প্রয়োজনে বিদেশ থেকে শিক্ষক নিয়ে আসতে হবে: প্রধানমন্ত্রী - কলেজ - Dainikshiksha


প্রয়োজনে বিদেশ থেকে শিক্ষক নিয়ে আসতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক |

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমাদের ছাত্রের অভাব নাই, অভাব হচ্ছে প্রশিক্ষিত শিক্ষকের। শিক্ষার মানোন্নয়নে আধুনিক বিষয়গুলোতে শিক্ষা প্রদানের জন্য প্রয়োজনে জাপানের সম্রাট মেইজির মতো আমাদেরকেও বিদেশ থেকে শিক্ষক নিয়ে আসতে হবে। আর এ বাজেটের থেকেই এ কার্যক্রম শুরু করতে চাই। সেজন্য ২০১৯-২০ অর্থবছরে আমরা শিক্ষা খাতে পর্যাপ্ত বাজেট বরাদ্দ রেখেছি। বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল অসুস্থ হয়ে পড়লে তাঁর পক্ষে রাখা বাজেট বক্তৃতায় এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

বাজেট বক্তৃতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, শিক্ষা বিষয়ে আলোকপাত করার আগে আমি জাপানের একটি স্মরণীয় দৃষ্টান্তের কথা উল্লেখ করতে চাই। আঠারো শতকের শেষভাগে মেইজি পুনর্গঠন শুরুর আগে জাপান ছিল জ্ঞান-বিজ্ঞানে একটি পশ্চাৎপদ দেশ। জাপানিদের এমনকি রাজপুত্রকেও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দেশগুলোতে পাঠিয়ে পাশ্চাত্য শিক্ষা ও প্রযুক্তি জ্ঞান আহরণ করার তাগিদ দেন সম্রাট মেইজি। তিনি বুঝতে পেরেছিলেন জাপানের ছত্রের অভাব নেই, অভাব হচ্ছে উপযুক্ত শিক্ষকের। তাই তিনি পাশ্চাত্য দেশগুলো থেকে বিভিন্ন প্রযুক্তি নির্ভর প্রশিক্ষিত শিক্ষক জাপানে নিয়ে আসেন জাপানের শিক্ষাব্যবস্থাকে সময় উপযোগী করে গড়ে তুলতে। এ ধরনের দূরদর্শিতায় জাপান শুধু পশ্চিমাদের সমকক্ষ হয়ে থাকেনি, সারা বিশ্বে সবার আগে প্রথম শতভাগ শিক্ষিত দেশ হওয়ার গৌরব লাভ করেছে। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরও বলেন, শিক্ষাকে সার্বিক গুরুত্ব প্রদান করেছে বর্তমান সরকার। দক্ষ জনশক্তি তৈরির উদ্দেশ্যে শিক্ষার সার্বিক মানোন্নয়ন, শিক্ষা ক্ষেত্রে বৈষম্য দূরীকরণ গুণগত উৎকর্ষ সাধন ও শিক্ষা সম্প্রসারণের লক্ষ্য নির্ধারিত হয়েছে। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্ব এখন তৃতীয় শিল্প বিপ্লব থেকে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে উত্তরণের পথে। বিশ্বের সাথে পাল্লা দিয়ে আমাদেরকেও তৈরি হতে হবে। না হলে সামনে অগ্রসর হওয়া আমাদের জন্য দুরূহ হবে। ক্লাসরুমগুলো বিশেষ উপযোগী করে তৈরি করা হবে। সেখানে ন্যানো টেকনোলজি, বায়োটেকনোলজি রোবটিক্স, আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স, ম্যাটেরিয়াল সায়েন্স, ইন্টারনেট অফ থিংস, কোয়ান্টাম কম্পিউটিং, ব্লকচেইন টেকনোলজি ইত্যাদি বিষয়ে শেখানো হবে। এসব বিষয়ে শিক্ষা গ্রহণ এখন সময়ের দাবি। এ সময় প্রাচীন জাপানি সম্রাট মেইজকে অনুসরণ করে বিদেশ থেকে প্রশিক্ষিত শিক্ষক বাংলাদেশের নিয়ে আসার পরিকল্পনার কথা জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, প্রশিক্ষিত শিক্ষকদের কাছে আমাদের শিক্ষাব্যবস্থাকে হস্তান্তর করতে চাই। আমাদের আগামীর পথ চলা পুরোটাই নির্ভর করছে বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থার ওপর। শিক্ষার সকল স্তরের জন্য উপযুক্ত শিক্ষক বাছাই, তাদের প্রশিক্ষণ সময়োপযোগী শিক্ষার বিষয়বস্তু নির্ধারণ এখন একান্ত সময়ের দাবি। আমাদের সরকার এ বছর থেকেই এসব বাস্তবায়নে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করবে। 




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
এইচএসসিতে পাসের হার ৭৩ দশমিক ৯৩ শতাংশ - dainik shiksha এইচএসসিতে পাসের হার ৭৩ দশমিক ৯৩ শতাংশ আলিমে পাস ৮৮ দশমিক ৫৬ শতাংশ, ২ হাজার ৫৪৩ জিপিএ-৫ - dainik shiksha আলিমে পাস ৮৮ দশমিক ৫৬ শতাংশ, ২ হাজার ৫৪৩ জিপিএ-৫ জিপিএ-৫ সাড়ে ৪৭ হাজার - dainik shiksha জিপিএ-৫ সাড়ে ৪৭ হাজার বেসরকারি চাকরিজীবীরাও ফ্ল্যাট পাবে : প্রধানমন্ত্রী - dainik shiksha বেসরকারি চাকরিজীবীরাও ফ্ল্যাট পাবে : প্রধানমন্ত্রী একাদশে ভর্তিকৃতদের অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে - dainik shiksha একাদশে ভর্তিকৃতদের অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে যেভাবে এইচএসসির ফল সংগ্রহ করবে প্রতিষ্ঠানগুলো - dainik shiksha যেভাবে এইচএসসির ফল সংগ্রহ করবে প্রতিষ্ঠানগুলো স্কুল-কলেজ খোলা রেখে বন্যার্তদের আশ্রয় দেয়ার নির্দেশ - dainik shiksha স্কুল-কলেজ খোলা রেখে বন্যার্তদের আশ্রয় দেয়ার নির্দেশ অনার্স ১ম বর্ষ পরীক্ষার ফরম পূরণের সময় বাড়লো - dainik shiksha অনার্স ১ম বর্ষ পরীক্ষার ফরম পূরণের সময় বাড়লো ঢাবির ভর্তির আবেদন শুরু ৫ আগস্ট, পরীক্ষা ১৩ সেপ্টেম্বর - dainik shiksha ঢাবির ভর্তির আবেদন শুরু ৫ আগস্ট, পরীক্ষা ১৩ সেপ্টেম্বর শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website