মৃত শিক্ষককেও বদলি করল মন্ত্রণালয় - বিবিধ - দৈনিকশিক্ষা


মৃত শিক্ষককেও বদলি করল মন্ত্রণালয়

নিজস্ব প্রতিবেদক |

মৃত শিক্ষককেও বদলি করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ১৭ সেপ্টেম্বর সরকারি কলেজ-১ শাখা থেকে এ আদেশ জারি করা হয়।  সরকারি কলেজ শাখায় বিসিএস শিক্ষা ক্যাডার থেকে উপসচিব হওয়া শ্রীকান্ত চন্দ্র কর্মরত রয়েছেন। 

জানা যায়, শুধু মৃত শিক্ষককে বদলি নয়, নিয়মে না থাকলেও প্রেষণে এবং অবসর প্রস্তুতিমূলক ছুটিতে (পিআরএল) থাকা শিক্ষককেও বদলির আদেশ জারি করা হয়েছে একই স্মারকে।  এ নিয়ে তোলপাড় চলছে শিক্ষা প্রশাসনে। 

সরকারি কলেজের শিক্ষকরা জানান, বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারের ২৭তম ব্যাচের কর্মকর্তা সামছ আরা জাহান রাজধানীর ইডেন সরকারি মহিলা কলেজে উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগের সহকারি অধ্যাপক ছিলেন। সেখানে চাকরিরত অবস্থাতেই তিনি ক্যান্সারে আক্রান্ত হন। পরে তাকে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরে (মাউশি) সংযুক্তি দেওয়া হয়। চলতি বছরের ১২ মে তিনি মারা যান। তাকেই গতকাল ১৭ সেপ্টেম্বর ফরিদপুরের সদরপুর সরকারি কলেজে সহকারী অধ্যাপক (উদ্ভিদবিদ্যা) পদে বদলি করা হয়েছে।

 জানা যায়, সামছ আরা জাহানের স্বামী একজন বিসিএস অডিট ক্যাডারের কর্মকর্তা। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, 'ক্যান্সারে ভুগে আমার স্ত্রী গত ১২ মে মারা যান। তাকে বদলির বিষয়টি বিস্ময়কর। কারণ নিয়মমাফিক আমি স্ত্রীর মৃত্যুর বিষয়টি মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরে লিখিতভাবে জানিয়েছি। মাউশি অধিদপ্তর থেকে গত ৬ জুলাই আমার স্ত্রীর এককালীন সুবিধা ইতিমধ্যে মঞ্জুর করা হয়েছে।'

সামছ আরা জাহানের প্রাপ্য পাওনা পরিশোধ সংক্রান্ত মাউশির সাধারণ প্রশাসন শাখার উপ-পরিচালক মো. রুহুল মমিনের স্বাক্ষরিত পত্রটিও দৈনিক শিক্ষার হাতে এসেছে। ১২ মে সামছ আরা জাহান মারা গেছেন মর্মে পরিষ্কার উল্লেখ রয়েছে সেখানে।

সামছ আরা জাহানসহ বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারের মোট ৫৭জন কর্মকর্তাকে একযোগে গতকাল বৃহস্পতিবার বদলি করা হয়। তাদের মধ্যে ১৩ জন অধ্যপক, ২৭ জন সহযোগী অধ্যাপক এবং ১৭ জন সহকারী অধ্যাপক রয়েছেন।

সামছ আরা জাহানের সঙ্গে একই স্মারকে বদলি করা হয়েছে সহকারি অধ্যাপক (ভূগোল) নিগার সুলতানা পারভীনকে (আইডি-১৩৬১৬)। ওএসডি থাকা এই কর্মকর্তাকে ফরিদপুরের সরকারি রাজেন্দ্র কলেজে সহকারী অধ্যাপক (ভুগোল) পদে বদলি করা হয়। জানা গেছে, এই কর্মকর্তা এরই মধ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে প্রেষণে পিএইচডি করার অনুমতি পেয়েছেন। প্রাইম মিনিস্টার ফেলোশিপ নিয়ে তিনি অস্ট্রেলিয়ার একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি করার অনুমতি পান। এরই মধ্যে তার ভিসা হয়েছে এবং করোনার কারণে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে ফ্লাইট অ্যাভেইলেবল না থাকায় তিনি আটকা পড়েছেন। নিয়মানুযায়ী, প্রেষণ মঞ্জুর হওয়ায় তার বদলি হওয়ার কথা নয়। এরপরও তাকে বদলি করা হয়েছে।

একই দিন সরকারি কলেজ-২ শাখা থেকে নীলফামারি সরকারি কলেজের অধ্যাপক (বাংলা) পদে বদলি করা হয়েছে অধ্যাপক সৈয়দ মো. মোজাম্মেল হককে (আইডি-৮১০৬)। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এই শিক্ষক চলতি বছরের মার্চ মাসে অবসর প্রস্তুতিমূলক ছুটিতে (পিআরএল) গেছেন। পিআরএলে থাকা এই কর্মকর্তাকেও শিক্ষা মন্ত্রণালয় বদলি করেছে।  তিনি দৈনিক শিক্ষার কাছে বিষ্ময় প্রকাশ করেছেন। 

ভুতুরে এসব বদলি প্রসঙ্গে বক্তব্য জানতে চেষ্টা করেও উপ-সচিব শ্রীকান্ত কুমার চন্দকে পাওয়া যায়নি। 




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের আবেদন করবেন যেভাবে - dainik shiksha প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের আবেদন করবেন যেভাবে স্কুল শিক্ষার্থীদের প্রমোশন: সরকারের সিদ্ধান্ত জানা যাবে কাল - dainik shiksha স্কুল শিক্ষার্থীদের প্রমোশন: সরকারের সিদ্ধান্ত জানা যাবে কাল প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগের আবেদন শুরু ২৫ অক্টোবর - dainik shiksha প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগের আবেদন শুরু ২৫ অক্টোবর অনলাইনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার সিদ্ধান্ত বাতিল চায় ছাত্র ফ্রন্ট - dainik shiksha অনলাইনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার সিদ্ধান্ত বাতিল চায় ছাত্র ফ্রন্ট দাখিলের রেজিস্ট্রেশন নবায়ন শুরু - dainik shiksha দাখিলের রেজিস্ট্রেশন নবায়ন শুরু প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে প্রতারণা: আদালতে শিক্ষা ভবনের কর্মকর্তা - dainik shiksha প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে প্রতারণা: আদালতে শিক্ষা ভবনের কর্মকর্তা প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের নতুন ডিজি মনসুরুল আলম - dainik shiksha প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের নতুন ডিজি মনসুরুল আলম উচ্চমাধ্যমিকের উপবৃত্তি পেতে শিক্ষার্থীদের বিকাশ অ্যাকাউন্ট খোলার সময় বাড়লো - dainik shiksha উচ্চমাধ্যমিকের উপবৃত্তি পেতে শিক্ষার্থীদের বিকাশ অ্যাকাউন্ট খোলার সময় বাড়লো ইএফটির মাধ্যমে শিক্ষকদের বেতন দিতে কাজ চলছে - dainik shiksha ইএফটির মাধ্যমে শিক্ষকদের বেতন দিতে কাজ চলছে please click here to view dainikshiksha website