মন্তব্য লিখতে লগইন অথবা রেজিস্টার করুন

মন্তব্যের তালিকা

MD.EDRISH ALI, ১৫ আগস্ট , ২০১৯
সুনামগনজের সুনাম আর থাকলো না|একটি নয় দু,টি নয়800টি চামড়া মাটির নিচে চাপা দেওয়া হলো|যা এক সময় কাঁচামাল হিসাবে বিদেশে রপ্তানী করে প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা আয় করতো তা আজ পরিবেশের ক্ষতির কারণে মাটির নীচে চাপা পড়লো!তাই তো বলা হয় ভাবিয়া করিও কাজ করিয়া ভাবিও না|আমরা যদি আগে থেকেই চামড়ার ভবিষ্যৎ সম্পর্কে ভাবতাম তবে চামড়ার কপালে এই দূর্গতি নেমে আসতো না|আর গরিব, মিসকিন,অসহায় ইয়াতিমদের অধিকারগুলো মাটির নীচে চাপা পড়তো না|এটা তো অসহায় গরিব লোকের হক,তাই এগুলো নিয়ে ভাবিয়া অযথা দেশের বুদ্ধিজীবিদের মূল্যবান সময় নষ্ট করা উচিত হবে না!তাই তো কথায় বলে তৈলের মাথায় মারো তৈল ,তৈল ছাড়া মাথায় ভাঙ্গো বেল|
MD.EDRISH ALI, ১৪ আগস্ট , ২০১৯
দেশ এখন অনেক উন্নত তাই চামরা কেনার লোক পাওয়া যাচ্ছে না ঠিক মতো|এতো গুলো কাঁচা চামরা নষ্ট হলেও আমাদের বিবেক ঘুমিয়ে রইলো তা হলে জাগ্রতো হবে কখন?জাতির বিবেকবান বুদ্ধিজীবি আপানারা কোথায়?নাকে খাঁটি শরিষার তৈল আর মাথায় নিদ্রাকুসূম তৈল মাখিয়ে ঘুমান নাকি?একি অবাস্তব কারবার!দেশের এতোগুলো সম্পদ নষ্ট হবে আমরা চেয়ে থাকবো|কারণ আমরা সাধারণ জনগণ|