বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবিতে আন্দোলনের হুমকি শিক্ষক মহাজোটের - সমিতি সংবাদ - Dainikshiksha


বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবিতে আন্দোলনের হুমকি শিক্ষক মহাজোটের

নিজস্ব প্রতিবেদক |

প্রধান শিক্ষকদের সাথে সহকারী শিক্ষকদের তিন ধাপ বেতন বৈষম্য দ্রুত নিরসন না হলে ফের কঠোর আন্দোলনে যাওয়ার হুমকি দিয়েছে বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক মহাজোট। শুক্রবার (৩১ আগস্ট) ঢাকার কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনে প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকদের দাবি আদায়ে আমরণ অনশনে সাফল্য ব্যর্থতা এবং ন্যায্য দাবি আদায়ে করণীয় আলোচনা সভায় শিক্ষক নেতারা এই হুমকি দেন। আগামি ১২ সেপ্টেম্বর   সংবাদ সম্মেলন করে  কর্মসূচির ঘোষণা করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয় এ সভায়। একই দাবিতে সহকারী শিক্ষকদের অপর একটি সংগঠনের সভা রাজধানীর মুক্তিভবনে অনুষ্ঠিত হয়।

নজরুল ইসলাম মিলনায়তনের সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক সমাজের ঢাকা মহানগর সভাপতি আব্দুর রহমান। সমিতির সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল কাদের জিলানীর সঞ্চালনায় এই সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

সভায় জানানো হয়,বৃহস্পতিবার (৩০ আগস্ট) মহাজোট নেতারা  প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমানের সাক্ষাত করেন। এসময় মন্ত্রী বলেন, প্রধান শিক্ষকদের সাথে সহকারী শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিরসন সংক্রান্ত প্রস্তাবনা আমাদের কাছে অধিদপ্তর থেকে এসেছে। আগামি জাতীয় নির্বাচনের আগে সহকারী শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিরসনের নিশ্চয়তা আমি দিতে পারছি না। তবে আমরা বিষয়টি দেখবো।  গণশিক্ষামন্ত্রীর এ ধরনের আশ্বাসে  শিক্ষকরা হতাশা ব্যক্ত করেন।  

গণশিক্ষা মন্ত্রীর উদ্দেশ্যে সভায় মহাজোট নেতারা বলেন, গত ২৩ ডিসেম্বর থেকে ঢাকা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে চলমান আমরণ অনশনে এসে আপনি শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে বলেছিলেন, দাবি যৌক্তিক হলে সরকার দ্রুত মেনে নেবে। শিক্ষকরা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মন্ত্রীকে একদফা দাবি বাস্তবায়নে এক মাসের সময় দিয়ে আমরণ অনশণ সাময়িক স্থগিত করেন। কিন্তু দীর্ঘ ৮ মাস পার হয়ে গেলেও সহকারী শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিরসন হয়নি।

উল্লেখ্য যে, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের সাথে সহকারী শিক্ষকদের চরম বেতন বৈষম্য দেখা দেওয়ায় সহকারী শিক্ষকরা গত ৪ বছর ধরে আন্দোলন করে আসছে। গত ২৩ ডিসেম্বর ২০১৭ খ্রিস্টাব্দে সহকারী শিক্ষকরা প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের কেবল ই পরের গ্রেডে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকদের বেতন স্কেল নির্ধারণের দাবিতে ঢাকা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আমরণ অনশনের ডাক দেয়। 

অনশনের তৃতীয় দিন ২৫ ডিসেম্বর বিকেলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার এমপি আন্দোলনরত শিক্ষকদের সাথে আলোচনায় বসেন এবং মন্ত্রী, সচিব এবং প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের ডিজি কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে উপস্থিত হয়ে শিক্ষকদের দাবি যৌক্তিক হলে দ্রুত মেনে নিবেন বলে আশ্বাস প্রদান করলে শিক্ষকরা ১ মাসের মধ্যে দাবি বাস্তবায়নের শর্তে আমরণ অনশন সাময়িক স্থগিত করেন। 

সভায় সিদ্ধান্ত হয়, সহকারী শিক্ষক মহাজোট নেতা আব্দুল হক, তপন কুমার মন্ডল এবং আব্দুল খালেক প্রধান শিক্ষক পদে পদোন্নতি (চলতি দায়িত্ব) পাওয়ায় তাদেরকে সহকারী শিক্ষক মহাজোট থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। আরেক শিক্ষক নেতা নাসরিন সুলতানা চাকরি থেকে স্বেচ্ছায় অব্যাহতি নেওয়ায় তাকেও সহকারী শিক্ষক মহাজোট থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

সভায় দেন, সহকারী শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রীয় সভাপতি মোহাম্মদ শামছুদ্দীন মাসুদ, সহকারী শিক্ষক সমাজের সভাপতি আনিছুর রহমান, সহকারী শিক্ষক ফ্রন্টের সভাপতি ইউএস খালেদা, সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় সমিতির সভাপতি জাহিদুর রহমান বিশ্বাস, সহকারী শিক্ষক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হক, সহকারী শিক্ষক সমাজের সাধারণ সম্পাদক নূরে আলম সিদ্দিকী রবিউল, সহকারী শিক্ষক ফ্রন্ট এর সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হোসেন, সহকারী শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, সহকারী শিক্ষক সমিতির সহ-সভাপতি গোফরান মোস্তফা খান, শিক্ষক নেতা গাজী সালাউদ্দিন, সুনিল দেব নাথ, ফিরোজ আলম, লুৎফর রহমান শামীম, জসীম উদ্দিন, শিশির কীর্তনিয়া, ইলিয়াস মিয়া, হালিম সরকার, ইউনুস প্রমুখ।

 




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন পেল স্বতন্ত্র ইবতেদায়ির জনবল কাঠামো নীতিমালা - dainik shiksha প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন পেল স্বতন্ত্র ইবতেদায়ির জনবল কাঠামো নীতিমালা আলিমের নম্বর বণ্টন প্রকাশ - dainik shiksha আলিমের নম্বর বণ্টন প্রকাশ এমপিওভুক্ত হচ্ছেন স্কুল-কলেজের ৯০৯ শিক্ষক - dainik shiksha এমপিওভুক্ত হচ্ছেন স্কুল-কলেজের ৯০৯ শিক্ষক সরকারি হল আরও ৪৩ প্রতিষ্ঠান - dainik shiksha সরকারি হল আরও ৪৩ প্রতিষ্ঠান পদোন্নতি পাচ্ছেন সরকারি হাইস্কুলের সাড়ে পাঁচ হাজার শিক্ষক - dainik shiksha পদোন্নতি পাচ্ছেন সরকারি হাইস্কুলের সাড়ে পাঁচ হাজার শিক্ষক বিশেষ মঞ্জুরীর টাকার আবেদন করা যাবে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত - dainik shiksha বিশেষ মঞ্জুরীর টাকার আবেদন করা যাবে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত টেস্টে ফেল করলে পাবলিক পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে না - dainik shiksha টেস্টে ফেল করলে পাবলিক পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে না শূন্যপদের চাহিদা পাঠানোর সময় ফের বাড়ল - dainik shiksha শূন্যপদের চাহিদা পাঠানোর সময় ফের বাড়ল দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website