অসুস্থ মনিবের জন্য হাসপাতাল গেটে কুকুরের ৬ দিন অপেক্ষা (ভিডিও) - ভিডিও এ্যালবাম - দৈনিকশিক্ষা


অসুস্থ মনিবের জন্য হাসপাতাল গেটে কুকুরের ৬ দিন অপেক্ষা (ভিডিও)

দৈনিকশিক্ষা ডেস্ক |

বলা হয় কুকুর হলো মানুষের সেরা বন্ধু। সেটা আরেকবার প্রমাণ করলো তুরস্কের একটি কুকুর। মনিব অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হলে টানা ছয়দিন তার পোষা অনুগত কুকুরটি প্রবেশ গেটে অবস্থান করে। হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার আগ পর্যন্ত ঠাঁয় অপেক্ষায় ছিল সে।

সেমাল সেনটার্ককে অ্যাম্বুলেন্সে করে তুরস্কের ট্রাবজনের মেডিক্যাল পার্ক হাসপাতালে নেওয়া হয় ১৪ জানুয়ারি। তার পোষা কুকুর বোনকুকও অ্যাপার্টমেন্ট থেকে বেরিয়ে অ্যাম্বুলেন্স অনুসরণ করে হাসপাতালে পৌঁছায়। দিনের পর দিন সে হাসপাতালের বাইরের প্রবেশপথে অপেক্ষা করতে থাকে। 

হাসপাতালের কর্মীরা বিষয়টি জানতে পেরে বিশ্বস্ত বন্ধু সম্পর্কে সেনটার্কের পরিবারকে জানান।

পরে সেনটার্কের পরিবারের সদস্যরা বনকুককে বাড়িতে ফিরিয়ে নিয়ে গেলে সে আবার বাসা থেকে পালিয়ে ঠিকই হাসপাতালে পৌঁছায় এবং অপেক্ষা করতে থাকে। সিএনএনকে বিষয়টি জানান হাসপাতালটির আন্তর্জাতিক রোগী সেন্টারের ডিরেক্টর মুরাত এরক্যান।

মুরাত এরক্যান বলেন, তার কুকুর বনকুক অ্যাম্বুলেন্স ফলো করে হাসপাতালে আসে এবং সে কোনোভাবেই তার মনিব হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার আগ পর্যন্ত গেট থেকে নড়েনি। এমনকী পরিবারের সদস্যরা ফিরিয়ে নিয়ে গেলেও সে ফের পালিয়ে হাসপাতাল গেটে এসে অপেক্ষা করছিল। তার এ অপেক্ষাই হাসপাতালের কর্মীদের নজর কাড়ে।

বনকুক সেনটার্কের সঙ্গে আছে নয় বছর ধরে। হাসপাতালে থাকাকালীন তিনিও বনকুককে মিস করতেন বলে জানান সুস্থ হওয়ার পর।

ভিডিও সৌজন্যে : টেলিগ্রাফ

হাসপাতালটি সেনটার্কের অ্যাপার্টমেন্টের কাছাকাছি ছিল। তবে পরিবারের অন্য সদস্যরা উদ্ধার করতে পারেননি যে কীভাবে বনকুক বারবার বেরিয়ে যাচ্ছিল।

হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর সেনটার্ক গেট থেকে বের হতেই বনকুকের দেখা পান। বনকুক প্রিয় মনিবকে দেখে আহ্লাদে ভেসে যায়। লেজ নেড়ে, হুইলচেয়ারে পা তুলে, পায়ে কামড়ে সে তার ভালোবাসা ও আনন্দ প্রকাশ করতে থাকে। টানা ছয়দিন তার মনিবের প্রতি এ ভালোবাসা হাসপাতালের সবার নজর কাড়ে।


পাঠকের মন্তব্য দেখুন
৪৩ লাখ শিক্ষার্থীর টিউশন ফি-উপবৃত্তির হাজার কোটি টাকা বিতরণ শুরু - dainik shiksha ৪৩ লাখ শিক্ষার্থীর টিউশন ফি-উপবৃত্তির হাজার কোটি টাকা বিতরণ শুরু এসএসসি-এইসএসসি পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত শিগগির : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha এসএসসি-এইসএসসি পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত শিগগির : শিক্ষামন্ত্রী দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে - dainik shiksha দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবিতে ‘শিক্ষক-অভিভাবক’ সমাবেশ ২৬ জুন - dainik shiksha শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবিতে ‘শিক্ষক-অভিভাবক’ সমাবেশ ২৬ জুন এনজিওর হাতে যাচ্ছে সরকারি হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা! - dainik shiksha এনজিওর হাতে যাচ্ছে সরকারি হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা! বিলের মধ্যে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্র: এক চিঠিতেই আটকে গেল ভূমি অধিগ্রহণ - dainik shiksha বিলের মধ্যে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্র: এক চিঠিতেই আটকে গেল ভূমি অধিগ্রহণ ঢাকার রাস্তায় প্রাইভেট ক্যামেরা, ফুটেজের ব্যবসা! - dainik shiksha ঢাকার রাস্তায় প্রাইভেট ক্যামেরা, ফুটেজের ব্যবসা! নির্মাণাধীন ম্যাটসে মেঝে ভরাটে বালুর পরির্বতে মাটি - dainik shiksha নির্মাণাধীন ম্যাটসে মেঝে ভরাটে বালুর পরির্বতে মাটি উচ্চশিক্ষার ক্ষতি পোষাতে শিক্ষাবর্ষের সময় কমানো ও ছুটি বাতিলের পরামর্শ - dainik shiksha উচ্চশিক্ষার ক্ষতি পোষাতে শিক্ষাবর্ষের সময় কমানো ও ছুটি বাতিলের পরামর্শ please click here to view dainikshiksha website