সরকারি স্কুলে শতভাগ পাস, শিক্ষার্থী ৫! - এসএসসি/দাখিল - দৈনিকশিক্ষা


সরকারি স্কুলে শতভাগ পাস, শিক্ষার্থী ৫!

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি |

বিদ্যালয়ের অবস্থান উপজেলা সদরে। উপজেলা সদরের একমাত্র বালিকা বিদ্যালয়। আবার উপজেলার ১৮টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে এটিই একমাত্র সরকারি। প্রতিষ্ঠার দিক থেকেও বেশ পুরোনো ৫০ বছর বয়স। সরকারি হয়েছে ৩৩ বছর আগে। এ বছরের এসএসসি'র ফলাফলে বিদ্যালয় থেকে পাসের হার শতভাগ। তবে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিলো মাত্র ৫ জন। এরমধ্যে আবার একজন আগের পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মাধ্যমিক পর্যায়ে উপজেলার একমাত্র সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির বেহাল দশার কথা। বিদ্যালয়টিতে একটি চারতলা ও একটি তিনতলা ভবন থাকলেও শিক্ষার্থী সংখ্যা মাত্র ২৯৩ জন। মাত্র ৫জন শিক্ষক থাকা ওই বিদ্যালয়টিতে একজন খন্ডকালীন শিক্ষক রাখা হয়েছে। প্রধান শিক্ষকের পদটিও দীর্ঘ দিন ধরে খালি রয়েছে। তবে আশার বিষয় হচ্ছে চলতি বছর থেকে বিদ্যালয়টিতে বিজ্ঞান বিভাগ চালু হয়েছে।

গত কয়েক বছরের শিক্ষার্থী হার থেকে জানা যায়, ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তি হলেও পরবর্তীতে এর হার কমতে থাকে। বিশেষ করে জেএসসি পরীক্ষার পর নবম শ্রেণিতে শিক্ষার্থীর হার খুবই কমে যায়। এ বছর ষষ্ঠ শ্রেণিতে ৬০ জন, সপ্তম শ্রেণিতে ৮১ জন, অষ্টম শ্রেণিতে ৮৯ জন, নবম শ্রেণিতে ৪৩ জন ও দশম শ্রেণিতে ২০ জন রয়েছে। অর্থাৎ আগামী বছর মাত্র ২০ জন শিক্ষার্থী এস.এস.সি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারে।

চলতি বছরের ফলাফল থেকে দেখা যায়, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার যে ১৪টি বিদ্যালয় শতভাগ পাশের কৃতিত্ব দেখিয়েছে এর মধ্যে নাসিরনগর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় একটি। কিন্তু শিক্ষার্থী সংখ্যা ছিলো মাত্র ৫ জন। অবশ্য এর মধ্যে কেউ জিপিএ-৫ পায় নি।

উপজেলার উল্লেখযোগ্য বিদ্যালয়ের মধ্যে নাসিরনগর আশুতোষ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২০৬ জন পরীক্ষা দিয়ে ১৮২ জন, ফান্দাউক পন্ডিতরাম উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৩৪ জন পরীক্ষা দিয়ে ৮৯ জন, চাতলপাড় ওয়াজ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৮০ জন পরীক্ষা দিয়ে ১২২ জন, গোকর্ণ সৈয়দ ওয়ালী উল্লাহ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১১৯ জন পরীক্ষা দিয়ে ৯০ জন পাস করে। উপজেলার একমাত্র বেসরকারি বালিকা বিদ্যালয় নুরপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৫ জন পরীক্ষা দিয়ে ১০ জন পাস করে। এর বাইরে সবচেয়ে কম পরীক্ষা দেয়া শ্রীঘর এসইএলডিপি মডেল স্কুল থেকে ২২ জন পরীক্ষা দিয়ে ১৬ জন পাস করে। উপজেলার ১৮টি স্কুল  থেকে ১২৪৯ জন পরীক্ষা দিয়ে ৯৩৫ জন পাস করে। পাসের হার ৭৪.৬ শতাংশ।

বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. আলমগীর মিয়া বলেন, বিভিন্ন কারণেই বিদ্যালয়ে এস.এস.সি পরীক্ষার্থী কম হয়। বিশেষ করে জেএসসি পরীক্ষা পদ্ধতি চালু পর এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। জেএসসিতে ফেল করলে নবম শ্রেণিতে উঠার সুযোগ থাকে না বলে অনেকেই ছিটেক পড়েন। এ ছাড়া অনেকের বিয়েও হয়ে যায়। তবে আমরা চেষ্টা করি সীমিত সাধ্যের মধ্যে সবটুকু দেওয়ার।

স্থানীয় অভিভাবকদের ধারনা, এ বিদ্যালয় থেকে পড়ে নাকি ভালো কোনো চাকরি পাওয়া যায় না কিংবা এ বিদ্যালয়ে পড়লে নাকি মূল্যায়ন কম। এক অভিভাবক সমাবেশে উপস্থিত স্থানীয় সংসদ সদস্য এসব কথা শুনে থমকে গেলেন, সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্তা ব্যক্তিরাও।

ইউএনও নাজমা আশরাফী বলেন, সরকারি ওই স্কুলটিতে একাধিক কারণে শিক্ষার্থী কম বলে আমার কাছে মনে হয়। আমি যোগদানের পর চেষ্টা করেছি ওই স্কুলটির প্রচারণার জন্য বিভিন্ন অনুষ্ঠান আয়োজন করার। অভিভাবক সমাবেশে অভিভাবকদের কথা শুনে এম.পি মহোদয়সহ আমরা অবাক হই।  




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
করোনায় আরও ৩৭ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২ হাজার ৯৪৯ - dainik shiksha করোনায় আরও ৩৭ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২ হাজার ৯৪৯ দৈনিক শিক্ষায় প্রতিবেদন প্রকাশের পর : তথ্য গোপন করে নেয়া অনুদানের টাকা ফেরত - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষায় প্রতিবেদন প্রকাশের পর : তথ্য গোপন করে নেয়া অনুদানের টাকা ফেরত আশ্রয়কেন্দ্র হিসাবে বন্যা দুর্গত এলাকায় স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার নির্দেশ - dainik shiksha আশ্রয়কেন্দ্র হিসাবে বন্যা দুর্গত এলাকায় স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার নির্দেশ পরীক্ষা ছাড়া শিক্ষার্থীদের প্রমোশনের সিদ্ধান্ত হয়নি : শিক্ষা মন্ত্রণালয় - dainik shiksha পরীক্ষা ছাড়া শিক্ষার্থীদের প্রমোশনের সিদ্ধান্ত হয়নি : শিক্ষা মন্ত্রণালয় একাদশে শিগগিরই ভর্তি কার্যক্রম শুরু হবে : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha একাদশে শিগগিরই ভর্তি কার্যক্রম শুরু হবে : শিক্ষামন্ত্রী প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা বন্ধের পরিকল্পনা নেই : গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী - dainik shiksha প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা বন্ধের পরিকল্পনা নেই : গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী স্কুলছাত্রের মৃত্যুতে পরোক্ষ দায়ী সেই যুগ্মসচিব নৌঅধিদপ্তরের মহাপরিচালক - dainik shiksha স্কুলছাত্রের মৃত্যুতে পরোক্ষ দায়ী সেই যুগ্মসচিব নৌঅধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ হতে পারছেন না প্রভাষকরা: রুলের জবাব দেয়নি সরকার - dainik shiksha অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ হতে পারছেন না প্রভাষকরা: রুলের জবাব দেয়নি সরকার শিক্ষায় বঙ্গবন্ধুর অবদান নিয়ে লেখা আহ্বান - dainik shiksha শিক্ষায় বঙ্গবন্ধুর অবদান নিয়ে লেখা আহ্বান বিনামূল্যে আন্তর্জাতিক মানের ডিজিটাল কনটেন্ট দিচ্ছে টিউটর্সইঙ্ক - dainik shiksha বিনামূল্যে আন্তর্জাতিক মানের ডিজিটাল কনটেন্ট দিচ্ছে টিউটর্সইঙ্ক শিক্ষকদের ফ্রি অনলাইন প্রশিক্ষণ চলছে - dainik shiksha শিক্ষকদের ফ্রি অনলাইন প্রশিক্ষণ চলছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website