আমাদের সঙ্গে থাকতে দৈনিকশিক্ষাডটকম ফেসবুক পেজে লাইক দিন।


শিক্ষকদের কোচিং বাণিজ্য বন্ধের নীতিমালা অনুসরণের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক | অক্টোবর ১২, ২০১৭ | বিবিধ

শিক্ষকদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোচিং বাণিজ্য বন্ধ নীতিমালা-২০১২  কঠোরভাবে অনুসরণ করতে নির্দেশ দিয়েছে  কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর। মঙ্গলবার(১০ই অক্টোবর) কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক ড. মোঃ নুরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক আদেশ থেকে এ তথ্য জানা যায়।

আদেশে বলা হয়েছে, কারিগরির বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এক শ্রেণির শিক্ষকদের কোচিং ও প্রাইভেট বাণিজ্য সম্পর্কিত নামে বেনামে কিছু অভিযোগ পাওয়া গেছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোচিং বাণিজ্য বন্ধ নীতিমালা-২০১২ তে সরকারি প্রতিষ্ঠানের কোন শিক্ষক কোচিং বাণিজ্যে জড়িত থাকলে তার বিরুদ্ধে সরকারি কর্মচারি বিধিমালা, ১৯৮৫ এর অধীনে অসদাচরণ হিসেবে গণ্য করে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের বিধান রয়েছে।

এ অবস্থায় অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা যাতে প্রাইভেট কোচিং বাণিজ্যের সাথে যুক্ত শিক্ষকদের কাছে জিম্মি হতে না পারে সে ব্যাপারে কোচিং বাণিজ্য বন্ধে প্রণীত নীতিমালা কঠোরভাবে বাস্তবায়নের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর তার অধীনে থাকা টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ এবং ভোকেশনাল টিচার্স ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষদের নির্দেশ দিয়েছে।

এছাড়াও সরকার সারাদেশে  কোচিংবাণিজ্য ও কোচিংবাজ শিক্ষকদের বিরুদ্ধে সাড়াঁশি অভিযান চালাচ্ছে।

মন্তব্যঃ ৩৫টি
  1. মো:সালাহ উদ্দিন।ফেনি। says:

    আপনার মন্তব্য
    খুব ভাল উদ্যেগ।

  2. Anisuzzaman says:

    প্রাইভেট এখন অতিরিক্ত পাঠদানের নাম করে অনেক প্রতিষ্ঠানে ছাত্রছাত্রীদের জিম্মি করে তাকে, এমন কি শারিরিক ও মানসিক নির্যাতন করা হয় বিশ্বেষ করে ইংরেজি এবং গনিত শিক্ষকবৃন্দ।

  3. মো : মিজানুর রহমান, Lecturer at bangla , দৌলতপুর বি.এম. কলেজ , মানকগনজ । says:

    অতি তারাতারি সকল ইসতরে কোিচং বাণিজজো বনধো করা হোক । নইলে দেশের সর’বোনাশ হয়ে যাবে ।

  4. suruth jaman sk says:

    আপনার মন্তব্যgood

  5. মোঃ জাকের হোসেন, উপাধ্যক্ষ, সেনবাগ ফাযিল মাদ্রাসা। says:

    জনাব মো : মিজানুর রহমান, Lecturer at bangla , দৌলতপুর বি.এম. কলেজ , মানকগনজ । :😨😨 পদবী সংশোধনী @ Lecturer in Bangla.

  6. মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান, ট্রেড ইন্সট্রাক্টর, কচাকাটা মডেল মহিলা টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ says:

    শুধু কারিগরি কেন সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কোচিং বানিজ্য বন্ধ করতে হবে। স্বীকৃতি প্রাপ্ত নন এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তি চাই।

  7. Badol chandro says:

    আপনার ৫:৫০ অপরাহ্ণ
    শুধু কারিগরি কেন সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কোচিং বানিজ্য বন্ধ করতে হবে। স্বীকৃতি প্রাপ্ত নন এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তি চাই।

  8. দ্বীপক চন্দ্র সরকার,প্রভাষক-জীববিজ্ঞান। says:

    উদ্যোগটি মহৎ,তবে শিক্ষকদের জীবনমান পরিবর্তনে সরকারের উদ্যোগ নেয়া আবশ্যক।

  9. Abul Kashem says:

    শহরে সকল অপকর্ম গ্রামে নয়

  10. zead hossain says:

    আমাদের দেশের শিক্ষার্থীরা গণিত এবং ইংরেজীতে অনেক দুর্বল তাই অন্য বিদ্যালয়ের দশ জন পড়ানোর শর্ত শিথিল করে নিজ বিদ্যালয়ের দশ জন পড়ানোর অনুমতি দানেরজন্য অনুরোধ জানাচ্ছি।

  11. মো: আবুল কাশেম says:

    আপনার মন্তব্যছাত্রছাত্রীদের জিম্মি করে ইংরেজি ও গনিতের শিক্ষকরা প্রতিষ্ঠানের ভিতরে প্রাইভেট বাণিজ্য চালাচ্ছে সে কি ব্যবস্থা নেয়া হবে কর্তৃপক্ষ বলবেন কি?

  12. ashrafur rahman(TUTUL) says:

    PROTHOMA DOCTOR DAR PRIVAT BONDHO HOK . TAR POR SIR DAR.

  13. আল-আমিন সুমন says:

    দূরে বসে শুধু হুকুম না করে, তদন্ত করে দেখুন, কোথায় কোচিং বাণিজ্য হচ্ছে।
    অনেক জায়গায় কোচিং অপরিহার্য, সেখানকার কোচিং বা প্রাইভেট বন্ধ করা ঠিক হবেনা।
    আচ্ছা, আপনারা কি জানেন? অনেক অভিভাবক বাচ্চাকে সময় দিতে পারেন না। তাই বাধ্য হয়ে সন্তানকে কোচিং বা প্রাইভেট দেন।

  14. kabir says:

    Obijog korar thikana prochar korun.automatically Dora porbe.

  15. মুহাম্মদ শাহ আলম says:

    মিজানুর রহমান সাহেব আপনার বাংলা বানানের যে অবস্থা তাতে আপনার কাছে যদি কোন ছাত্রছাত্রী ক্লাশ করে পরীক্ষা দেয় রেজাল্টের পরে অভিভাবক সহ আত্নহত্যা করবে। আপনাদের মতো অযোগ্য লোকদের কারনেই প্রাইভেট চালু আছে এবং থাকবে।

  16. মিরাজুল ইসলাম, ভোলা। says:

    কোচিং পড়ার নাম পরিবর্তন করে নতুন কৌশলে এখন অতিরিক্ত ক্লাশের নাম করে অনেক প্রতিষ্ঠানে ছাত্রছাত্রীদের জিম্মি করে থাকে, এমন কি শারিরিক ও মানসিক নির্যাতন করা হয় বিশ্বেষ করে ইংরেজি এবং গনিত শিক্ষকবৃন্দ। হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা। অথচ প্রতিটি স্কুলে সেকায়েপ কতৃক অতিরিক্ত শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া আছে সেখানে ইংরেজি এবং গনিত শিক্ষকরা বলেন অতিরিক্ত ক্লাশের কোন প্রয়োজন নাই।

  17. ছাইদুল মিয়া says:

    মোঃ জাকের হোসেন, আপনি চাইলে পড়ানোর চেষ্টা করে দেখতে পারেন। আপনি পান না তাই খান না।

  18. shamsul haque says:

    বাংলা আর ইংলিশ এক নয় ! তর্ক এ জেতার জন্য কত কি বলা যায় !!!!

  19. ‌মোঃ হা‌সিবুল ইসলাম says:

    আমার প্রশ্ন- ছাত্র-ছাত্রীরা কি মেধাশূণ্য হ‌চ্ছে? শিক্ষকগণ কি নির্ধা‌রিত সম‌য়ে শিখনফল অর্জন করা‌তে পার‌ছেন না? ক্লা‌সে নির্ধা‌রিত সম‌য়ে শিখনফল অর্জন না করা‌নোই হ‌চ্ছে প্রাই‌ভে‌টের দি‌কে ধা‌বিত করার অপ‌কৌশল।

  20. মো: রাব্বানী পারভেজ says:

    কোচিং চলবে।কোচিং ছাড়া জাতি উঠে দাড়াতে পারবেনা।খামাখা কোচিং নিয়ে মাথা না ঘামিয়ে দেশের উন্নয়নের জন্য কিছু করেন। ডাক্তাররা করে দেখননা।যত আইন সব শিক্ষকদের উপরে।এমন আইন করিয়েননা যা সিগারেটের আইনের মত হবে। ……… রানীশনকৈল,ঠাকুরগা।

  21. Mizan Karala School,Birol, Dinajpur says:

    At first teachers should be honest, devoted and well prepared or having lesson plan before going to class other wise all will go to dogs.

  22. Samonta says:

    ট্রেড শিক্ষকগণ এক ধরণের সিন্ডিকেট তৈরি করেছে, তাদের হাতের নম্বরের ভয় দেখিয়ে কোচিং বা ব্যাচে যেতে বাধ্য করছে।

  23. দিলরুবা আক্তার says:

    আপনার মন্তব্যঃ যত দোষ নন্দ ঘোষের, সবাই শিক্ষকদের পাছায় লাথি মারেন, একজন সহকারি শিক্ষকের বেতন শুরু ১২৫০০টাকা। তার ঘরভাড়া যদি ১০০০০টাকাও হয় হাতে থাকে ক’টাকা?৩০দিন সে খাবে কি,আর অসুস্থ হলে fbতে ভিক্ষা চাইতে হবে ইত্যাদি। অপরদিকে একজন ডাক্তার তার হসপিটাল রেখে অন্যত্র হাজার হাজার টাকা ভিজিট নিচ্ছে কিন্তু রোগ ধরতে পারেনা, তাদের নিয়ে কোন সমস্যা নেই।অথচ যারা এই ডাক্তার বানিয়েছে তাদেরই উপর খড়গ চলবে,দারুন সব যুক্তি তর্ক…

  24. মোঃরবিউল ইসলাম সহকারি শিক্ষক,সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।ডালিয়া , ডিমলা , নীলফামারী। says:

    কোচিং বানিজ্য একেবারে বন্ধ করা উচিত।কারণ ইহাতে স্কুলের শিক্ষকগন ছাত্র ছাত্রীদের স্কুল কলেজ ও মাদ্রাসায় পড়া শোনা একদমে করান না।

  25. Md.Islam miah.Badarer Nessa High School.Dagonbhuiyan.Feni. says:

    স্কুলে কোচিংকরার সুযোগ রাখায় প্রাইভেটকে ও ছাড়িয়ে গেছে। কিছু শিক্ষক এবং প্রধান শিক্ষক অনরিয়াম পাচ্ছে মোট অংন্ক। বিদ্যালয়ে কোচিং একেবারে বন্ধ করা হোক।

  26. এনামুল হক,ইউ আই আই সাতকানিয়া says:

    ধন্যবাদ মাননিয় ডিজি মহোদয়(করিগরি)।

  27. মোঃ হবিবর রহমান, প্রভাষক, বীরগঞ্জ ডিগ্রী কলেজ, দিনাজপুর। says:

    শিক্ষার্থীদের ক্লাসমূখী করার কৌশল গ্রহন করুন।

  28. আবদুল কাদির, সহকারী শিক্ষক, বিঝারী উপসী তারা প্রসন্ন উচ্চ বিদ্যালয় says:

    প্রাইভেট এখন অতিরিক্ত পাঠদানের নাম করে অনেক প্রতিষ্ঠানেই ছাত্র-ছাত্রীদেরকে পরীক্ষকার প্রবেশ পত্র দেওয়া হবে না, ব্যবহারিক পরীক্ষার নম্বর কম দিব, ইত্যাদি কথা বলে কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রীদের একপ্রকার জিম্মি করে অতিরিক্ত ক্লাসের টাকা অনেক মেহনত করে আদায় করা হয়। প্রাইভেটের টাকা আদায় করার জন্য যে মেহনত শিক্ষকগণ করেন তার সিকি ভাগও যদি ক্লাসে করতেন তাহলে শিক্ষার্থীরা অনেক কিছু শিখত ও জানত। মাঝে মাঝে লজ্জা হয় নিজেকে শিক্ষক পরিচয় দিতে।

  29. আরেফিন says:

    নকল এর জনন চাকরি যাওয়া দরকার,,

  30. লিটন কুমার রায়, কলারোয়া says:

    সরকারের উদ্যোগকে স্বাগত জানাই। সরকার সব জায়গায় কোচিং বানিজ্য বন্ধ করতে পারলও হয়তো সাতক্ষীরা জেলার কলারোয়া থানার পানিকাউরিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের রমরমা কোচিং বানিজ্য বন্ধ করতে পারবেনা।শিক্ষরা ছাএ-ছাএীদের জিম্মি করে ভয় দেখিয়ে তাদের কে পরীক্ষার সময় প্রশ্নের উত্তর বলে দেওয়ার লোভ দেখিয়ে রমরমা কোচিং বানিজ্য চালিয়ে যাচ্ছে। কোচিং বানিজ্য চালানোর জন্য তারা এ পযন্ত সেকোয়েপ থেকে কোন শিক্ষক পযন্ত নেই নাই।

  31. Md Khalilur Rahman says:

    The students who possess roll number 90 to 100 out of 100 students are really weak in English and Mathematics need coaching, private and special care to pass the final exam to overcome illiteracy in Bangladesh.

  32. Jahid Biswas says:

    what will be happened of 40 lac educated unemployed people of Bd? Please write somethings about them .

  33. নৃশংকর says:

    কোচিং বানিজ্য বন্ধ করে বিকল্প ব্যবস্থা হিসাবে অতিরিক্ত ক্লাসের কথা বলা আছে। এবং অতিরিক্ত ক্লাসের টাকা প্রধানশিক্ষকদের আলাদা একাউন্টে জমা রাখার কথাও বলা আছে। দয়া করে প্রধানশিক্ষকদের একাউন্টে টাকা জমা না দিয়ে
    অন্য কোনো উপায়ে টাকা বন্টন করা যায় কিনা সেদিকে নজর দিলে ভাল হত বলে মনে করি। কারণ বানরের রুটি ভাগ করা গল্পটা আমাদের সবার জানা।

  34. অনাবিল রহমান says:

    প্রতিষ্ঠানের ভিতরে বিনা পুঁজিতে তথাকথিত “ডিটেনশন ক্লাশ” ব্যবসায়ীদের বিচার কে করবেন ?

আপনার মন্তব্য দিন