দক্ষ জনবল সৃষ্টিতে কতটা সহায়ক আমাদের শিক্ষাব্যবস্থা - মতামত - Dainikshiksha


দক্ষ জনবল সৃষ্টিতে কতটা সহায়ক আমাদের শিক্ষাব্যবস্থা

শাহজাহান আলী মূসা |

আমাদের শিক্ষাব্যবস্থা দক্ষ জনবল সৃষ্টিতে কতটা ভূমিকা রাখতে পারছে? যদিও প্রতি বছর লাখ লাখ তরুণ তরুণী গ্রাজুয়েশন শেষ করে বের হচ্ছে। এরা সমাজকে, দেশকে এমনকি নিজেকে কী দিতে পারবে এবং কোন কোন ক্ষেত্রে এই শিক্ষা কাজে লাগাতে পারবে—এর কোনো সদুত্তর আসলে কারো কাছেই নেই। এর সঠিক উত্তর নেই বলেই আমাদের দেশে ক্রমশ বেকারত্ব বৃদ্ধি পাচ্ছে।

বাংলাদেশে যারা বেকার, তারা কি আসলেই বেকার? নাকি আমাদের শিক্ষাব্যবস্থা তাকে বেকার করে রেখেছে? আমাদের শিক্ষাব্যবস্থাই বেকারত্বের মূল কারণ বলে মনে করি। তবে সকল শিক্ষাই বেকারত্ব সৃষ্টি করছে তা কিন্তু নয়। কিন্তু আমাদের শিক্ষাব্যবস্থায় সরকার কতটুকু অংশগ্রহণ করতে পারছে? এবং যুগের সঙ্গে তাল মেলাতে পারছে?

সম্প্রতি বিবিসি তার এক প্রতিবেদনে বলেছে, বাংলাদেশের চাকরির বাজারে বিদেশিদের দাপট বাড়ছে। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়—প্রতি বছর কোটি কোটি ডলার হারাচ্ছে বাংলাদেশ দক্ষ জনশক্তির অভাবে। সেখানে প্রতি বছর ভারতই ৫০০ কোটি ডলার নিয়ে নিচ্ছে আমাদের শ্রমবাজার থেকে। এছাড়াও রয়েছে শ্রীলংকা, পাকিস্তান, ফিলিপাইন, চীন, কোরিয়া প্রভৃতি দেশ। যেখানে বাংলাদেশেই দিন দিন বেকার সংখ্যা বাড়ছে, আবার সেখানে আমাদের শ্রমবাজারে বিদেশিরা ঢুকছে। কারণ আমাদের ছেলেমেয়েদের সেই দক্ষতা নেই।

বাংলাদেশ এমপ্লয়ার্সের সাবেক প্রেসিডেন্ট ব্যবসায়ী নেতা ফজলুল হক বলেন, ‘বাংলাদেশের বিভিন্ন বহুজাতিক কোম্পানি, গামেন্টর্স, ঔষধ কোম্পানি কিংবা অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে কাজ করছে বহু বিদেশি নাগরিক। দেশে মিড লেভেল ও টপ লেভেলের প্রফেশনালদের বড় ধরনের ঘাটতি রয়েছে। প্রচলিত শিক্ষাব্যবস্থায় শিক্ষিত হয়ে আসা কর্মীরা চাহিদা  মেটাতে পারছে না। ফলে বাধ্য হয়ে বিদেশ থেকে কর্মী আমদানি করতে হচ্ছে।’ বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সিপিডি বলছে, দেশের ২৪ শতাংশ তৈরি পোশাক কারখানাতে বিদেশি  শ্রমিক কাজ করছে। দক্ষতার ঘাটতির কারণেই বিদেশি শ্রমিকদের হাতে চলে যাচ্ছে দেশের অর্থ। এক প্রশ্নের জবাবে ব্যবসায়ী ফজলুল হক বলেন, পেশাগত দক্ষতার অভাবের পাশাপাশি ভাষাগত দক্ষতারও অভাব রয়েছে। বিশেষ করে ইংরেজি ভাষার দক্ষতা এবং পেশাগত কৌশলের ঘাটতি প্রকট।

অর্থাৎ দক্ষ জনবল সৃষ্টিতে অবশ্যই কারিগরি শিক্ষা নিতে হবে। একদিকে বেকার, শিক্ষিত বেকারের সংখ্যা বাড়ছে, অন্যদিকে আমাদের কর্মক্ষেত্রগুলো দখল করছে বিদেশিরা। এটা দুঃখজনক। নিয়োগদাতারা প্রফেশনাল লোক খুঁজছেন, তাঁরা দক্ষ লোক না পেয়ে বিদেশি নাগরিককে কাজ দিয়ে দিচ্ছেন। তাতে আমাদের দেশের অর্থ চলে যাচ্ছে  দেশের বাইরে। যদিও এদেশের অনেক শ্রমিক বিদেশে কাজ করছে। শ্রমিকদের দক্ষ করে গড়ে তুলে বিদেশ পাঠাতে পারলে দেশের ও বিশ্বের শ্রমবাজারে বৈপ্লবিক পরিবর্তন সাধিত হবে।

 

সূত্র: ইত্তেফাক




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
কল্যাণ ট্রাস্টের ৪০ কোটি টাকা এফডিআর করা হয়নি - dainik shiksha কল্যাণ ট্রাস্টের ৪০ কোটি টাকা এফডিআর করা হয়নি কল্যাণ ট্রাস্টের টাকা লুটকারী সদস্য-সচিবের বাসায় চেক! - dainik shiksha কল্যাণ ট্রাস্টের টাকা লুটকারী সদস্য-সচিবের বাসায় চেক! সড়ক অবরোধ করে ঢাবির ৭ কলেজ শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ - dainik shiksha সড়ক অবরোধ করে ঢাবির ৭ কলেজ শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ আদর্শ না শেখালে সন্তানদের হাতে বাবা-মাও নিরাপদ নন: গণপূর্তমন্ত্রী - dainik shiksha আদর্শ না শেখালে সন্তানদের হাতে বাবা-মাও নিরাপদ নন: গণপূর্তমন্ত্রী চাঁদা বৃদ্ধির পরও ২১৬ কোটি টাকা বার্ষিক ঘাটতি : শরীফ সাদী - dainik shiksha চাঁদা বৃদ্ধির পরও ২১৬ কোটি টাকা বার্ষিক ঘাটতি : শরীফ সাদী কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি নীতিমালা জারি - dainik shiksha কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি নীতিমালা জারি একাদশে ভর্তির নীতিমালা জারি, আবেদন শুরু ১২ মে - dainik shiksha একাদশে ভর্তির নীতিমালা জারি, আবেদন শুরু ১২ মে প্রাথমিকের ৪২৭ শিক্ষকের বদলি - dainik shiksha প্রাথমিকের ৪২৭ শিক্ষকের বদলি একাদশে ভর্তির আবেদন ১২ মে থেকে - dainik shiksha একাদশে ভর্তির আবেদন ১২ মে থেকে সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি - dainik shiksha সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website