প্রধান শিক্ষকের অশ্লীলতার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ - স্কুল - Dainikshiksha


প্রধান শিক্ষকের অশ্লীলতার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি |

ঈশ্বরদীর আলহাজ টেক্সটাইল মিলস উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোজাম্মেল হকের অপসারণ দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সড়ক অবরোধ করেছে বিক্ষুব্ধ ছাত্র-ছাত্রীরা। শনিবার (১৫ জুন) সকাল ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকালে ঈশ্বরদী-কুষ্টিয়া সড়কে (আইকে রোড) শিক্ষার্থীরা অবস্থান নিয়ে অবরোধ করলে প্রায় আধা ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে।

বিক্ষুব্ধ ছাত্রছাত্রীরা অভিযোগ করে, ‘গত ২৫শে মে দুপুরে স্কুল মাঠে ৮ম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী তার কয়েকজন বান্ধবীর সঙ্গে খেলা করছিল। ওই সময় প্রধান শিক্ষক মোজাম্মেল হক ওই ছাত্রীকে ডেকে নিয়ে তাকে বিভিন্ন ধরনের অশ্লীল ও আপত্তিকর কথাবার্তা বলে শরীরের বিভিন্ন স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেন। পরে তার বান্ধবীরা এগিয়ে এলে প্রধান শিক্ষক তাকে ছেড়ে দিয়ে দ্রুত স্থান ত্যাগ করেন।’

বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয় প্রভাবশালীরা ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে ব্যর্থ হন। পরে ওই ছাত্রী নিজেই বাদী হয়ে ঈশ্বরদী থানায় একটি যৌন হয়রানির মামলা করে। মামলার পর থেকেই অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক গা ঢাকা দিয়েছেন।

শিক্ষার্থীরা জানায়, প্রায়ই তাদের সঙ্গে অশালীন আচরণ করেন প্রধান শিক্ষক।

কথা বলতে আলহাজ টেক্সটাইল মিলস উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোজাম্মেল হকের মুঠোফোনে একাধিকবার চেষ্টা করা হলে ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

এ বিষয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সেলিম আক্তার জানান, জেলা শিক্ষা অফিসার মোসলেম উদ্দিন স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিকে চিঠি দিয়েছেন তদন্ত সাপেক্ষে দায়ী ব্যক্তির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ধৈর্য ধারণ করে ক্লাসে ফেরার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দীন ফারুকী জানান, অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক মোজাম্মেল হককে গ্রেফতার করার প্রতিশ্রুতি দিলে শিক্ষার্থীরা তাদের অবরোধ তুলে নেয়।




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
এমপিওভুক্তির দাবিতে ফের রাজপথে শিক্ষকদের অবস্থান কর্মসূচি শুরু - dainik shiksha এমপিওভুক্তির দাবিতে ফের রাজপথে শিক্ষকদের অবস্থান কর্মসূচি শুরু মারধরে অসুস্থ হলে আবরারকে অন্য রুমে নিয়ে গিয়ে পেটাই : রবিন - dainik shiksha মারধরে অসুস্থ হলে আবরারকে অন্য রুমে নিয়ে গিয়ে পেটাই : রবিন কী আছে শিক্ষক গোকুল দাশের লাইব্রেরিতে, কেন বিক্রির বিজ্ঞাপন? - dainik shiksha কী আছে শিক্ষক গোকুল দাশের লাইব্রেরিতে, কেন বিক্রির বিজ্ঞাপন? ৪২ শতাংশই অন্য চাকরি না পেয়ে শিক্ষকতায় এসেছেন - dainik shiksha ৪২ শতাংশই অন্য চাকরি না পেয়ে শিক্ষকতায় এসেছেন ডিগ্রি ১ম বর্ষ পরীক্ষার ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত - dainik shiksha ডিগ্রি ১ম বর্ষ পরীক্ষার ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website