পরীক্ষায় খাতা না দেখানোয় ছাত্রকে মারধর - মেডিকেল ও কারিগরি - দৈনিকশিক্ষা


পরীক্ষায় খাতা না দেখানোয় ছাত্রকে মারধর

ফরিদপুর প্রতিনিধি |

ফরিদপুরে পরীক্ষার সময় খাতা না দেখানোর ‘অপরাধে’ এক শিক্ষার্থীকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে আরেক শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে। এতে ওই শিক্ষার্থীর বাঁ কানের পর্দা ফেটে যায়। গত বৃহস্পতিবার জেলা শহরের চাঁদমারী এলাকায় ন্যাশনাল পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের পাশে ঈদগাহ ময়দানে এ ঘটনা ঘটে।

আহত ওই শিক্ষার্থীর নাম সৈয়দ শাওন আলী (১৭)। সে ওই ইনস্টিটিউটের ইলেকট্রিক্যাল বিভাগের তৃতীয় পর্বের শিক্ষার্থী ও সালথা উপজেলার উজিরপুর গ্রামের সৈয়দ রাশেদ আলীর ছেলে। বর্তমানে সে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

এ ছাড়া অভিযুক্ত মো. সাজ্জাদ (১৭) একই ইনস্টিটিউটের সিভিল বিভাগের তৃতীয় পর্বের শিক্ষার্থী ও জেলা শহরের পূর্ব খাবাসপুর এলাকার বাসিন্দা।

শাওনের অভিযোগ, গত ২৪ অক্টোবর থেকে ইনস্টিটিউটে মধ্য পর্ব পরীক্ষা শুরু হয়েছে। আগামী মঙ্গলবার এ পরীক্ষা শেষ হওয়ার কথা। পরীক্ষা কেন্দ্রে তার পাশে সাজ্জাদের আসন পড়েছে। পরীক্ষার শুরু থেকেই সাজ্জাদ তার খাতা দেখে লিখছে। বৃহস্পতিবার সামাজিক বিজ্ঞান পরীক্ষা ছিল। ওই দিন আর সাজ্জাদকে খাতা দেখতে দেয়নি সে। পরীক্ষা শেষে ইনস্টিটিউট থেকে বের হওয়ার পর সাজ্জাদ ও তার কয়েকজন বহিরাগত সহযোগী তাকে (শাওন) পাশের ঈদগাহ ময়দানে নিয়ে কিল, চড়-থাপ্পড় মারে। পরে ইনস্টিটিউট কর্তৃপক্ষ তাকে উদ্ধার করে প্রথমে একটি বেসরকারি হাসপাতাল ও পরে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে সাজ্জাদ বলে, ‘যেভাবে ঘটনার কথা বলা হয়েছে তেমনভাবে ঘটেনি। পরীক্ষা শেষ হওয়ার পর আমি ইনস্টিটিউটের সামনে দাঁড়ানো ছিলাম। ওই সময় আমি দেখেছি দুজন অপরিচিত ছেলে এসে শাওনকে মারছে। আমি বরং তাদের হাত থেকে শাওনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছি।’

এদিকে ওই বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক নিখিল চন্দ্র দত্ত বলেন, ‘শাওনের বাম কানের পর্দা ফেটে গেছে। এ জন্য তাকে অস্ত্রোপচার করতে হবে।’

ওই ইনস্টিটিউটের রেজিস্ট্রার মো. লুৎফর রহমান বলেন, ‘শাওন বর্তমানে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের নাক-কান-গলা বিভাগে ভর্তি আছে। এ ব্যাপারে সাজ্জাদের অভিভাবকদের ইনস্টিটিউটে ডেকে পাঠানো হয়েছে।’




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত - dainik shiksha শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত উচ্চতর গ্রেড পাচ্ছেন ৬ হাজার ৪১০ শিক্ষক - dainik shiksha উচ্চতর গ্রেড পাচ্ছেন ৬ হাজার ৪১০ শিক্ষক সরকারি স্কুলে ভর্তির নীতিমালা জারি - dainik shiksha সরকারি স্কুলে ভর্তির নীতিমালা জারি ‘সরকারিকরণের আদেশ জারির দিন থেকে শিক্ষকদের আর্থিক সুবিধা দেয়ার চেষ্টা চলছে’ - dainik shiksha ‘সরকারিকরণের আদেশ জারির দিন থেকে শিক্ষকদের আর্থিক সুবিধা দেয়ার চেষ্টা চলছে’ দুর্নীতিবাজ কর্মচারীরা ফিরে আসছে শিক্ষা ভবনে, মাদরাসা শাখার কাজ কি? - dainik shiksha দুর্নীতিবাজ কর্মচারীরা ফিরে আসছে শিক্ষা ভবনে, মাদরাসা শাখার কাজ কি? রিফাত হত্যা মামলা : মিন্নিসহ ৬ জনের ফাঁসি, খালাস ৪ - dainik shiksha রিফাত হত্যা মামলা : মিন্নিসহ ৬ জনের ফাঁসি, খালাস ৪ টাইমস্কেল পাওয়া অধিগ্রহণকৃত স্কুল শিক্ষকদের টাকা ফেরত নেয়ার কাজ শুরু - dainik shiksha টাইমস্কেল পাওয়া অধিগ্রহণকৃত স্কুল শিক্ষকদের টাকা ফেরত নেয়ার কাজ শুরু বিনা প্রয়োজনে কলেজ ক্যাম্পাসে জনসাধারণের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি - dainik shiksha বিনা প্রয়োজনে কলেজ ক্যাম্পাসে জনসাধারণের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি ক্যামব্রিয়ান কলেজের ভ্যাট ফাঁকি, গোয়েন্দাদের অভিযান - dainik shiksha ক্যামব্রিয়ান কলেজের ভ্যাট ফাঁকি, গোয়েন্দাদের অভিযান কোচিং ও পরীক্ষা নিয়ে সাংবাদিকদের যা জানাল মন্ত্রণালয় - dainik shiksha কোচিং ও পরীক্ষা নিয়ে সাংবাদিকদের যা জানাল মন্ত্রণালয় please click here to view dainikshiksha website