আমাদের সঙ্গে থাকতে দৈনিকশিক্ষাডটকম ফেসবুক পেজে লাইক দিন।


লাগাতার কর্মবিরতির ঘোষণা দিচ্ছেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকরা

নিজস্ব প্রতিবেদক | জানুয়ারি ২, ২০১৬ | ছাত্র-শিক্ষক রাজনীতি

বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপকদের একটি অংশকে সিনিয়র সচিবের সমমর্যাদা দেয়াসহ বিভিন্ন দাবিতে দেয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের আলটিমেটাম আজ শেষ হচ্ছে।

শুক্রবার পর্যন্ত শিক্ষকদের দাবি পূরণে দৃশ্যমান কোনো অগ্রগতি হয়নি। তাই পূর্ব ঘোষণা মতো আজ শনিবার পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের কেন্দ্রীয় সংগঠন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের সাধারণ সভা হচ্ছে।

ফেডারেশন সূত্র জানায়, দুপুর সাড়ে ১২টায় ঢাবিতে ওই সভা অনুষ্ঠিত হবে। বৈঠক শেষে আরেকটি আলটিমেটাম দেয়া হবে। একই সঙ্গে লাগাতার কর্মবিরতির দিনক্ষণও ঘোষণার চিন্তাভাবনা রয়েছে।

শিক্ষকদের দাবি-দাওয়া পূরণের অগ্রগতির বিষয়ে জানতে চাইলে শুক্রবার রাতে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা অর্থ মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে ধারাবাহিকভাবে এ বিষয়ে আলোচনা করে যাচ্ছি। চেষ্টা করছি। যে সমস্যা তৈরি হয়েছে তা থাকবে না বলে আশা করি।’

গত ২২ ডিসেম্বর বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেখান থেকে দাবি আদায়ের আন্দোলন সারা দেশে ছড়িয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। সে অনুযায়ী প্রত্যেক সমিতির কর্মসূচি ও সাধারণ শিক্ষকদের মতামতসহ নেতাদের আজ ফেডারেশনের বৈঠকে মিলিত হওয়ার কথা।

জানতে চাইলে ফেডারেশনের মহাসচিব অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামাল দৈনিকশিক্ষাকে বলেন, ‘একটা সুন্দর পে-স্কেল দেয়ার পরও লাখ লাখ শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী সন্তুষ্ট নন। এর পেছনে সরকারবিরোধী একটি অংশ কলকাঠি নাড়ছে। ওই অপশক্তির কারণে আমরা আজ রাজপথে নেমেছি। একই সঙ্গে ওই শক্তির সঙ্গে গা ভাসিয়ে দেয়ায় অর্থমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করছি। আমরা মনে করি, এই অর্থমন্ত্রী থাকলে এ সরকারের আরও ক্ষতি হবে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা সরকারকে আরও সাত দিন সময় দিতে চাই। তাই এখনই কর্মসূচিতে না যাওয়ার চিন্তাভাবনা আছে। তবে প্রয়োজনে নতুন আলটিমেটামের পর আমরা বিশ্ববিদ্যালয় কমপ্লিটলি শাটডাউন (পুরোপুরি বন্ধ) করার কর্মসূচিতে যাব।’

প্রত্যেক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতিকে ফেডারেশনের পক্ষ থেকে আলাদা কর্মসূচি নেয়ার ক্ষমতা দেয়ার পর ইতিমধ্যে বিভিন্ন সংগঠন আলাদা কর্মসূচি দিয়েছে।

গত ২৪ ডিসেম্বর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি সাধারণ সভা করেছে। চার ঘণ্টার ওই সভা থেকে অর্থমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করা হয়। এ ছাড়া উচ্চশিক্ষাকে সংকটের দিকে ঠেলে দেয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর এবং অষ্টম জাতীয় বেতন কমিশনের চেয়ারম্যান ড. ফরাসউদ্দিনের বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাব আনা হয়।

এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির কার্যকরী পরিষদের আরেক সভা থেকে দাবি মেনে নিতে সরকারকে এক সপ্তাহের আলটিমেটাম দেয়া হয়েছিল।


আপনার মন্তব্য দিন