নার্সিং পেশাকে ক্যাডারভুক্তিসহ ৪ দফা দাবিতে শিক্ষার্থীদের অবস্থান - বিসিএস - দৈনিকশিক্ষা


নার্সিং পেশাকে ক্যাডারভুক্তিসহ ৪ দফা দাবিতে শিক্ষার্থীদের অবস্থান

নিজস্ব প্রতিবেদক |

পুরানো কারিকুলাম বহাল রাখা,নার্সিং পেশাকে বিসিএস ক্যাডারভুক্তিসহ চার দফা দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন নার্সিং শিক্ষার্থীরা। এসময় ইন্টার্ন ভাতা বাড়ানো ও নার্সিং কলেজকে পূর্নাঙ্গ কলেজে রূপান্তর করার দাবি ও জানিয়েছেন তারা। বৃহস্পতিবার (১৭ জুলাই) ‘বাংলাদেশ বেসিক গ্র্যাজুয়েট স্টুডেন্ট নার্সেস এসোসিয়েশনের’ ব্যানারে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন তাঁরা।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পক্ষে অ্যাসোসিয়েশন সাধারণ সম্পাদক মমতা বানু দৈনিকশিক্ষা ডটকমকে জানান, পুরাতন কারিকুলাম বহাল রেখে নতুন কারিকুলাম বাতিল করা, নার্সিং পেশাকে বিসিএস ক্যাডারভুক্ত করা, ইন্টার্ন ভাতা ৬ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ১২ হাজার টাকা করা, শিক্ষার্থী বৃত্তি ২ হাজার টাকা থেকে ৫ হাজার টাকা করা এবং নার্সিং কলেজকে পূর্ণাঙ্গ কলেজে রূপান্তর করাই তাদের মূল দাবি।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থী আবুল বারাকাত দৈনিকশিক্ষা ডটকমকে  জানান, ২০১৮-২০১৯ শিক্ষাবর্ষে বিএসসি ইন নার্সিংয়ের জন্য কারিকুলাম প্রণয়ন করা হয়। কিন্তু এ কারিকুলামটি নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। কোন প্রেক্ষিতে এ রকম কারিকুলাম প্রণয়ন করা হয়েছে তা জানতে চাইলেও কর্তৃপক্ষ কোন সদুত্তর দিতে পারেননি। তাই, আমরা পুরানো কারিকুলাম বহাল রাখার দাবি জানিয়েছি আমরা। নতুন কারিকুলাম দিতে হলে তা রিভিউ করে প্রণয়ন করতে হবে।  তিনি আরও জানান, নার্সিং পেশোকে প্রোফেশনাল স্বীকৃতি হিসেবে বিসিএস সেবা ক্যাডার চালুর দাবি জানিয়েছি আমরা। এছাড়া ইন্টার্নদের ভাতা ৬ হাজার থেকে বাড়িয়ে ২০ হাজার টাকা করার দাবি জানিয়েছি। 

এসময় ঢাকা নার্সিং কলেজের শিক্ষার্থী অন্তর বাবু দৈনিকশিক্ষা ডটকমকে জানান, নার্সিং পেশাকে জনপ্রিয় করতে এবং ক্লিনিক্যান প্র্যাকটিসের মাধ্যমে হাসপাতাল  সেবা দেয়ায় শিক্ষার্থীদের ২ হাজার টাকা বৃত্তি বা স্টাইপেন্ড দেয়া হয়। সে ভাতা বাড়িয়ে ৫ হাজার টাকা করারর দাবি জানিয়েছি আমরা। এছাড়া আমাদের কলেজের শিক্ষকদের পদ স্থায়ী না। তাই ভারপ্রাপ্ত শিক্ষক কর্মকর্তাদের দিয়ে কলেজ পরিচালিত হয়। তাই, শিক্ষক-ইনস্ট্রক্টরদের পদ সৃষ্টি করে নার্সিং কলেজগুলোকে পূর্ণাঙ্গ কলেজে রূপান্তরের দাবিও জানানো হয়েছে। 




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
--> বরগুনায় এমপি রিমনসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা - dainik shiksha বরগুনায় এমপি রিমনসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা মহিলার চেয়ে পুরুষ শিক্ষক বেশি নির্বাচিত করার বিষয়ে অধিদপ্তরের ব্যাখ্যা - dainik shiksha মহিলার চেয়ে পুরুষ শিক্ষক বেশি নির্বাচিত করার বিষয়ে অধিদপ্তরের ব্যাখ্যা ২০২০ খ্র্রিষ্টাব্দে মাদরাসার ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০২০ খ্র্রিষ্টাব্দে মাদরাসার ছুটির তালিকা ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সব কোচিং বন্ধ রাখার নির্দেশ (ভিডিও) - dainik shiksha ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সব কোচিং বন্ধ রাখার নির্দেশ (ভিডিও) এসএসসি পরীক্ষার্থী কমে যাওয়ার ব্যাখ্যা শুনুন শিক্ষামন্ত্রীর মুখে (ভিডিও) - dainik shiksha এসএসসি পরীক্ষার্থী কমে যাওয়ার ব্যাখ্যা শুনুন শিক্ষামন্ত্রীর মুখে (ভিডিও) শিক্ষার্থীদের ধারাবাহিক মূল্যায়ন নিয়ে যা বললেন শিক্ষামন্ত্রী (ভিডিও) - dainik shiksha শিক্ষার্থীদের ধারাবাহিক মূল্যায়ন নিয়ে যা বললেন শিক্ষামন্ত্রী (ভিডিও) কারিগরি ক্ষেত্রে প্রয়োজন বিপুল শিক্ষক : শিক্ষা উপমন্ত্রী - dainik shiksha কারিগরি ক্ষেত্রে প্রয়োজন বিপুল শিক্ষক : শিক্ষা উপমন্ত্রী বেসরকারি হাইস্কুল সংযুক্ত প্রাথমিক স্তরে ভর্তির সংশোধিত নীতিমালা প্রকাশ - dainik shiksha বেসরকারি হাইস্কুল সংযুক্ত প্রাথমিক স্তরে ভর্তির সংশোধিত নীতিমালা প্রকাশ দৈনিক শিক্ষার আসল ফেসবুক পেজে লাইক দিন - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষার আসল ফেসবুক পেজে লাইক দিন ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছুটির তালিকা ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া দৈনিকশিক্ষার ফেসবুক লাইভ দেখতে আমাদের সাথে থাকুন প্রতিদিন রাত সাড়ে ৮ টায় - dainik shiksha দৈনিকশিক্ষার ফেসবুক লাইভ দেখতে আমাদের সাথে থাকুন প্রতিদিন রাত সাড়ে ৮ টায় শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন please click here to view dainikshiksha website