আমাদের সঙ্গে থাকতে দৈনিকশিক্ষাডটকম ফেসবুক পেজে লাইক দিন।


প্রাথমিক শিক্ষকদের বদলি নীতিমালায় পরিবর্তন আসছে

সাঈদ হোসেন | নভেম্বর ১৫, ২০১৭ | বদলির অাদেশ

সরকারি প্রাথমিক শিক্ষকদের বদলি নীতিমালা সংশোধনের লক্ষ্যে একটি খসড়া তালিকা প্রস্তুত করেছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। এতে বর্তমান বদলি নীতিমালায় থাকা একাধিক বিষয় বাদ ও পরিবর্তনের প্রস্তাব রাখা হয়েছে। এ খসড়া নীতিমালার ওপর মতামত ও পরামর্শ সংগ্রহের জন্য ১৫ দিন সময় দিয়ে নীতিমালাটি প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

এসব কর্মকর্তাদের মতামতের ভিত্তিতে খসড়া নীতিমালাটি চূড়ান্ত করা হবে বলে অধিদপ্তরের একাধিক সূত্র দৈনিক শিক্ষাডটকমকে নিশ্চিত করেছে।
গত ২৬শে অক্টোবর প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে অনুষ্ঠিত মাসিক সমন্বয় সভায় খসড়া নীতিমালা চূড়ান্তকরণের লক্ষ্যে মতামত ও পরামর্শের বিষয়টির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় জনস্বার্থে যে কোন শিক্ষককে যে যেকোন সময় জনস্বার্থে বদলির নিয়মটি বিলুপ্তির প্রস্তাব রাখা হয়েছে নতুন এ খসড়া নীতিমালায়।
এছাড়া জাতীয়করণকৃত শিক্ষকদের মধ্যে যারা নিজ উপজেলায়র বাইরে নিয়োগ পেয়েছেন তাদের নিজ উপজেলা বা থানায় বদলি হতে চাইলে বদলির সুযোগ ছিল না। নতুন এ খসড়া বাস্তবায়ন হলে তারা বদলি হতে পারবেন।

কোন শিক্ষকের বৈবাহিক সূত্রে যদি স্বামী বা স্ত্রীর বাড়ি জেলা সদর উপজেলায় হয় তাহলে তিনি সেখানে চাইলে বদলি হতে পারবেন মর্মে প্রস্তাব রাখা হয় যার আগে কোন সুযোগ ছিল না।

নতুন এ খসড়া অনুযায়ী দুর্গম এলাকার শিক্ষকদের জন্য সুখবর রয়েছে। কোন শিক্ষক দুর্গম এলাকায় যেমন হাওড়-বাওড়, চর কিংবা বিচ্ছিন্ন দ্বীপ অঞ্চলের একই বিদ্যালয়ে ৫ বছর কর্মরত থাকলে (যা পুরাতন নীতিমালা অনুযায়ী ছিল ১০ বছর) ওই শিক্ষককে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে শূন্যপদ থাকা সাপেক্ষে একই উপজেলার কোন সুবিধাজনক বিদ্যালয়ে বদলি করা যাবে নতুন নীতিমালা অনুযায়ী। তবে এক্ষেত্রে বাওড় শব্দটি বাতিলেরও প্রস্তাব রাখা হয়।

এরকম নীতিমালার আরও অনেক বিষয়ে সংশোধনী আনার প্রস্তাব রাখা হয়েছে।

 

খসড়া নীতিমালাটি দেখেতে এখানে ক্লিক করুন

মন্তব্যঃ ২৬টি
  1. এস, এম, সাইফুল ইসলাম (সহকারী শিক্ষক) says:

    দেশের প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষক সহ সকল সরকারি বেতনভুক্ত কর্মচারী-কর্মকর্তাদের বাধ্যতামূলক সর্বোচ্চ দুই বছর পরপর নিজ জেলার বাইরে অবশ্যই বদলি করা উচিত। তাহলে তার নিজ বাড়ির ছাগল, গরু, হাঁস, মুরগি, গাছ-গাছালি, জমি, ব্যাবসা-বাণিজ্যের প্রতি ভালোবাসা ত্যাগ করে নিজ কাজে মন দিবে বলে মনে করি। ধন্যবাদ সকলকে।

    • swopon.shialy,Rupsha,khulona. says:

      স্বপন বিশ্বাস, সহকারি শিক্ষক ,শিয়ালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, রূপসা, খুলনা। সাইফুল ইসলাম স্যারকে ধন্যবাদ । আপনি আরও কিছু মন্তব্য লিখুন ।

  2. মো: আতাউর রহমান মন্ডল, প্রভাষক, বালানগর কামিল মাদরাাসা, উপজেলা: বাগমারা, রাজশাহী says:

    ধন্যবাদ

  3. আলহাজ্ব আবিয়ার রহমান, সাতক্ষীরা। says:

    বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক কর্মচারিদের বদলির ব্যাপারটি শিক্ষা নীতি অনুযায়ী কার্যকর দেখতে চাই।

  4. sohrab hossain says:

    m p o ভুক্ত শিঃদের বদলির ব্যাবস্থা করুন

  5. Jaman says:

    একজন শিক্ষক এক প্রতিষ্ঠানে একবারের বেশি এবং তিন বছরের কর্মরত না রাখলে কিছুটা হলেও শিক্ষার মান ভাল হতো। বর্তমানে শিক্ষকেরা শিখায় না শুধু পড়ায়, ফলে শিক্ষার্থীরা দূর্বল হয়ে পড়ছে।

  6. দ্বীপক চন্দ্র সরকার,প্রভাষক-জীববিজ্ঞান। says:

    সাইফুল ইসলাম স্যারকে ধন্যবাদ,আর কি কি মজার কথা জানেনে দয়াকরে লিখবেন,

  7. এনামুল says:

    জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এর নীতিমালার সাথে মিল রেখে স্বামীর কর্মস্থলের নিকটবর্তী স্থানে স্ত্রীর বদলীর নিয়ম থাকা উচিত।

  8. মো আবদুর রহিম says:

    At First Head Teacher কে বদলি করলে সবচেয়ে ভালো হবে ৷কারন বিভিনন সকুলের বিভিনন অভিগগতা শিক্ষাথী ও শিক্ষক সহ বিভিনন পরিবেশের অভিগগতা পতিষঠান সহ সাবিক সুফল বয়ে অানবে ৷তার পর বাকী শিক্ষকদের ধাপে ধাপে বদলি করা যেতে পারে ৷

  9. এস এম কামাল উদ্দীন ।সহকারী শিক্ষক, বাগমারা মাধ্যমিক বিদ্যালয় ।বাগেরহাট সদর । says:

    বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক কর্মচারিদের বদলির ব্যাপারটি শিক্ষা নীতি অনুযায়ী কার্যকর দেখতে চাই।

  10. মো:জিয়াউর রহমান(সহকারী শিক্ষক গিরিশ নগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়,তিতুদহ,চুয়াডাঙ্গা) says:

    ধন্যবাদ

  11. মোঃ আবু হাসান সহকারী অধ্যাপক, অধ্যক্ষ আবুল হোসেন কলেজ উল্লাপাড়া, সিরাজগঞ্জ। says:

    সরকারী বেসরকারী ক্যাডার নন ক্যাডার সকল বৈষম্য দুর করে এক দেশ এক শিক্ষা নীতি চাই।কেউ বাড়ী ভাড়া পাবে কেউ পাটি ভাড়া পাবে কেউ এক প্রতিষ্ঠানে চিরস্থায়ীভাবে থেকে গরু ছাগল লালন পালনের ফাকে ছাত্র পড়াবে, এভাবে শিক্ষার মান উন্নয়নের সপ্ন কার্যত ব্যর্থ।

  12. Shirazul islam says:

    বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক কর্মচারীরা জড় পদার্থ না জীব কিছুই তো বোঝা যায় না।

  13. মোঃ মিলন হোসাইন says:

    স্বামীর কর্মস্থলের নিকটবর্তী স্থানে স্ত্রীর বদলীর নিয়ম থাকা উচিত। একই সাথে জেলা এবং উপজেলা শিক্ষা অফিসগুলো যেন বদলীকে কেন্দ্রকরে শিক্ষক হয়রানি এবং ঘুষ বানিজ্যে মেতে না ওঠে সে বিষয়ের প্রতি কঠোর নজরদারি রাখার অনুরোধ জানাচ্ছি৷

  14. লিমন says:

    Non-govt. Teacher দের Transfer system থাকা উচিত যেহেতু সরকারী ভাবে নিয়ন্ত্রন করা হয় এবং সরকারের অন্য সব সরকারী Organization এ Transfer system আছে, তাহলে শিক্ষার মান ভাল হবে এবং এলাকার প্রভাব দেখানোর সুযোগ থাকবে না, সেই সংগে সভাপতি/কমিটি এর মাতবুরি চিরতরে বন্ধ করা উচিত।

  15. মোঃ সাদিকুল ইসলাম (B.Sc) লাজৈর ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসা। ইলিয়টগঞ্জ,মুরাদনগর,কুমিল্লা। says:

    বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারীদের বদলির আইন চালু করা হোক। এতে শিক্ষার উন্নতি হবে বলে আশা করি।

  16. জাহাঙ্গীর আকন says:

    কচিংবানিজ্য থাকবেনা

  17. মুহাম্মদ শোয়াইব says:

    বদলী বাণিজ্য তে টাকা নগদ টাকার ছড়াছড়ি। বদলী বাণিজ্যে এনবিআর ট্যাক্স আদায় করলে সরকারের রাজস্ব আদায় বৃদ্ধি পাবে বলে আশ করি। মুসলমানদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান কুরবানির ঈদ বাজারে যেমন নগদ টাকার ছড়াছড়ি তেমনি বদলী বাণিজ্যেও নগদ টাকার ছড়াছড়ি। যেহেতু কুরবানির ঈদের বাজারে এন.বিআর কর্তৃপক্ষ রাজস্ব আদায়ের জন্য লোক নিয়োগ প্রদান সেক্ষেত্রে প্রত্যেক উপজেলার জানুয়ারি-মার্চ মাস পর্যন্ত তিন মাসের জন্য এন.বিআর কর্তৃপক্ষ লোক নিয়োগ দিতে পারে বলে আমি মনে করি।

  18. নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক says:

    সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সমূহে আমরা সহকারি শিক্ষক হিসেবে কর্মরত আছি। প্রাক-প্রাথমিক পদ সৃষ্টি করে আমাদেরকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। চার বছর অতিবাহিত হল আমরা বদলির সুযোগ পাচ্ছি না। ব্যক্তিগতভাবে আমি বলছি, আমার বাড়ি থেকে স্কুলের দূরত্ব প্রায় ২৫ কি.মি.। আবার যোগাযোগ ব্যবস্থা ভাল না। আমার মত আরও বহু শিক্ষক রয়েছেন যারা এ সমস্যায় আছেন। দৈনিক শিক্ষার মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট বিনীত আবেদন করছি, আমাদেরকে রাজস্ব খাতে স্থানান্তরিত করে বদলি জনিত সকলপ্রকার বাধা দূর করবেন। প্রয়োজনে নব্য সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সমূহে নতুন পদ সৃষ্টি করে আমাদের বদলির সুযোগ করে দিন।

  19. M.Salim Reza says:

    প্রাক-প্রাথমিক সহকারি শিক্ষকদের বদলি জনিত সকলপ্রকার বাধা দূর করুন।

  20. সাইফুল ইসলাম says:

    আমার স্ত্রি একজন প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষক তার চাকরির চার বছর হলো অথচ সে এখন পর্যন্ত তার স্বামীর বাড়ির স্থায়ী ঠিকানায় বদলি হতে পারছেনা বিষয়টা খুব অমানবিক।আমার কাছে মনে হয় প্রাক-প্রাথমিকের আন্ত:জেলা বদলির সুযোগ করে দেয়া উচিত।

  21. ছুমাইয়া খাতুন- সহকারি শিক্ষিকা ইলাশপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,আদর্শ সদর কুমিল্লা। says:

    আমি পেনেলে নিয়োগ প্রাপ্ত একজন সহকারি শিক্ষিকা।আমাদের নিয়োগের নিয়ম অনুযায়ী আমাকে সদ্য জাতীয়করন কৃত প্রাথমিক বিদ্যলয়ে নিয়োগ দেয়া হয়েছে যা আমার বর্তমান ঠিকানা থেকে প্রায় ১৮ কি.মি দুরে অবস্থিত। অামাকে একই উপজেলার এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে যেতে হয় ৩ বছরের কন্যা সন্তানকে নিয়ে যা আমার জন্য খুবই কষ্টসাধ্য।আমার নিয়োগের তারিখ ৯/১০/২০১৬ আমি কি বদলির জন্য আবেদন করতে পারবো?আর যদি পারি তাহলে কিভাবে?

    • আব্দুল আহাদ says:

      আমার এলাকায় আমি যা দেখছি- একই প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক-শিক্ষিকা দীর্ঘদিন একই বিদ্যালয়ে কর্মরত থাকতে থাকতে তারা বিদ্যালয়/প্রতিষ্ঠানকে ব্যক্বিগত সম্পত্তি রূপে গণ্য করে। এতে করে শিক্ষার মান লঙ্ঘিত হচ্ছে এবং ব্যাপকভাবে অনিয়ম করার করার সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়েছে। এ সমস্যা সমাধানের জন্য 2/3 বছর পরপর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের পোষ্টিং করা আবশ্যক বলে আমি মনে করি। তাই যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদন, বিষয়টি জাতীয় স্বার্থে বিবেচনা করুন।

  22. রাকিব সরদার says:

    প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক বদলীর নীতিমালর বাস্তবায়ন করা হোক।স্ত্রী স্বামী র স্থায়ী ঠিকানায় আসতে এত জটিলতা কিসের জন্য?

  23. রোজি আক্তার: প্রাক প্রাথমিক শিক্ষিকা says:

    বিবাহিতা নারিদের জন্য স্বামীর কর্মস্থলে/ শ্বশুরবাড়ির ঠিকানায় বদলির নীতিমালা জরুরি। বিশেষ করে জেলা ট্রান্সফার।
    আমি যেমন চট্টগ্রামে কর্মরত আমার শ্বশুরবাড়ি কক্সবাজার।

আপনার মন্তব্য দিন