শিক্ষকদের জাল সনদ, শিক্ষার্থী পাচ্ছে না হাজী নাছির কলেজ - এমপিও - Dainikshiksha


শিক্ষকদের জাল সনদ, শিক্ষার্থী পাচ্ছে না হাজী নাছির কলেজ

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি |

শিক্ষকদের জাল সনদ, কাম্য শিক্ষাগত যোগ্যতা নেই। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তদন্তে এসব ধরা পড়ার পর এমপিও স্থগিত। আর সেই স্থগিত এমপিও ফিরে পেতে দালালদের মাধ্যমে তদবিরসহ নানা ফন্দিফিকিরে ব্যস্ত জাল সনদধারী শিক্ষকরা। এ অবস্থায় শিক্ষার্থী হারাচ্ছে এক সময়ের নামকরা এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি।

যশোর শিক্ষা বোর্ড ও কলেজসূত্রে জানা যায়, চলতি শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে বাণিজ্য শাখায় মাত্র ১১ জন ভর্তি হয়েছে। অথচ আসন সংখ্যা ১৫০। বিজ্ঞানে ৩৪ জন ভর্তি হয়েছে। মানবিকে ১৪৪ ও বিএম শাখায় ১৬৫ জন। বিএম শাখায় উপস্থিতিতে শতকরা ৪০ নম্বর আর তাই সারাদেশেই বিএম শাখায় ভর্তি বেশি। তবুও ২৫০ আসনের বিপরীতে ভর্তি ১৬৫ জন। অথচ চার বছর আগে এই কলেজে তিন হাজারের বেশি শিক্ষার্থী ছিল।

অভিভাবকরা দৈনিক শিক্ষাকে জানান, মন্ত্রণালয়ের তদন্ত হয় ২০১৩ খ্রিষ্টাব্দে। জাল সনদ ও কাম্য শিক্ষাগত যোগ্যতাবিহীন সাধারণ ও কারিগরি শাখায় মোট ১৪ জন শিক্ষকদের এমপিও স্থগিত হয় ২০১৫ খ্রিষ্টাব্দে। এরপর থেকেই শিক্ষকরা ব্যস্ত শিক্ষা ভবনের দালাল হারুন খান, রমজান ও কর্মচারী মিজানের সঙ্গে তদবিরে। এদিকে কলেজে পড়াশোনা লাটে উঠেছে।

শিক্ষা অধিদপ্তরের একজন কর্মকর্তা বলেন, কলেজটি অধ্যক্ষসহ তিনজন শিক্ষককে দেখা যায় মনিরামপুরের কয়েকজন দালালের সাথে শিক্ষা ভবনেরর বারান্দায় ঘুরঘুর করতে।

এমপিও হারানো কয়েকজন শিক্ষকের বিরুদ্ধে জামাত ও আহলে হাদিস সংশ্লিষ্টতার তদন্ত চলছে।

এলাকাবাসীর মতে, বাল্যবিবাহপ্রবণ ও শিক্ষা-দীক্ষায় পিছিয়ে পড়া কলোরোয়া এলাকার কোটিপতি ব্যবসায়ী ও শিক্ষানুরাগী এনাম হক তাঁর বাবার নামে কলেজটি প্রতিষ্ঠা করেন। প্রতিষ্ঠাতা ও দাতা সদস্যরা নিজেদের কোনো আত্মীয়-স্বজনকে এই কলেজে শিক্ষকতা বা অন্য কোনো পদে চাকরি দেননি।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদপ্তরের ২০১৩ খ্রিষ্টাব্দের আগস্ট মাসের তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয় অভিযুক্ত শিক্ষকরা ভুয়া ও জাল সনদ দেখিয়ে চাকরি লাভ ও এমপিওভু্ক্ত হন। এ ছাড়া মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের দুজন কর্মকর্তার তদন্তেও ধরা পড়েছে কলেজের অর্থ আত্মসাৎসহ নানা অনিয়ম।




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
কী আছে শিক্ষক গোকুল দাশের লাইব্রেরিতে, কেন বিক্রির বিজ্ঞাপন? - dainik shiksha কী আছে শিক্ষক গোকুল দাশের লাইব্রেরিতে, কেন বিক্রির বিজ্ঞাপন? ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধনের লিখিত পরীক্ষার ফল প্রস্তুত - dainik shiksha ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধনের লিখিত পরীক্ষার ফল প্রস্তুত এমপিওভুক্তির তালিকায় প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন - dainik shiksha এমপিওভুক্তির তালিকায় প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন বেতন বৈষম্য নিরসন দাবিতে প্রাথমিক শিক্ষকদের পূর্ণদিবস কর্মবিরতি পালন - dainik shiksha বেতন বৈষম্য নিরসন দাবিতে প্রাথমিক শিক্ষকদের পূর্ণদিবস কর্মবিরতি পালন ইন্টার্ন চিকিৎসকদের হোস্টেল থেকে ৫২০পিস ইয়াবা উদ্ধার - dainik shiksha ইন্টার্ন চিকিৎসকদের হোস্টেল থেকে ৫২০পিস ইয়াবা উদ্ধার বাবার কাছে লেখা শিক্ষা উপমন্ত্রীর বোনের শেষ চিঠি - dainik shiksha বাবার কাছে লেখা শিক্ষা উপমন্ত্রীর বোনের শেষ চিঠি পুলিশ যেভাবে আটকে দিল ননএমপিও শিক্ষকদের পদযাত্রা (ভিডিও) - dainik shiksha পুলিশ যেভাবে আটকে দিল ননএমপিও শিক্ষকদের পদযাত্রা (ভিডিও) ডিগ্রি ১ম বর্ষ পরীক্ষার ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত - dainik shiksha ডিগ্রি ১ম বর্ষ পরীক্ষার ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া বিশ্ববিদ্যালয় তদারকিতে কঠোর হতে ইউজিসিকে বললেন প্রধানমন্ত্রী - dainik shiksha বিশ্ববিদ্যালয় তদারকিতে কঠোর হতে ইউজিসিকে বললেন প্রধানমন্ত্রী please click here to view dainikshiksha website