পরীক্ষা দিতে না পারায় হতাশ ইসলামিয়া বিএম কলেজের শিক্ষার্থীরা - কলেজ - দৈনিকশিক্ষা


পরীক্ষা দিতে না পারায় হতাশ ইসলামিয়া বিএম কলেজের শিক্ষার্থীরা

ধোবাউড়া (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি |

ময়মনসিংহের ধোবাউড়ায় ইসলামিয়া টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিএম কলেজে পরীক্ষা দিতে না পেরে হতাশ হয়ে পড়েছে প্রায় শতাধিক শিক্ষার্থী। জানা যায়, সদ্য সমাপ্ত জেএসসি পরীক্ষার সঙ্গে অনুষ্ঠিত নবম শ্রেণির পরীক্ষায় অংশ নেয়ার কথা ছিল তাদের। কিন্তু পরীক্ষার আগের দিন কলেজে এসে প্রবেশপত্র পায়নি তারা। এ নিয়ে তাদের মাঝে চরম হতাশা ও ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, একজন শিক্ষার্থীরও নিবন্ধন করেনি কলেজ কর্তৃপক্ষ।

শিক্ষার্থীরা জানায়, তারা বছরের শুরুতে ভর্তি ফি বাবদ ১ হাজার টাকা ও নিবন্ধন বাবদ ২ হাজার টাকা দিয়ে ভর্তি হয়েছে। এরপর থেকে নিয়মানুযায়ী ক্লাসও করেছে তারা। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, কলেজ কর্তৃপক্ষ সহজভাবেই ভালো ফলাফল করার আশ্বাস দিয়ে কারিগরি শাখায় ছাত্রছাত্রীদের প্রত্যেকের কাছ থেকে ভর্তি ফি এবং নিবন্ধন ফি নিয়েছে। বছর শেষে ছাত্রছাত্রীরা যখন প্রবেশপত্র নিতে আসে তখনই বাধে ঝামেলা।

কলেজ অধ্যক্ষ শিক্ষার্থীদের হাতে প্রবেশপত্র দিতে পারেননি। এ নিয়ে ছাত্রছাত্রীদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হলে বিভিন্নভাবে শিক্ষার্থীদের বোঝানোর চেষ্টা করেন অধ্যক্ষ। এমনকি পরীক্ষা না দিয়ে পাস করার কথাও বলেছেন তাদের। ছাত্রীদের অন্য স্কুলের অধীনে পরীক্ষা দেয়াবে বলে আশ্বাসও দেন তিনি।

কিন্তু শিক্ষার্থীদের ক্ষোভের বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করতে নিজেরা প্রশ্ন তৈরি করে জেনারেল শাখায় পরীক্ষা দেয়াবে বলে পরীক্ষা নেয় কর্তৃপক্ষ। বিষয়টি কোনো কোনো শিক্ষার্থী কথা বলতে চাইলে শিক্ষার্থীদের হুমকি-ধমকিও দেন অধ্যক্ষ।

এ ব্যাপারে ইসলামিয়া টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিএম কলেজের অধ্যক্ষ আজিজুল হক নিবন্ধন না হওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, একজনকে আমি দায়িত্ব দিয়েছিলাম। সে সময় মতো কাজটি না করায় এমনটি হয়েছে। পরে আমি নিজেও চেষ্টা করেছি। কিন্তু পারিনি। তবে টাকা নেয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, অনেকেই ৩ হাজার টাকা দেয়নি, কমও দিয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শফিউল আলম ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রফিকুজ্জামান জানান, বিষয়টি তাদের জানা নেই। তবে এমন ঘটনা ঘটে থাকলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
মৃত শিক্ষককেও বদলি করল মন্ত্রণালয় - dainik shiksha মৃত শিক্ষককেও বদলি করল মন্ত্রণালয় please click here to view dainikshiksha website