মন্তব্য লিখতে লগইন অথবা রেজিস্টার করুন

মন্তব্যের তালিকা

md.moshihur rahman, ১০ মে, ২০২০
আমিও একজন পরীক্ষক।প্রায় ১২ বছর যাবত উত্তরপত্র মুল্যায়ন করে আসছি কিন্তু আজও ১৩/১৪ মাস পার না হলে সম্মানি পাইনি। এটা সত্যিই দুঃখ জনক।২০১৯ এর সম্মানি কিছু কিছু বিষয়ের শিক্ষক পেলেও আমার বিষয়ের সম্মানি আজো পাইনি।সামনে ঈদ আছে তবু সম্মানি দেওয়ার কোন চিন্তা ভাবনা আছে কিনা জানি না।ঈদ উপলক্ষে অন্তত আজ/ কাল এর মধ্যেই টাকার মেসেজ দেওয়া হোক।
Mohammad Saydul Islam, ০৮ মে, ২০২০
কারো পৌষমাস, কারো সর্বনাশ, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী র নিকট আমাদের বেসিকদের আবেদন,আর নিরব কান্নার ভাষাগুলো কি কোন সহৃদয়বান পৌছে দিবেন?
Rabindra Nath Tarofder, ০৪ মে, ২০২০
এই ডিজিটাল যুগে টাকা পেতে দেরি হওয়া উচিৎ নয়।কর্তৃপক্ষ একটু সদয় হলে তিন মাসের মধ্যে পরীক্ষার খাতা দেখার টাকা পাওয়া সম্ভব হতো।
MD Ramzan ali, ০৪ মে, ২০২০
এটা সম্পূর্ণ অবহেলা। প্রত্যেক শিক্ষক এর অনলাইন হিসাব নাম্বার দেওয়া আছে। কিন্তু তারা চেক ছাড়ার নামে এক বছর টাকাটা হাতে রাখে। এটা কার স্বার্থে? ইচ্ছা থাকলে অবশ্যই ২/৩ মাসের মধ্যে যার যার হিসাব নাম্বারে টাকা দেওয়া সম্ভব। টাকাও আছে সুযোগও আছে শুধু দেবার মানসিকতা টাই নাই।
মুসফিকা চৌধুরী, ০৩ মে, ২০২০
স্যাররা কার কথা কে শোনে,কাদের বলেন?যাকে বলে কাজ হবে তাকে বলেন,আমাদের শিক্ষক নেতাদের বলেন,যারা শিক্ষকদের এই গুরু দায়িত্ব পালন করছে,শিক্ষকদের সন্মানের যেখানে ঘাটতি পরেছে সেখানে এই মহান পেশায় নিয়োজিত যারা তাদের সন্মানীর কথা একটু ভাবতে হয়, কথা বলতে বা কোন কাজ করাতে ভাবাতে হয়, টাকা না নিয়ে বিনা পারিশ্রমিক কাজ করতে হলে ভালো হত,
Md. Rezaul Islam, ০৩ মে, ২০২০
গত বছরের সম্মানী পেলাম না এবং চলতি বছরের তো থাকলো। পরীক্ষার ফলাফল হয়তো কিছুদিনের মধ্যে বের হবে। তাহলে সম্মানি বকেয়া হলো দুই টা এই হলো শিক্ষা বোর্ডগুলোর অবস্থা। শিক্ষকদের তাদের প্রাপ সম্মানিটা না দিয়ে সেই টাকা ব্যাংকের মাধ্যমে লগ্নি করে মুনাফা করে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বিষয়টি আশা করছি দেখবেন।
Md. Rezaul Islam, ০৩ মে, ২০২০
গত বছরের সম্মানী পেলাম না এবং চলতি বছরের তো থাকলো। পরীক্ষার ফলাফল হয়তো কিছুদিনের মধ্যে বের হবে। তাহলে সম্মানি বকেয়া হলো দুই টা এই হলো শিক্ষা বোর্ডগুলোর অবস্থা। শিক্ষকদের তাদের প্রাপ সম্মানিটা না দিয়ে সেই টাকা ব্যাংকের মাধ্যমে লগ্নি করে মুনাফা করে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বিষয়টি আশা করছি দেখবেন।
Md.Anowarul Islam, ০৩ মে, ২০২০
আমি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের ২০১৯ সালের দাখিল পরীক্ষার একজন প্রধান পরীক্ষক ।এখনো পারিশ্রমিক পাইনি ।এর মধ্যে ২০২০ সালের পরীক্ষা হয়ে গেছে ।২০২১ সালের পরীক্ষা সামনে । কিন্তু ২০১৯ সালের পারিশ্রমিকের কোন খবর নেই ।এটা কেমন ভদ্রতা?
Mohammad Harunur Rashid, ০৩ মে, ২০২০
২০১৯ সালের দাখিল পরিক্ষার প্রধান পরিক্ষক ছিলাম , এবার ও আছি তবে এখনো আমি এবং আমার দুই জন নিরীক্ষক চেক পাইনি।
মাষ্টার হেলাল উদ্দীন, ০৩ মে, ২০২০
সেখানে সংযুক্ত ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষকদের বেতন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের অর্ধেক বলা যেতে পারে বৈকি।
মাষ্টার হেলাল উদ্দীন, ০৩ মে, ২০২০
২০১৯ সালের ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষা র হল পরিদর্শক ও পরীক্ষক এর দায়িত্ব পালন করে আজ অবধি টাকা পায়নি।এভাবেই প্রতি বছর এবছর এর সন্মানী ভাতার টাকা আরেক বছর দিয়ে থাকে।অথচ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক রা সব সন্মানী ভাতার টাকা দায়িত্বপালন এর পরপরই পেয়ে এ কেমন বৈষম্য বুঝলাম নয়।
আছমত আলী, ০৩ মে, ২০২০
বোর্ডের কর্মকর্তারা আমাদের টাকা ব্যাংকে আটকে রেখে লক্ষ লক্ষ টাকা সুদ খায়। আমরা দেড় বছরেও আমাদের ন্যায্য টাকা সময় মত পাই না ‌ দেখার কেউ নেই
আছমত আলী, ০৩ মে, ২০২০
বোর্ডের কর্মকর্তারা আমাদের টাকা ব্যাংকে আটকে রেখে লক্ষ লক্ষ টাকা সুদ খায়। আমরা দেড় বছরেও আমাদের ন্যায্য টাকা সময় মত পাই না ‌ দেখার কেউ নেই