১০ শতাংশ চাঁদা কর্তনের প্রজ্ঞাপন অযৌক্তিক: বাকশিস-বিপিসি - এমপিও - Dainikshiksha


১০ শতাংশ চাঁদা কর্তনের প্রজ্ঞাপন অযৌক্তিক: বাকশিস-বিপিসি

নিজস্ব প্রতিবেদক |

এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন থেকে অবসর সুবিধা বোর্ড ও কল্যাণ ট্রাস্টের ফান্ডে ৬ শতাংশের পরিবর্তে ১০ শতাংশ চাঁদা কর্তনের প্রজ্ঞাপন সম্পূর্ণ অযৌক্তিক ও অন্যায় উল্লেখ করে তা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ কলেজ শিক্ষক সমিতি (বাকশিস) ও বাংলাদেশ অধ্যক্ষ পরিষদ (বিপিসি)। শুক্রবার (১৯ এপিল) এক বিবৃতিতে এ দাবি জানিয়েছেন সমিতি দুটির শিক্ষক নেতারা। 

বিবৃতিতে বলা হয়, বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী অবসর সুবিধা বোর্ড এবং কল্যাণ ট্রাস্টের ফান্ডে তহবিলের অতিরিক্ত ৪ শতাংশসহ ১০ শতাংশ চাঁদা কর্তনের জন্য যে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ অযৌক্তিক ও অন্যায়। বিৃবতিতে শিক্ষক নেতারা বলেন, যেখানে স্বাধীন দেশের শিক্ষাব্যবস্থায় কোনো বৈষম্য থাকা উচিৎ নয় সেখানে এ ধরনের প্রজ্ঞাপনের ফলে সরকারি-বেসরকারি শিক্ষকদের অর্থনৈতিক বৈষম্য আরও বাড়বে। তাই অবিলম্বে ১০ শতাংশ চাঁদা কর্তনের প্রজ্ঞাপন প্রত্যাহারের দাবি জানান তারা।

বিৃবতিতে আরও বলা হয়, অবসর সুবিধার জন্য কোনো ধরনের চাঁদার কর্তন করা উচিৎ নয়। বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারীরাও সরকারি শিক্ষক কর্মচারীদের মতো চাকরি জীবনে নিষ্ঠার সাথে সেবা প্রদান করে অবসর জীবনে আর্থিক নিরাপত্তা ও মর্যাদার সঙ্গে জীবন-যাপনের নিশ্চয়তা অর্জন করেছেন। তাই, তাঁদের পূর্ণাঙ্গ পেনশন পাবার অধিকার রয়েছে। 

বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন বাংলাদেশ অধ্যক্ষ পরিষদের সভাপতি অধ্যক্ষ মোহাম্মদ মাজহারুল হান্নান ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ হারুনুর রশীদ পাঠান এবং বাংলাদেশ কলেজ শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যক্ষ ইসহাক হোসেন, মহাসম্পাদক ড. এ কে এম আব্দুল্লাহ, অধ্যক্ষ মুজিবুর রহমান হাওলাদার, অধ্যাপক সৈয়দ মুহাম্মদ ইউসুফ সুমন, অধ্যক্ষ ইলিম মো. নাজমুল হক, অধ্যাপক জহিরউদ্দিন আজম প্রমুখ।




পাঠকের মন্তব্য দেখুন
এমপিওভুক্তির দাবিতে ফের রাজপথে শিক্ষকদের অবস্থান কর্মসূচি শুরু - dainik shiksha এমপিওভুক্তির দাবিতে ফের রাজপথে শিক্ষকদের অবস্থান কর্মসূচি শুরু মারধরে অসুস্থ হলে আবরারকে অন্য রুমে নিয়ে গিয়ে পেটাই : রবিন - dainik shiksha মারধরে অসুস্থ হলে আবরারকে অন্য রুমে নিয়ে গিয়ে পেটাই : রবিন কী আছে শিক্ষক গোকুল দাশের লাইব্রেরিতে, কেন বিক্রির বিজ্ঞাপন? - dainik shiksha কী আছে শিক্ষক গোকুল দাশের লাইব্রেরিতে, কেন বিক্রির বিজ্ঞাপন? ৪২ শতাংশই অন্য চাকরি না পেয়ে শিক্ষকতায় এসেছেন - dainik shiksha ৪২ শতাংশই অন্য চাকরি না পেয়ে শিক্ষকতায় এসেছেন ডিগ্রি ১ম বর্ষ পরীক্ষার ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত - dainik shiksha ডিগ্রি ১ম বর্ষ পরীক্ষার ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন - dainik shiksha শিক্ষার এক্সক্লুসিভ ভিডিও দেখতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া - dainik shiksha জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে খোলা সব ফেসবুক পেজই ভুয়া please click here to view dainikshiksha website