প্রধান শিক্ষকের নির্যাতনে মারা গেল শিশু শিক্ষার্থী - স্কুল - Dainikshiksha


প্রধান শিক্ষকের নির্যাতনে মারা গেল শিশু শিক্ষার্থী

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি |

খাগড়াছড়ির মহালছড়িতে প্রধান শিক্ষকের হাতে নির্যাতনের শিকার হয়ে চিকিৎসার জন্য ভারতে পাঠিয়েও বাঁচানো গেল না স্কুলছাত্র হোসেন আলীকে। গত শুক্রবার (১৪ জুন) রাতে ভারত থেকে লাশ আসার পর মহালছড়ির গ্রামের বাড়ি সিলেটি পাড়ায় তাকে দাফন করা হয়। এ ঘটনায় ওই গ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। 

ওই স্কুলছাত্রের বাবা মো. শফিউল আলম জানান, ৫ম শ্রেণির ছাত্র হোসেন আলীকে প্রধান শিক্ষক তার বাসায় প্রাইভেট পড়াতেন। ২ দিন ধরে পড়তে না যাওয়ায় প্রধান শিক্ষক তাকে ৩১০ বার কান ধরে ওঠ-বস করায়। এ শাস্তির পর আবারও ২০ মিনিট ধরে তাকে হাটুর নিচে মাথা রেখে শাস্তি দেন ওই শিক্ষক।

এ সময় ওই ছাত্রের মুখ দিয়ে লালা বের হয়ে অজ্ঞান হয়ে গেলে তাকে প্রথমে খাগড়াছড়ি ও পরে চট্টগ্রাম চিকিৎসা দেয়া হয়। সবশেষে ভারতের চেন্নায়ে পাঠানো হয় গত মে মাসে। সেখানে ১ মাস চিকিৎসার পর হোসেন আলী মৃত্যুর মুখে ঢলে পরে।

মো. শফিউল আলম আরও জানান, ইউপি চেয়ারম্যান রতন শীলসহ ভারতের চেন্নাইয়ে যাওয়ার আগে শিক্ষা অফিসে এক বৈঠক হয়। এ বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী অভিযুক্ত ওই শিক্ষক ছাত্র হোসেন আলীর চিকিৎসার জন্য ১ লাখ টাকা দেন। 

মহালছড়ি উপজেলার শিক্ষা অফিসার দিপিকা খীসা জানান, অভিভাবকরা আমাকে একটা লিখিত অভিযোগ করেছেন। সে অনুযায়ী আমরা প্রাথমিকভাবে ছাত্রকে শাস্তি দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছি। তবে ইউপি চেয়ারম্যানের বৈঠকের পরও ছাত্রের চিকিৎসার জন্য ১ লাখ টাকা অভিভাবকের কাছ দেয়ায় তদন্ত কাজ স্থগিত হয়ে যায়। তবে অভিভাবকরা ফের চাইলে নতুন করে তদন্ত শুরু করা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। 

এদিকে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক মো. মহিন উদ্দিন খন্দকার বলেন, মানবিক কারণে আমি চিকিৎসার জন্য টাকা দিয়েছি। তবে তিনি কত টাকা দিয়েছেন তা এড়িয়ে যান। 




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
৪২ শতাংশই অন্য চাকরি না পেয়ে শিক্ষকতায় এসেছেন - dainik shiksha ৪২ শতাংশই অন্য চাকরি না পেয়ে শিক্ষকতায় এসেছেন র‌্যাগিং রোধে বিশেষ সেলের কথা বললেন শিক্ষামন্ত্রী, ইউজিসি দিল নির্দেশনা - dainik shiksha র‌্যাগিং রোধে বিশেষ সেলের কথা বললেন শিক্ষামন্ত্রী, ইউজিসি দিল নির্দেশনা ২৫ অক্টোবর থেকে কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশ - dainik shiksha ২৫ অক্টোবর থেকে কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশ শিক্ষার্থীদের অন্দোলনের মুখে ভিসি নাসিরের ভাতিজার পদত্যাগ - dainik shiksha শিক্ষার্থীদের অন্দোলনের মুখে ভিসি নাসিরের ভাতিজার পদত্যাগ ঢাবি ‘খ’ ইউনিটের ফল প্রকাশ - dainik shiksha ঢাবি ‘খ’ ইউনিটের ফল প্রকাশ ‘প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া’ বলে তোপের মুখে পালালেন অধ্যক্ষ - dainik shiksha ‘প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া’ বলে তোপের মুখে পালালেন অধ্যক্ষ এমপিওভুক্ত হচ্ছেন আরও শতাধিক শিক্ষক - dainik shiksha এমপিওভুক্ত হচ্ছেন আরও শতাধিক শিক্ষক ডিগ্রি ১ম বর্ষ পরীক্ষার ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত - dainik shiksha ডিগ্রি ১ম বর্ষ পরীক্ষার ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website