সরকারিকরণের দাবিতে ৩ দিনের কর্মবিরতিতে যাচ্ছেন শিক্ষকরা - সরকারিকরণ - Dainikshiksha


সরকারিকরণের দাবিতে ৩ দিনের কর্মবিরতিতে যাচ্ছেন শিক্ষকরা

নিজস্ব প্রতিবেদক |

এমপিওভুক্ত সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান একযোগে সরকারিকরণের ঘোষণা এবং ৫ শতাংশ বার্ষিক প্রবৃদ্ধি ও বৈশাখি ভাতা দেয়ার দাবিতে ২৩ থেকে ২৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৩ দিনের অর্ধদিবস কর্মবিরতি এবং ২৭ সেপ্টেম্বর দেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় বিক্ষোভ সমাবেশের ঘোষণা দিয়েছে ফেসবুকভিত্তিক সংগঠন বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরাম। বুধবার (১২ সেপ্টেম্বর) সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ এ কর্মসূচি ঘোষণা করা। সংবাদ সম্মেলন শেষে একই দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেন শিক্ষকরা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ফোরামের মহাসচিব মোঃ আব্দুল খালেক বলেন,পরিকল্পিতভাবে বৈষম্য সৃষ্টির উদ্দেশ্যে ২০১৫ খ্রিস্টাব্দ পরবর্তী তিন বছর যাবত শিক্ষকদের বার্ষিক প্রবৃদ্ধি, বৈশাখী ভাতা, টাইমস্কেল, ইনক্রিমেন্ট বন্ধ রাখা হয়েছে। পূর্ণাঙ্গ উৎসব ভাতা, বাড়িভাড়া, চিকিৎসা ভাতা, পেনশনের ব্যবস্থা নেই এবং সমগ্র চাকরি জীবনে পদোন্নতির সুযোগ নেই।  বেসরকারি শিক্ষকরা মূল বেতন স্কেলেরও কম বেতন ভাতা উত্তোলন করে থাকেন। এই সামান্য বেতন-ভাতার মাধ্যমে বৃদ্ধ পিতা-মাতা, স্ত্রী ও সন্তানদের শিক্ষা, চিকিৎসা এবং ভরণপোষণ করতে হয়।  শিক্ষক ফোরাম বিভিন্ন শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালনের মাধ্যমে সরকারিকরণের বিষয়ে সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণের প্রাণান্তকর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু সরকারের নিস্পৃহ নিরব দর্শকের ভূমিকা, বেসরকারি শিক্ষকদের মাঝে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি করেছে।

তিনি আরও বলেন,দেশের শিক্ষাব্যবস্থা সরকারিকরণ, শিক্ষার মানোন্নয়ন, শিক্ষানীতির বাস্তবায়ন, শিক্ষা আইন প্রণয়ন, সকল অসংগতি, দুর্নীতি, অব্যবস্থাপনা, শিক্ষকদের সম্মান ও মর্যাদা রক্ষায় দেশের শিক্ষাবিদ, শিক্ষক, অভিভাবক এবং সাংবাদিকদের সাথে নিয়ে দুর্বার গণআন্দোলন গড়ে তুলতে বদ্ধপরিকর। দেশে নৈতিকতা সম্পন্ন দক্ষ জনশক্তি তৈরি করা ব্যতিত জাতীয় উন্নয়ন অসম্ভব। মানসম্মত শিক্ষাই জাতীয় উন্নয়নের মূল চাবিকাঠি। আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, মানবতার  প্রধানমন্ত্রী চলতি অধিবেশনেই সরকারিকরণের ঐতিহাসিক ঘোষণা দেবেন এবং প্রতিশ্রুতি রক্ষা করবেন। এরপরও প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে সরকারিকরণের ঘোষণা ও প্রতিশ্রুতির বাস্তবায়ন করা না হলে  শিক্ষকরা আন্দোলনে যেতে বাধ্য হবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন  ফোরামের সভাপতি মোঃ সাইদুল হাসান সেলিম,সিনিয়র সহসভাপতি মোঃ রফিকুল ইসলাম,  সহসভাপতি বিপ্লব কান্তি দাস, মোঃ হারুন অর রশিদ, মোঃ আমিনুল ইসলাম, মোঃ মোদাচ্ছির আলম, এ বি এম রেজাউল হক, যুগ্ম মহাসচিব আব্দুল জব্বার, জি এম শাওন, মো. দেলোয়ার হোসেন খোকন, মোঃ রফিকুল ইসলাম, আবদুল হালিম, মো. রেহান উদ্দিন, সৈয়দ শওকতুজ্জামান, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ এনামুল ইসলাম মাসুদ, সোহেলি পারভিন, মতিউর রহমান দুলাল, মো. রেজাউল করিম  মোঃ জহিরুল ইসলাম, মোঃ কামরুল হাসান, মো. আরিফুল ইসলাম, মো. রবিউল ইসলাম, এস এম ফরিদ উদ্দিন, মোঃ জামাল উদ্দিন, মোহাম্মদ গোলাম সাদেক, মো. বাসেদ আলী, মো. আব্দুল মতিন, মো. মামুনুর রশিদ, মোহাম্মদ আব্দুল হালিম, আফরোজা খাতুন প্রমুখ।




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
আলিমের নম্বর বণ্টন প্রকাশ - dainik shiksha আলিমের নম্বর বণ্টন প্রকাশ এমপিওভুক্ত হচ্ছেন স্কুল-কলেজের ৯০৯ শিক্ষক - dainik shiksha এমপিওভুক্ত হচ্ছেন স্কুল-কলেজের ৯০৯ শিক্ষক সরকারি হল আরও ৪৩ প্রতিষ্ঠান - dainik shiksha সরকারি হল আরও ৪৩ প্রতিষ্ঠান পদোন্নতি পাচ্ছেন সরকারি হাইস্কুলের সাড়ে পাঁচ হাজার শিক্ষক - dainik shiksha পদোন্নতি পাচ্ছেন সরকারি হাইস্কুলের সাড়ে পাঁচ হাজার শিক্ষক বিশেষ মঞ্জুরীর টাকার আবেদন করা যাবে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত - dainik shiksha বিশেষ মঞ্জুরীর টাকার আবেদন করা যাবে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত টেস্টে ফেল করলে পাবলিক পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে না - dainik shiksha টেস্টে ফেল করলে পাবলিক পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে না শূন্যপদের চাহিদা পাঠানোর সময় ফের বাড়ল - dainik shiksha শূন্যপদের চাহিদা পাঠানোর সময় ফের বাড়ল দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষায় বিজ্ঞাপন পাঠান ইমেইলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website