স্কুলে শহীদ মিনার তৈরিতে বাধা, দপ্তরিকে মারধর - স্কুল - দৈনিকশিক্ষা


স্কুলে শহীদ মিনার তৈরিতে বাধা, দপ্তরিকে মারধর

চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি |

দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে স্কুল মাঠে নতুন শহীদ মিনার নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনে বাধা দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে স্কুল প্রাঙ্গণে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এসময় স্কুলের দপ্তরি কাম প্রহরী ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তান আবু সইয়দ এ শাহীনকে মারধর করা হয়। শুক্রবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে উপজেলার ইসবপুর ইউনিয়নের নওখৈর বালক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এ ঘটনা ঘটে।

আহত দপ্তরী আবু সইয়দ এ শাহীন। ছবি: চিরিরবন্দর প্রতিনিধি

জানা যায়, ভাষার মাস ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন উপলক্ষে গত ১২ ফেব্রুয়ারি বুধবার চিরিরবন্দর প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও ম্যানেজিং কমিটির আলোচনার মাধ্যমে ওই স্কুল মাঠে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের আদলে একটি নতুন শহীদ মিনার নির্মাণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। কিন্তু ম্যানেজিং কমিটিরি সভাপতি রেজাউল ইসলাম নয়ন ও ওই কমিটির অভিভাবক সদস্য রেজাউল করিম ও দেলোয়ার হোসেন হঠাৎ করে অজ্ঞাত কারণে শহীদ মিনারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের সময় বাধার সৃষ্টি করে।

 

দপ্তরি শাহীনুর ইসলাম দৈনিক শিক্ষাডটকমকে জানান, সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শহীদ মিনার ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের জন্য কমিটির সবাইকে শুক্রবার সকালে আসার জন্য বলা হয়েছিল। আমি সবকিছু রেডি করেছিলাম। সকালে সবাই এসেছে। কিন্তু তারা শহীদ মিনার নির্মাণের জন্য নয় তা বন্ধের জন্য। শহীদ মিনার হঠাৎ করে তৈরি কেন হবে না কমিটির সভাপতির কাছে জানতে চাইলে আমাকে ওই এলাকার সাজিপাড়ার বাসিন্দা মৃত আব্দুর সাত্তারের পূত্র আবু হাসনাদ মুক্তা (৪৫), মৃত আব্দুর কাদেরের পুত্র রফিকুল ইসলাম (৪০), ওয়েদ আলী শাহ্ পূত্র আব্দুর রউফ স্বপন (৪৪) এর সাথে আমার ঝগড়ার সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে সবাই মিলে আমাকে মারধর করে রক্তাক্ত করে। এ সময় আমার পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলেমান আলী এগিয়ে আসলে তাকেও অসম্মান করে তারা।

দপ্তরি শাহীনুর ইসলাম আরও জানায়, এ বিষয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এ বিষয়ে ওই বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটিরি সভাপতি রেজাউল ইসলাম নয়ন দৈনিক শিক্ষাডটকমকে জানান, আমি শহীদ মিনারের কাজ একবারে বন্ধ করতে বলেনি। শহীদ মিনার নির্মাণ হবে কমিটির সাথে স্কুলের সবাইকে আবার বসতে হবে তারপর। দপ্তরি শাহীন ওই সময় আমকে মারতে চেয়েছিল। তাই ক্ষিপ্ত হয়ে সবাই তাকে মারধর করেছে।

ওই বিদ্যালয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক জেসমিন খাতুন দৈনিক শিক্ষাডটকমকে জানান, সামনে ২১ ফেব্রুয়ারি আর মাত্র ক’দিন বাকি। তাই গত বুধবার মিটিংয়ে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আমাকে নিজস্ব অর্থায়নে স্কুলের মাঠে শহীদ মিনার নির্মাণের কথা বলেন। যা ব্যয় হবে তা পরে বিল করে দেয়া হবে বলে জানান তিনি। কিন্তু কি কারণে কমিটির সভাপতি এটি বন্ধ করলো আমি বুঝতে পারছি না।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এম জি এম সারোয়ার হোসেন দৈনিক শিক্ষাডটকমকে জানান, ২১ ফেব্রুয়ারির আগে সব স্কুলে শহীদ মিনার নির্মাণ করতে হবে। সভাপতি হঠাৎ করে কেন বিদ্যালয় মাঠে শহীদ মিনার নির্মাণে বাধা দিয়েছে আগামী রোববার ওই স্কুলে গিয়ে খতিয়ে দেখা হবে। আর এ বিষয়ে ব্যবস্থাগ্রহণ করা হবে।




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
সব সরকারি কর্মকর্তাকে অফিস করতে হবে ৯টা-৫টা - dainik shiksha সব সরকারি কর্মকর্তাকে অফিস করতে হবে ৯টা-৫টা তিন বছর পরপর প্রাথমিক শিক্ষকদের বদলির পরিকল্পনা - dainik shiksha তিন বছর পরপর প্রাথমিক শিক্ষকদের বদলির পরিকল্পনা হলি ক্রস কলেজে একাদশে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি - dainik shiksha হলি ক্রস কলেজে একাদশে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি একাদশে ভর্তির আবেদন শুরু রোববার - dainik shiksha একাদশে ভর্তির আবেদন শুরু রোববার ডিপ্লোমা ও এইচএসসি ভোকেশনাল-বিএমে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি - dainik shiksha ডিপ্লোমা ও এইচএসসি ভোকেশনাল-বিএমে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি কারিগরি শিক্ষকদের জুলাই মাসের এমপিওর চেক ছাড় - dainik shiksha কারিগরি শিক্ষকদের জুলাই মাসের এমপিওর চেক ছাড় Admission going on at Navy Anchorage School and College Chattogram - dainik shiksha Admission going on at Navy Anchorage School and College Chattogram মৃত শিক্ষকদের নামে এমপিওর টাকা, অবশেষে শিক্ষা অধিদপ্তরের কড়া নির্দেশ - dainik shiksha মৃত শিক্ষকদের নামে এমপিওর টাকা, অবশেষে শিক্ষা অধিদপ্তরের কড়া নির্দেশ ১৩ আগস্ট পর্যন্ত সংসদ টিভিতে মাধ্যমিকের ক্লাসের রুটিন - dainik shiksha ১৩ আগস্ট পর্যন্ত সংসদ টিভিতে মাধ্যমিকের ক্লাসের রুটিন স্কুলের উদ্ভট ও বিতর্কিত নাম পরিবর্তনে প্রস্তাব পাঠানোর নির্দেশ - dainik shiksha স্কুলের উদ্ভট ও বিতর্কিত নাম পরিবর্তনে প্রস্তাব পাঠানোর নির্দেশ please click here to view dainikshiksha website