মন্তব্য লিখতে লগইন অথবা রেজিস্টার করুন

মন্তব্যের তালিকা

মোঃ মোসলেম উদ্দিন, ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
উহা বাস্তবায়ন হলে প্রাথমিক শিক্ষকার উন্নয়নে অগ্রগতি হবে। কারন বদলী বানিজ্য বন্ধ হবে, শিক্ষকরা নেতৃত্ব হারাবে, সাধারন শিক্ষকরা বদলীর জন্য নেতাদের পেছনে ঘুরঘুর করতে হবে না। উপজেলা শিক্ষা অফিসাররা বদলীর কার্যাবলীথেকে মুক্তি পাবে এবং বিদ্যালয়গুলো যথাযথভাবে পরিদর্শণ করবে। তবে হ্যাঁ অনলাইকৃত বদলীর জন্য শিক্ষকদের কে যেন শিক্ষা কর্মকর্তা কারো কাছে জিম্মি না থাকতে হয়। এই নীতি মালা যেন হয় শিক্ষা কর্মকর্তাদের সম্পূর্ণ ধরা ছোয়ার বাহিরে।
MD. JABED ALI, ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
আপনারা শুধু সভা-সমিতিতেই বড় বড় বক্তব্য দেন আর হাততালি নেন । বেসরকারি হাজার খানেক শিক্ষক নিজের জেলা ছেড়ে অন্য জেলায় শিক্ষক হিসেবে কর্মরত । আজ পাঁচ বছর ধরে অমড়া কাঠের ঢেঁকি মা.উ.সি আর ঠুঁটো জগন্নাথ এনটি আর সি এ বেসরকারি শিক্ষক ও জনবল নিয়োগ নীতিমালা-১৮ এর দোহায় দিয়ে শিক্ষক নিয়োগ বন্ধ রেখেছে । কিন্তু ঐ নীতিমালার-১১/২ এবং ১২ ধারার তোয়াক্কা না করে নিজের ইচ্ছেমত শিক্ষক নিয়োগ দিচ্ছে , তাই আমাদের অনুরোধ বেসরকারি শিক্ষকদের বদলি সিষ্টেম চালু করুন ।