মাদরাসাছাত্র হত্যার দায়ে ৩ যুবকের আটকাদেশ - মাদরাসা - Dainikshiksha


মাদরাসাছাত্র হত্যার দায়ে ৩ যুবকের আটকাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক |

নাটোরের মাদরাসাছাত্র তানভির আহম্মেদ (১১) হত্যা ও মরদেহ গুম করার দায়ে তিন যুবককে বিভিন্ন মেয়াদে আটক করার আদেশ দিয়েছেন আদালত। বুধবার (১০ জুলাই) দুপুরে নাটোর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ মাইনুল হক এ আদেশ দেন। এসময় অভিযুক্তরা আদালতে উপস্থিত ছিল।

পরে আইনি প্রক্রিয়া শেষে দুজনকে নাটোর জেলা কারাগারে (বয়স ১৮ বছর পূর্ণ হওয়ায়) ও একজনকে যশোরের শিশু শোধনাগারে (বয়স ১৮ বছর পূর্ণ না হওয়ায়) পাঠানো হয়েছে। 

নিহত তানভির আহম্মদ শহরের উত্তরবড় গাছা (হাফরাস্তা) এলাকার সাইফুল ইসলাম তুষারের ছেলে। সে শহরের আলাইপুর এলাকার আশরাফুল উলুম হাফেজিয়া মাদরাসার হেফজ বিভাগের ছাত্র ছিল।

আটকাদেশ প্রাপ্তরা হলো, সিংড়ার জোড়মল্লিকা গ্রামের মুক্তার হোসেনের ছেলে হুমায়িদ হোসেন, বাগাতিপাড়া উপজেলার নওপাড়া গ্রামের বাবলু হাসানের ছেলে বায়েজিদ হাসান ও নাটোর শহরের কালুর মোড় এলাকার আব্দুর রহিমের ছেলে নাঈম। এদের মধ্যে হুমায়িদ হোসেন ও বায়েজিদ হাসানকে ৩০২ ধারায় ১০ বছর, ৩৮৭ ধারায় ৫ বছর ও ২০১ ধারায় ৩ বছর করে আটকাদেশ দেওয়া হলেও তারা ১০ বছর করে আটকাদেশ ভোগ করবে। আর নাঈমকে ৩৮৭ ধারায় ৫ বছর ও ২০১ ধারায় ৩ বছর করে আটকাদেশ দেওয়া হলেও সে ৫ বছর আটকাদেশ ভোগ করবে।

নাটোর জজ কোর্টের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটর (বিশেষ পিপি) অ্যাডভোকেট এ কে এম শাহজাহান কবির এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, ২০১৫ খ্রিষ্টাব্দের ২৫ আগস্ট বিকেলে মাদরাসা থেকে নিখোঁজ হয় তানভির আহম্মেদ। বিষয়টি জানার পর আত্মীয় স্বজন বিভিন্নস্থানে খোঁজাখুজি করতে থাকেন। কিন্তু কোথাও তার সন্ধান না পেয়ে বাবা সাইফুল ইসলাম তুষার ২৬ আগস্ট সন্ধ্যার দিকে নাটোর সদর থানায় সাধারণ ডায়রি করেন এবং র‍্যাবকেও বিষয়টি অবহিত করেন। এ অবস্থায় পুলিশ ও র‍্যাব তানভীরকে উদ্ধারে অনুসন্ধানে নামেন।

একপর্যায়ে র‍্যাবের একটি অপারেশন দল মোবাইল ফোনের কললিস্টের সূত্র ধরে বায়েজিদ, হুমায়িদ ও নাঈম নামে তিন কিশোরকে আটক করে। তারা র‍্যাবের কাছে তানভিরকে অপহরণ করে হত্যার দায় স্বীকার করে। পরে তাদের দেওয়া তথ্যমতে র‍্যাব সদস্যরা ১ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টার দিকে ওই মাদ্রাসার পেছনে একটি সেপটিক ট্যাংক থেকে তানভীরের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করে। 

এ ঘটনায় নিহত তানভীরের বাবা সাইফুল ইসলাম বাদী হয়ে ওইদিন সন্ধ্যার দিকে নাটোর সদর থানায় ওই তিন কিশোরকে অভিযুক্ত করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলাটি তৎকালীন উপ পরিদর্শক (এসআই) সুকমল দেবনাথ তদন্ত শেষে একই বছরের ২৫ অক্টোবর আদালতে দোষীপত্র দাখিল করেন। মামলায় ১৪ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ ও তথ্য প্রমাণ শেষে বিচারক এ আদেশ দেন। 




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
ছেলেধরা গুজব রোধে পুলিশের সব ইউনিটকে সতর্ক থাকার নির্দেশ - dainik shiksha ছেলেধরা গুজব রোধে পুলিশের সব ইউনিটকে সতর্ক থাকার নির্দেশ ডেঙ্গু প্রতিরোধে ঢাকার দুই সিটির প্রতিবেদনে সন্তুষ্ট নয় হাইকোর্ট, দুই প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে তলব - dainik shiksha ডেঙ্গু প্রতিরোধে ঢাকার দুই সিটির প্রতিবেদনে সন্তুষ্ট নয় হাইকোর্ট, দুই প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে তলব একাদশে ভর্তিকৃতদের তালিকা নিশ্চায়ন ২৫ জুলাইয়ের মধ্যে - dainik shiksha একাদশে ভর্তিকৃতদের তালিকা নিশ্চায়ন ২৫ জুলাইয়ের মধ্যে এমপিওভুক্ত হচ্ছেন ৫ হাজার ২০৬ শিক্ষক - dainik shiksha এমপিওভুক্ত হচ্ছেন ৫ হাজার ২০৬ শিক্ষক স্কুলের জমি বেচে দিলেন সভাপতি - dainik shiksha স্কুলের জমি বেচে দিলেন সভাপতি ভিকারুননিসার ১৪ শিক্ষকের নিয়োগ বাতিল হচ্ছে - dainik shiksha ভিকারুননিসার ১৪ শিক্ষকের নিয়োগ বাতিল হচ্ছে ‘শিক্ষিত’ পরিচালনা পর্ষদ চায় শিক্ষা বোর্ড - dainik shiksha ‘শিক্ষিত’ পরিচালনা পর্ষদ চায় শিক্ষা বোর্ড বিএড স্কেল পাচ্ছেন ২৩৬ শিক্ষক - dainik shiksha বিএড স্কেল পাচ্ছেন ২৩৬ শিক্ষক ভর্তি কোচিং নিয়ে যা বললেন শিক্ষামন্ত্রী (ভিডিও) - dainik shiksha ভর্তি কোচিং নিয়ে যা বললেন শিক্ষামন্ত্রী (ভিডিও) ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধনের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার প্রস্তুতি - dainik shiksha ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধনের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার প্রস্তুতি শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website