সাক্ষর হতে পড়ালেখার পাশাপাশি কর্মদক্ষও হতে হবে : গণশিক্ষামন্ত্রী - বিবিধ - Dainikshiksha


সাক্ষর হতে পড়ালেখার পাশাপাশি কর্মদক্ষও হতে হবে : গণশিক্ষামন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক |

প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান বলেছেন, বর্তমানে সাক্ষরতার চিত্র পাল্টে গেছে। দেশকে এগিয়ে নিতে সরকার সকল ধরনের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এখন শুধু লিখতে ও পড়তে পারলেই সাক্ষর বলে না। পড়ালেখার পাশাপাশি কর্মদক্ষ হলেই তাকে সাক্ষর বলা হচ্ছে। সাক্ষরতার চিত্র আগামি ১০ বছরের মধ্যে পাল্টে যাবে। সাক্ষরতা মানে একজন শিক্ষিত ও দক্ষ ব্যক্তিকে বোঝাবে। আজকে যারা শিশু, আগামিতে তারাই এ চিত্র পাল্টে দিবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

সারাদেশে ‘সাক্ষরতা অর্জন করি, দক্ষ হয়ে জীবন গড়ি’ প্রতিপাদ্যে  শনিবার (৮ সেপ্টেম্বর) উদযাপিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস ২০১৮।  সকালে আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবসের র‌্যালি এবং এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি। 

তিনি বলেন, আমাদের দেশে প্রশিক্ষণের অভাবে দক্ষ জনশক্তি তৈরি হচ্ছে না। এসময় তিনি দক্ষ ও কর্মক্ষম জনশক্তি তৈরিতে প্রশিক্ষণের ভূমিকার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। আগামি ১০ বছরের মধ্যে বাংলাদেশ পাল্টে যাবে, মানুষ সাক্ষরতার জ্ঞান ও প্রশিক্ষণ নিয়ে দক্ষ জনশক্তিতে রূপান্তরিত হবে বলে আমরা আশাবাদি। 

মন্ত্রী বলেন, উন্নয়নের ক্রমবর্ধমান ধারা অব্যাহত থাকলে ১০ বছরের মধ্যে বাংলাদেশ উন্নত দেশে পরিণত হবে। দেশ উন্নয়নের প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন হওয়ায় জনগণের মনে ভরসার একটি স্থান সৃ্ষ্টি হয়েছে। 

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ আসিফ-উজ-জামানের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি মো: মোতাহার হোসেন এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য জাহাঙ্গীর হোসেন। 

মোতাহার হোসেন বলেন,  শিক্ষানীতির আলোকে ২০১৮ খ্রিস্টাব্দ থেকে শুধু ৮ম শ্রেণিতে পাবলিক পরীক্ষা আয়োজন করার কথা থাকলেও তা বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয়নি। প্রাথমিক পর্যায়ে কোয়ালিটি শিক্ষা নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি। এ সময় তিনি উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর কার্যক্রম প্রসারের পরামর্শ দেন।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক তপন কুমার ঘোষ, ইউনেস্কো বাংলাদেশের অঞ্চলিক কার্যালয়ের প্রধান সোন লই।  এ ছাড়া প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় ও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তা, শিক্ষক, শিক্ষার্থীসহ ইউনেস্কো ও বিশ্বব্যাংকের প্রতিনিধিরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
‘শিক্ষকদের অবসর-কল্যাণ সুবিধার তহবিল বন্ধ করে পেনশন চালু করতে হবে’ - dainik shiksha ‘শিক্ষকদের অবসর-কল্যাণ সুবিধার তহবিল বন্ধ করে পেনশন চালু করতে হবে’ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের প্রথম ধাপের পরীক্ষা ১০ মে - dainik shiksha প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের প্রথম ধাপের পরীক্ষা ১০ মে কল্যাণ ট্রাস্টের প্রাথমিক তহবিলের এক কোটি টাকার হদিস নেই - dainik shiksha কল্যাণ ট্রাস্টের প্রাথমিক তহবিলের এক কোটি টাকার হদিস নেই এসএসসির ফল ৫ বা ৬ মে - dainik shiksha এসএসসির ফল ৫ বা ৬ মে সরকারিকৃত ২৯৯ কলেজে পদ সৃজনে সংশোধিত তথ্য ছক প্রকাশ - dainik shiksha সরকারিকৃত ২৯৯ কলেজে পদ সৃজনে সংশোধিত তথ্য ছক প্রকাশ কল্যাণ ট্রাস্টের ৪০ কোটি টাকা এফডিআর করা হয়নি - dainik shiksha কল্যাণ ট্রাস্টের ৪০ কোটি টাকা এফডিআর করা হয়নি আদর্শ না শেখালে সন্তানদের হাতে বাবা-মাও নিরাপদ নন: গণপূর্তমন্ত্রী - dainik shiksha আদর্শ না শেখালে সন্তানদের হাতে বাবা-মাও নিরাপদ নন: গণপূর্তমন্ত্রী চাঁদা বৃদ্ধির পরও ২১৬ কোটি টাকা বার্ষিক ঘাটতি : শরীফ সাদী - dainik shiksha চাঁদা বৃদ্ধির পরও ২১৬ কোটি টাকা বার্ষিক ঘাটতি : শরীফ সাদী কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি নীতিমালা জারি - dainik shiksha কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি নীতিমালা জারি একাদশে ভর্তির নীতিমালা জারি, আবেদন শুরু ১২ মে - dainik shiksha একাদশে ভর্তির নীতিমালা জারি, আবেদন শুরু ১২ মে প্রাথমিকের ৪২৭ শিক্ষকের বদলি - dainik shiksha প্রাথমিকের ৪২৭ শিক্ষকের বদলি সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি - dainik shiksha সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা - dainik shiksha ২০১৯ খ্র্রিস্টাব্দের স্কুলের ছুটির তালিকা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website