মন্তব্য লিখতে লগইন অথবা রেজিস্টার করুন

মন্তব্যের তালিকা

Md Afzal Alam Chowdhury, ১৬ মে, ২০২০
সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন।
MD: AKASH, ১৪ মে, ২০২০
13-05-2020 তারিখের মধ্যে নতুন এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিও আবেদন আঞ্চলিক অফিস হতে নিস্পতি করার কথা। আমাদের আবেদন ফাইল ১০-০৫-২০২০ আঞ্চলিক অফিসে জেলা শিক্ষা অফিসার প্রেরণ করেছেন। কিন্তু এমপিও আবেদন ফাইল আঞ্চলিক অফিসে ১৪ই মে ২০২০ রাত ৮:২০ মিনিট, এখন পর্যন্ত কোন নিস্পতি হয়নি। কারন এটা বাংলাদেশ। মুখে যে যত বুলি আওড়াক, মানুষ তো আর ফেরেশতা নয়। আমরা ঘুষ দেইনি বলেই আমাদের ফাইল আটকে আছে। আর যারা দু'নম্বরি পথে গিয়েছে তাদের যত সমস্যাই হোক না কেন পার হয়ে গিয়েছে। আবেদনে শিক্ষক/কর্মকর্তার নামই নেই। তবুও তারা ইন্ডেক্স পেয়েছে। আর আমরা...................?
AnisurRahman, ১৪ মে, ২০২০
স্যার বাঁশখালী উপজেলা থেকে একটা নিউজ পাটিয়েছি
rezaemostafa, ১৪ মে, ২০২০
দেশের সকল মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাদের একটি বড় শক্তিশালী সিন্ডিকেট রয়েছে। তারা বিভিন্নভাবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে শিক্ষকদেরকে চাপে রেখে বিভিন্ন ভাবে টাকা আদায় করে থাকেন যে কেউ এদের চালাকি বুঝতেও পারেন না। তাই এই ধরনের সিন্ডিকেট যদি ভেঙে দিতে হয় দুদকের বিশেষ টিম এর মাধ্যমে দায়িত্ব দেয়া যেতে পারে।
rezaemostafa, ১৪ মে, ২০২০
দেশের সকল মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাদের একটি বড় শক্তিশালী সিন্ডিকেট রয়েছে। তারা বিভিন্নভাবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে তাদেরকে চাপে রেখে বিভিন্ন ভাবে টাকা আদায় করে থাকেন যে কেউ এদের চালাকি বুঝতেও পারেন না। তাই এই ধরনের সিন্ডিকেট যদি ভেঙে দিতে হয় দুদকের বিশেষ টিম এর মাধ্যমে দায়িত্ব দেয়া যেতে পারে।
Mohammad Mahabubul Alam, ১৪ মে, ২০২০
ব্যাকডেটে মোটা অঙ্কের টাকা নিয়ে নিয়োগ এবং প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সার্টিফিকেট ক্রয় করে প্রতিষ্ঠানের প্রধান হিসাবে বহাল। বি এড না করে ব্যাকডেটে সার্টিফিকেট ক্রয় সাবমিট। এম পি ও করতে বিভিন্ন জায়গায় লক্ষ লক্ষ টাকা লেগেছে দেখিয়ে প্রতিষ্ঠানের প্রধান প্রত্যেক শিক্ষক /কর্মচারীদের নিকট থেকে টাকা নিয়েছে।
Mohammad Mahabubul Alam, ১৪ মে, ২০২০
ব্যাকডেটে মোটা অঙ্কের টাকা নিয়ে নিয়োগ এবং প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সার্টিফিকেট ক্রয় করে প্রতিষ্ঠানের প্রধান হিসাবে বহাল। বি এড না করে ব্যাকডেটে সার্টিফিকেট ক্রয় সাবমিট। এম পি ও করতে বিভিন্ন জায়গায় লক্ষ লক্ষ টাকা লেগেছে দেখিয়ে প্রতিষ্ঠানের প্রধান প্রত্যেক শিক্ষক /কর্মচারীদের নিকট থেকে টাকা নিয়েছে।
Md. Jahangir Alam, ১৪ মে, ২০২০
13-05-2020 তারিখের মধ্যে নতুন এমপিও/স্তর পরিবর্তন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিও আবেদন আঞ্চলিক অফিস হতে নিস্পতি করার কথা। কিন্তু অনেক এমপিও আবেদন ফাইল আঞ্চলিক অফিসে এখন পর্যন্ত কোন নিস্পতি হয়নি। কারন জনতে চাই।
rezaemostafa, ১৩ মে, ২০২০
নিশ্চয় তাদের কাগজপত্র প্রেরণ এর মধ্যে কোন জালিয়াতি রয়েছে। নতুবা তিনিও কেন ঘুষ নিল? আর তারাও কেন ঘুষ দিল? তাই ব্যাপারটির রহস্য জানার জন্য আসল জায়গায় হাত দিলে সব কিছু বেরিয়ে আসবে।।
rezaemostafa, ১৩ মে, ২০২০
এমপিওভুক্তির জন্য চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রধানরা বলছেন, প্রায় প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীদের আবেদন পাঠাতে দুই লাখ টাকা করে দাবি করেছেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা। প্রশ্ন হচ্ছে তারা কেন মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে ঘুষ দিল? শিক্ষকরা কেন এত বড় ফেরেশতা হয়ে গেল? কথায় বলে-গাছের পাতা বাতাস ছাড়া এমনে নড়ে না।