নুসরাত হত্যা : নিশাত-ফুর্তিকে আরও জেরা করতে চায় আসামিপক্ষ - মাদরাসা - দৈনিকশিক্ষা


নুসরাত হত্যা : নিশাত-ফুর্তিকে আরও জেরা করতে চায় আসামিপক্ষ

ফেনী প্রতিনিধি |

ফেনীর আলোচিত মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার মামলায় দুজন সাক্ষীকে আবার জেরা করতে চান আসামিপক্ষের আইনজীবীরা। এ দুজন হলেন ১ নম্বর সাক্ষী নিশাত সুলতানা ও ২ নম্বর সাক্ষী নাসরিন সুলতানা ফুর্তি। আসামিপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত আজ রোববার দিন ধার্য করেছেন।

জেলা জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) হাফেজ আহাম্মদ বলেন, মামলার গুরুত্বপূর্ণ দুই সাক্ষী নিশাত সুলতানা ও নাসরিন সুলতানা ফুর্তি। তারা নুসরাতের সহপাঠী ও বান্ধবী। তাদের মধ্যে নিশাত গত ২৭ মার্চ মাদরাসায় নুসরাতের শ্লীলতাহানির সময় অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার কক্ষের বাইরে অপেক্ষমাণ ছিল। আবার ফুর্তি নিজে অধ্যক্ষের যৌন হয়রানির শিকার হয়। তারা এর আগে গত ৩০ জুন ও ১ জুলাই ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে সাক্ষ্য দেয়। ওই সময় আসামিপক্ষের পনেরজন আইনজীবী তাদের জেরাও করেছিলেন।

আসামিপক্ষের আইনজীবীরা জানান, সাক্ষীদের মধ্যে নিশাত ও ফুর্তি ১৪১ ধারায় মামলার তদন্ত কর্মকর্তার কাছে ঘটনার বর্ণনা দিয়েছিল। তারা আমলি আদালতের বিচারকের কাছেও বয়ান দিয়েছে। পাশাপাশি মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হলে তারা নারী ও শিশু নির্যতন দমন ট্রাইব্যুনালেও জবানবন্দি দিয়েছে। এই তিনটি বয়ানে বেশ কিছু অমিল রয়েছে। তারা একেক জায়গায় একেক ধরনের কথা বলেছে।

আইনজীবীরা বলেন, নিশাত আদালতে সাক্ষ্য দিতে এসে বলেছে যে ৬ এপ্রিল সকালে আগুনের ঘটনার পর পরীক্ষা হলে মামলার আসামি কামরুন নাহার মনি তাকে বলেছে, ‘তোদের বান্ধবী নুসরাত নাকি ছাদের ওপর গায়ে আগুন দিয়েছে? তা আত্মহত্যাই যদি করবে, তাহলে বাড়িতেও করতে পারত, মাদরাসায় কেন?’ কিন্তু এর আগে তদন্ত কর্মকর্তা ও আমলি আদালতের বিচারকের কাছে দেয়া বয়ানে এমন কোনো কথার উল্লেখ ছিল না। তাই আসামিপক্ষের আইনজীবীরা মনে করছেন, এই দুই সাক্ষীকে আরও জেরা করার প্রয়োজন রয়েছে। গত বৃহস্পতিবার সকালে তাঁরা বিচারকের কাছে এই দুই সাক্ষীকে পুনরায় আদালতে হাজির করার জন্য আবেদন করেন।

আসামিপক্ষের অন্যতম আইনজীবী আহসান কবির বেঙ্গল বলেন, ‘আমরা মনে করি মামলার ন্যায়বিচারের স্বার্থে এই দুই সাক্ষীকে অধিকতর জেরা করার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। তাই আমাদের আবেদনের ভিত্তিতে আদালত আজ রোববার তাদের আবার আদালতে হাজিরের নির্দেশ দিয়েছেন।’

পিপি হাফেজ আহাম্মদ বলেন, ন্যায়বিচারের স্বার্থে বিচারক এই দুই সাক্ষীকে পুনরায় হাজিরের নির্দেশ দিয়ে সমন পাঠিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, গত ২৭ জুন থেকে ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদের আদালতে নুসরাত হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ চলছে। মামলার ৯২ জন সাক্ষীর মধ্যে ৮৭ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ ও জেরা সম্পন্ন হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) পরিদর্শক শাহ আলমের জেরা শেষ হয়।




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষার নম্বরে শিক্ষার্থী বাছাই করবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো - dainik shiksha কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষার নম্বরে শিক্ষার্থী বাছাই করবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে নওগাঁয় - dainik shiksha পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে নওগাঁয় চালু হবে দুই বছর মেয়াদি প্রাক-প্রাথমিক স্তর - dainik shiksha চালু হবে দুই বছর মেয়াদি প্রাক-প্রাথমিক স্তর জিপিএ ৪ এর গ্রেডিং বিন্যাস চূড়ান্ত, এ বছর জেএসসি থেকেই কার্যকর - dainik shiksha জিপিএ ৪ এর গ্রেডিং বিন্যাস চূড়ান্ত, এ বছর জেএসসি থেকেই কার্যকর সিটি ইউনিভার্সিটিকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা, অর্থ জমা হবে বার কাউন্সিলে - dainik shiksha সিটি ইউনিভার্সিটিকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা, অর্থ জমা হবে বার কাউন্সিলে করোনা ভাইরাস : সিঙ্গাপুরে আক্রান্ত বাংলাদেশির অবস্থা আশঙ্কাজনক - dainik shiksha করোনা ভাইরাস : সিঙ্গাপুরে আক্রান্ত বাংলাদেশির অবস্থা আশঙ্কাজনক সাত কলেজ ও দুই জেলায় স্বাধীনতা বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সংসদের ইউনিট ঘোষণা - dainik shiksha সাত কলেজ ও দুই জেলায় স্বাধীনতা বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সংসদের ইউনিট ঘোষণা উপাচার্যদের সঙ্গে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার বৈঠক স্থগিত করলেন শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha উপাচার্যদের সঙ্গে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার বৈঠক স্থগিত করলেন শিক্ষামন্ত্রী কোচিং সেন্টারে অভিযান: ২ শিক্ষকের সাজা, শিক্ষার্থীদের ক্ষোভ - dainik shiksha কোচিং সেন্টারে অভিযান: ২ শিক্ষকের সাজা, শিক্ষার্থীদের ক্ষোভ শিক্ষা ভবনের মহাপরিচালকের ঘনঘন বিদেশ সফর নিয়ে যা বললেন প্রধানমন্ত্রী - dainik shiksha শিক্ষা ভবনের মহাপরিচালকের ঘনঘন বিদেশ সফর নিয়ে যা বললেন প্রধানমন্ত্রী রওশনের প্রশ্ন : শিক্ষামন্ত্রী বেশিরভাগ সময়ে বিদেশে থাকলে শিক্ষার উন্নয়ন হবে কীভাবে ? - dainik shiksha রওশনের প্রশ্ন : শিক্ষামন্ত্রী বেশিরভাগ সময়ে বিদেশে থাকলে শিক্ষার উন্নয়ন হবে কীভাবে ? অনার্স চতুর্থ বর্ষ পরীক্ষার সেই সূচি সংশোধন, সস্তুষ্ট নয় শিক্ষার্থীরা - dainik shiksha অনার্স চতুর্থ বর্ষ পরীক্ষার সেই সূচি সংশোধন, সস্তুষ্ট নয় শিক্ষার্থীরা ভুয়া বিএড সনদে আইডিয়াল স্কুলের ৮ শিক্ষকের চাকরি, রয়েল ইউনিভার্সিটির বিরুদ্ধেও পাল্টা অভিযোগ - dainik shiksha ভুয়া বিএড সনদে আইডিয়াল স্কুলের ৮ শিক্ষকের চাকরি, রয়েল ইউনিভার্সিটির বিরুদ্ধেও পাল্টা অভিযোগ প্রশিক্ষণ পেয়েছেন সোয়া ৯ লাখ শিক্ষক তবু প্রশ্ন নোট-গাইড থেকেই - dainik shiksha প্রশিক্ষণ পেয়েছেন সোয়া ৯ লাখ শিক্ষক তবু প্রশ্ন নোট-গাইড থেকেই সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপনের নির্দেশ - dainik shiksha সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপনের নির্দেশ করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচবেন যেভাবে - dainik shiksha করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচবেন যেভাবে ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের কলেজের সংশোধিত ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের কলেজের সংশোধিত ছুটির তালিকা ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছুটির তালিকা ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা ২০২০ খ্র্রিষ্টাব্দে মাদরাসার ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০২০ খ্র্রিষ্টাব্দে মাদরাসার ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া দৈনিক শিক্ষার আসল ফেসবুক পেজে লাইক দিন - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষার আসল ফেসবুক পেজে লাইক দিন শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন please click here to view dainikshiksha website