এখনও করোনামুক্ত দেশের যে এলাকা - করোনা আপডেট - দৈনিকশিক্ষা


এখনও করোনামুক্ত দেশের যে এলাকা

নোয়াখালী প্রতিনিধি |

দেশের একমাত্র করোনামুক্ত এলাকা নোয়াখালীর ভাসানচর। গত ৬ মাস ধরে এখানে সাড়ে ১৮ হাজার রোহিঙ্গাসহ প্রায় ২০ হাজার মানুষের বসবাস হলেও কোনো রোগী শনাক্ত হয়নি। এমনকি করোনা উপসর্গের কোনো রোগীও পাওয়া যায়নি হাসপাতালে।

করোনার প্রথম ও দ্বিতীয় ওয়েভের পর এবার আরেকটি নিয়ে বিশ্বের মতো বাংলাদেশও শঙ্কিত। দেশের প্রতিটি স্থানেই করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। তবে পুরোপুরি ব্যতিক্রম নোয়াখালীর ভাসানচর। গত ৬ মাসে রোহিঙ্গাদের মাধ্যমে মানববসতি গড়ে উঠার পর থেকে এখানে কোনো করোনা রোগী শনাক্ত হয়নি।

সরকারি হাসপাতালেও আসেনি করোনা উপসর্গের কোনো রোগী বলে জানান ভাসানচর সরকারি হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. শঙ্খজিৎ সমাজপতি।

তিনি বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে দেয়া হচ্ছে সেবা। আর যারা আসছে তারাও সেটা মেনে আসছেন, এখন পর্যন্ত কোনো রোগী শনাক্ত করতে পারিনি।  

ভাসানচর সরকারি হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. রাজু সিংহ বলেন, তারা আসলে এখানে মূলত ভিন্ন আছে, যার কারণে করোনা সংক্রমণটা খুবই কম।

গত ৪ ডিসেম্বর থেকে রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে স্থানান্তরের প্রক্রিয়া শুরু হয়। ৬ দফায় মোট সাড়ে ১৮ হাজার রোহিঙ্গাকে নিয়ে আসা হয়েছে এখানে। মূলত ভাসানচরে আসার আগে যথাযথ বিধিনিষেধ পালন করায় এই চরকে করোনামুক্ত রাখা সম্ভব হয়েছে বলে মনে করছেন ভাসানচর আশ্রয়ণ প্রকল্পের পরিচালক কমডোর রাশেদ সাত্তার।

তিনি বলেন, প্রত্যেককে পরীক্ষা করে ভেতরে প্রবেশ করানো হয়। এরপর তাদের কোভিড সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য জানানো হয় তারপর তাদের ক্লাস্টারে পাঠানো হয়।  

বিভিন্ন এলাকার সাধারণ মানুষ থেকে পৃথক থাকার কারণেই করোনামুক্ত বলে মনে করেন এখানকার রোহিঙ্গারা।

রোহিঙ্গা ছাড়াও এ চরে দেড় হাজারের বেশি সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী, নৌবাহিনীসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য সার্বক্ষণিক অবস্থান করছেন। আরও রয়েছেন কয়েকশ’ নির্মাণশ্রমিক- নৌকার মাঝি, মহিষ বাতান মালিক ও কৃষক।


পাঠকের মন্তব্য দেখুন
৪৩ লাখ শিক্ষার্থীর টিউশন ফি-উপবৃত্তির হাজার কোটি টাকা বিতরণ শুরু - dainik shiksha ৪৩ লাখ শিক্ষার্থীর টিউশন ফি-উপবৃত্তির হাজার কোটি টাকা বিতরণ শুরু এসএসসি-এইসএসসি পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত শিগগির : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha এসএসসি-এইসএসসি পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত শিগগির : শিক্ষামন্ত্রী দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে - dainik shiksha দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবিতে ‘শিক্ষক-অভিভাবক’ সমাবেশ ২৬ জুন - dainik shiksha শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবিতে ‘শিক্ষক-অভিভাবক’ সমাবেশ ২৬ জুন এনজিওর হাতে যাচ্ছে সরকারি হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা! - dainik shiksha এনজিওর হাতে যাচ্ছে সরকারি হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা! বিলের মধ্যে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্র: এক চিঠিতেই আটকে গেল ভূমি অধিগ্রহণ - dainik shiksha বিলের মধ্যে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্র: এক চিঠিতেই আটকে গেল ভূমি অধিগ্রহণ ঢাকার রাস্তায় প্রাইভেট ক্যামেরা, ফুটেজের ব্যবসা! - dainik shiksha ঢাকার রাস্তায় প্রাইভেট ক্যামেরা, ফুটেজের ব্যবসা! নির্মাণাধীন ম্যাটসে মেঝে ভরাটে বালুর পরির্বতে মাটি - dainik shiksha নির্মাণাধীন ম্যাটসে মেঝে ভরাটে বালুর পরির্বতে মাটি উচ্চশিক্ষার ক্ষতি পোষাতে শিক্ষাবর্ষের সময় কমানো ও ছুটি বাতিলের পরামর্শ - dainik shiksha উচ্চশিক্ষার ক্ষতি পোষাতে শিক্ষাবর্ষের সময় কমানো ও ছুটি বাতিলের পরামর্শ please click here to view dainikshiksha website