লক্ষাধিক শিক্ষকের অবৈধ সনদের বৈধতা দিলেন বিদায়ী প্রাথমিক সচিব এমপিওবঞ্চিত প্রার্থীদের সুপারিশের আগে অ্যাটর্নি জেনারেল অফিসের মতামত নেবে এনটিআরসিএ - dainik shiksha এমপিওবঞ্চিত প্রার্থীদের সুপারিশের আগে অ্যাটর্নি জেনারেল অফিসের মতামত নেবে এনটিআরসিএ প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের আবেদন করবেন যেভাবে - dainik shiksha প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের আবেদন করবেন যেভাবে পাবলিক পরীক্ষায় অটোপাস: সাত সমস্যা বনাম তিন সমাধান - dainik shiksha পাবলিক পরীক্ষায় অটোপাস: সাত সমস্যা বনাম তিন সমাধান নতুন শিক্ষাবর্ষে স্কুলে ভর্তি : প্রধান শিক্ষকরা পরীক্ষার পক্ষে - dainik shiksha নতুন শিক্ষাবর্ষে স্কুলে ভর্তি : প্রধান শিক্ষকরা পরীক্ষার পক্ষে please click here to view dainikshiksha website