দপ্তরির বিরুদ্ধে স্কুলে দেহ ব্যবসার অভিযোগ - বিবিধ - Dainikshiksha


দপ্তরির বিরুদ্ধে স্কুলে দেহ ব্যবসার অভিযোগ

নড়াইল প্রতিনিধি |

নড়াইল সদরের নাকশী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরি কাম নৈশ প্রহরীর বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন ধরে রাতে স্কুলের ক্লাসরুমে দেহ ব্যবসার অভিযোগ করেছে এলাকাবাসী। 

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শনিবার (১৫ জুন) স্কুল প্রাঙ্গণে ওই নৈশ প্রহরীসহ জড়িতদের শাস্তির দাবিতে এলাকাবাসী বিক্ষোভ করেছে। এ ঘটনা সামাল দিতে গিয়ে স্কুলের প্রধান শিক্ষক সুনীল কুমার নাগ উচ্চ রক্তচাপে অসুস্থ হয়ে সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।


 
এলাকাবাসীর অভিযোগ, প্রতিদিনই নানা এলাকার নারী দিয়ে স্কুলে টাকার বিনিময়ে দেহ ব্যবসা চালাতো নৈশ প্রহরী লতিব সিকদার। গত বুধবার (১২ জুন) রাতে এলাকাবাসী হাতে নাতে ধরে স্কুলের গেট আটকে দেয়। পরে প্রভাবশালী কিছু লোকের উপস্থিতিতে ছাড়া পায় ওই লতিব সিকদার। এ ঘটনার পরদিনই (১৩ জুন) স্কুলের প্রধান শিক্ষক ব্যবস্থাপনা কমিটির একটি সভায় ওই দপ্তরিকে সাময়িক বরখাস্ত দেখালেও সেই সভায় প্রধান শিক্ষক এবং একজন সহকারী শিক্ষক ছাড়া কারও স্বাক্ষর নেই।
 
এর আগে প্রধান শিক্ষক সুনীল কুমার নাগ জানান, বুধবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে খবর পেয়ে ভোরে স্কুলে ছুটে আসি। এ সময় স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আশরাফ সিকদার, মফিজুর রহমান, সুলতান আহম্মেদ, শরিফুল ইসলামসহ আরও কয়েকজন ছিলেন। নৈশ প্রহরী আলতাফও তাদের কাছে ছিল। আমি সে সময়ই তাকে পুলিশে দিয়ে আইনগত ব্যবস্থা করার চেষ্টা করি। না পেরে সভাপতির জিম্মায় দিয়ে চলে আসি।
 
এ ঘটনায় অভিযুক্ত স্কুলের দপ্তরি কাম নৈশ প্রহরী লতিব সিকদার মোবাইল ফোনে নিজের দোষ অস্বীকার করে বলেন, আমি স্কুলে ঘুমিয়ে ছিলাম। স্কুল কর্তৃপক্ষ কোনও ব্যবস্থা নিয়েছে কিনা এ ব্যাপারে কিছু জানি না।

স্থানীয় কয়েকজন যুবক জানায়, প্রায়ই রাতে এই স্কুলের  দোতলায় দেহ ব্যবসা চালায় নৈশ প্রহরী লতিব। একেকদিন একেক জন নারী নিয়ে আসে আর প্রভাবশালীরা এসে লতিবকে টাকা দিয়ে যায়। রাতে স্কুলে যারা আসে তারা প্রভাবশালী বলে ভয়ে আমরা কথা বলি না।

এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি আশরাফ সিকদার এর মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।
 
ঘটনাস্থলে উপস্থিত নড়াইল সদর থানা পুলিশের এসআই রজত জানান, এই স্কুলের দপ্তরি কাম নৈশ প্রহরীর অপকর্মের অভিযোগ পেয়েছি। এ ঘটনায় কয়েকজন জড়িত আছেন, তবে কেউ লিখিত অভিযোগ দিলে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
Close --> এমপিওভুক্তি : মাদরাসা ও কারিগরি প্রতিষ্ঠানের তথ্য যাচাই ১৮ থেকে ২৪ ডিসেম্বর - dainik shiksha এমপিওভুক্তি : মাদরাসা ও কারিগরি প্রতিষ্ঠানের তথ্য যাচাই ১৮ থেকে ২৪ ডিসেম্বর এমপিওভুক্ত মাদরাসার তথ্য যাচাইয়ে যেসব কাগজপত্র লাগবে - dainik shiksha এমপিওভুক্ত মাদরাসার তথ্য যাচাইয়ে যেসব কাগজপত্র লাগবে ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা সমমান সনদ নিয়ে আইসিটির ভাইভা প্রার্থীদের জটিলতা নিরসনে এনটিআরসিএর পরামর্শ - dainik shiksha সমমান সনদ নিয়ে আইসিটির ভাইভা প্রার্থীদের জটিলতা নিরসনে এনটিআরসিএর পরামর্শ ঢাকা বোর্ডের এসএসসিতে বৃত্তিপ্রাপ্তদের তালিকা - dainik shiksha ঢাকা বোর্ডের এসএসসিতে বৃত্তিপ্রাপ্তদের তালিকা ঢাকা বোর্ডে এইচএসসিতে বৃত্তিপ্রাপ্তদের তালিকা - dainik shiksha ঢাকা বোর্ডে এইচএসসিতে বৃত্তিপ্রাপ্তদের তালিকা অতিরিক্ত কর্তন : কথা রাখেননি সিনিয়র সচিব (ভিডিও) - dainik shiksha অতিরিক্ত কর্তন : কথা রাখেননি সিনিয়র সচিব (ভিডিও) প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের চূড়ান্ত ফল ২০ ডিসেম্বর মধ্যে - dainik shiksha প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের চূড়ান্ত ফল ২০ ডিসেম্বর মধ্যে এমপিও নীতিমালা সংশোধন সংক্রান্ত কয়েকটি প্রস্তাব - dainik shiksha এমপিও নীতিমালা সংশোধন সংক্রান্ত কয়েকটি প্রস্তাব দৈনিকশিক্ষার ফেসবুক লাইভ দেখতে আমাদের সাথে থাকুন প্রতিদিন রাত সাড়ে ৮ টায় - dainik shiksha দৈনিকশিক্ষার ফেসবুক লাইভ দেখতে আমাদের সাথে থাকুন প্রতিদিন রাত সাড়ে ৮ টায় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন দৈনিক শিক্ষার আসল ফেসবুক পেজে লাইক দিন - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষার আসল ফেসবুক পেজে লাইক দিন please click here to view dainikshiksha website