মন্তব্য লিখতে লগইন অথবা রেজিস্টার করুন

মন্তব্যের তালিকা

raju, ১০ আগস্ট , ২০১৮
অবশ্যই আমরা অসহায় বোধ করছি,এজন্যই আমাদেরকে মাদরাসার জনবল নীতিমালা ২০১৮ থেকে বাদ দেয়া হয়েছে।স্কুল কলেজ থেকে পড়ুয়ারা (জেনারেলরা)এতদিন ফাজিল/ কামিল মাদরাসায় গ্রন্থাগারিক,সহকারী গ্রন্থাগারিক পদে চকুরী করতে পারলে এখন পারবে না কেন?কেন এই নীতিমালায় এখন নতুন করে কুষ্টিয়া আরবি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিপ্লোমধারী হতে হবে একথা বলা হয়েছে? গ্রন্থাগারিকরা তো স্যার নয় তারা কর্মচারী,তাদের কাজ হচ্ছে গ্রন্থাগারে এখানে আরবী বিশ্বিদ্যালয়ের প্রশ্ন আসবে কেন?স্কুল কলেজের নীতিমালায় তো নির্দিষ্ট করে কোন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করতে হবে তা নির্দিষ্ট করে নি,তারা তো সবাইকে সমঅধিকার দিয়েছেন এটাই সঠিক নিয়ম।আমরা মাদরাসার বৈষম্যমূলক জনবল নীতিমালা ২০১৮ এর ২২ পৃষ্ঠার ৩৫ নং কলামের খুব দ্রুত সংশোধন চাই,এই কালো নীতিমালা সংশোধন করা খুবই জরুরি।,,,,,,, সর্বশেষ একটা কথা বলতে চাই, নীতিমালা সংশোধন চাই।