বর্ষায় গলা জল পেরিয়ে স্কুল যান শিক্ষিকা, ১১ বছর কামাই নেই - ভারতের শিক্ষা - দৈনিকশিক্ষা


বর্ষায় গলা জল পেরিয়ে স্কুল যান শিক্ষিকা, ১১ বছর কামাই নেই

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

কর্মরত সব মানুষকেই জীবনে কখনও না কখনও এক-আধ দিন ছুটি নিতে হয়। কিন্তু এমনও এক মহিলা আছেন যিনি গত ১১ বছরে অতিরিক্ত একটিও ছুটি নেননি। তবে চমক এখানে নয়, এই ১১টি বর্ষাকালে তাঁকে প্রতিদিন এক গলা জল পেরিয়ে যেতে হয় কর্মস্থলে।

ওড়িশার রথিয়াপাল প্রাথমিক স্কুলে শিক্ষিকা বিনোদিনী সামাল। ২০০৮ খ্রিষ্টাব্দে এই স্কুলে যোগ দেন। সেই থেকে সরকারি ছুটি ছাড়া প্রতিদিন স্কুলে উপস্থিত থেকেছেন তিনি। যাতায়াতের পথে পড়ে সাপুয়া নদী। বর্ষাকালে বেশ কয়েক ফুট বেড়ে যায় এর জল। তাই বর্ষাকালে তাঁকে সাপুয়া নদীর এক-গলা জল পেরিয়ে স্কুলে যান বিনোদিনী। আর তাঁর এই গলা জল পেরিয়ে স্কুলে যাওয়ার ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন। সেই ছবি ভাইরাল হয়ে যায়। রোববার (১৫ সেপ্টেম্বর) আনন্দবাজার পত্রিকায় প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা যায়।

সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে সেই ছবি নজরে আসে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধানের। শিক্ষিকা বিনোদিনীর এই দায়বদ্ধতার প্রশংসা করেছেন তিনি। এই ছবিগুলি ভাইরাল হওয়ার পর জেলা প্রশাসন প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, দ্রুত ওই নদীর উপর একটি সেতু তৈরি করে দেয়া হবে। যাতে ওই শিক্ষিকাকে বর্ষাকালে আর জল পেরিয়ে স্কুলে যেতে না হয়।

বিনোদিনীর ঘটনা জানার পর হিন্দোলের বিধায়ক বলেন, শিক্ষিকার এই দায়বদ্ধতাকে সেলাম। তিনিও জানিয়েছেন দ্রুত এই সেতু নির্মাণের কাজ হবে। গত বছর মার্চেই এই সেতু নির্মাণের জন্য ২ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে। কিন্তু বর্ষা এসে যাওয়ায় কাজ শুরু করা সম্ভব হয়নি। বিজু সেতু যোজনার অন্তর্গত এই সেতু নির্মাণ প্রকল্পটি দ্রুত শেষ করা হবে।




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় ২১ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১ হাজার ১৬৬ - dainik shiksha করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় ২১ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১ হাজার ১৬৬ এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ ৩১ মে - dainik shiksha এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ ৩১ মে দাখিলের ফল পেতে প্রি-রেজিস্ট্রেশন যেভাবে - dainik shiksha দাখিলের ফল পেতে প্রি-রেজিস্ট্রেশন যেভাবে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website