স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার তিন - বিবিধ - Dainikshiksha


স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার তিন

মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি |

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় চাঞ্চল্যকর মিরুখালীর একটি স্কুলের ১০ম শ্রেণির স্কুলছাত্রী গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামিসহ তিন আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার দিনগত গভীর রাতে মঠবাড়িয়ার মিরুখালী বাজারে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

আসামিরা হল উপজেলার ওয়াহেদাবাদ গ্রামের মতিউর রহমান জমাদ্দারের ছেলে মো. সাইফুল জমাদ্দার (২০)। ওয়াহেদাবাদ গ্রামের খোকন জমাদ্দারের ছেলে শাওন জমাদ্দার (২২) ও একই গ্রামের সুলতানের হাওলাদার ছেলে নাজমুল হাওলাদার।

মামলার নথি সূত্রে জানা গেছে, গত ৩০ নভেম্বর ২০১৮ দুপুরে ওই স্কুলছাত্রী উপজেলার খায়ের ঘটিচোরা গ্রামের বাড়ি থেকে মিরুখালী বাজারের স্কুলে প্রাইভেট পড়তে যায়। এ সময় পথে ওই ছাত্রীর পূর্ব পরিচিত সাইফুল কথা বলার জন্য রাস্তার পাশে একটি ঘরে মেয়েটিকে ডেকে নেয়। এরপর সাইফুল ও তার সহযোগী ইসমাইল, শাওন, নাজমুলসহ চারজন মিলে ওই স্কুলছাত্রীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এ সময় বখাটেরা ধর্ষণের ভিডিও মোবাইল ফোনে ধারণ করে রাখে। ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রী বখাটেদের কবল থেকে মুক্ত হয়ে বাড়ি ফিরে যায়। পরে লোক লজ্জার ভয়ে ওই ছাত্রী ও তার পরিবার বিষয়টি গোপন করে। এরপর গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ধর্ষক সাইফুল ও ইসমাইল ওই ছাত্রী স্কুলে আসার পথে আটকে ধর্ষণের ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে নতুন করে কু-প্রস্তাব দেয়। ওই স্কুলছাত্রী ঘটনাটি অভিভাবকদের জানালে তার মা বাদী হয়ে চার ধর্ষকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। এর আগে পুলিশ এজাহারভুক্ত ৪ নম্বর আসামি ইসমাইলকে গ্রেফতার করে। ফলে এ মামলায় অভিযুক্ত সকল আসামিই গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় পুলিশ।

বিষয়টি নিশ্চিত করে মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সৈয়দ আব্দুল্লাহ জানান, ‘গণধর্ষণ মামলার সকল আসামি গ্রেফতার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার অভিযুক্ত আসামিদের আদালতে হাজির করলে তারা স্বীকারোক্তিমূল জবানবন্দি দিয়েছে।




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
এমপিওভুক্তির তালিকায় প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন - dainik shiksha এমপিওভুক্তির তালিকায় প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ - dainik shiksha মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ মারধরে অসুস্থ হলে আবরারকে অন্য রুমে নিয়ে গিয়ে পেটাই : রবিন - dainik shiksha মারধরে অসুস্থ হলে আবরারকে অন্য রুমে নিয়ে গিয়ে পেটাই : রবিন কী আছে শিক্ষক গোকুল দাশের লাইব্রেরিতে, কেন বিক্রির বিজ্ঞাপন? - dainik shiksha কী আছে শিক্ষক গোকুল দাশের লাইব্রেরিতে, কেন বিক্রির বিজ্ঞাপন? ৪২ শতাংশই অন্য চাকরি না পেয়ে শিক্ষকতায় এসেছেন - dainik shiksha ৪২ শতাংশই অন্য চাকরি না পেয়ে শিক্ষকতায় এসেছেন ডিগ্রি ১ম বর্ষ পরীক্ষার ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত - dainik shiksha ডিগ্রি ১ম বর্ষ পরীক্ষার ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website