এন আই খানের বিদেশ যাত্রা: হাইকোর্টের সেই আদেশ স্থগিত - এন আই খান - দৈনিকশিক্ষা


এন আই খানের বিদেশ যাত্রা: হাইকোর্টের সেই আদেশ স্থগিত

নিজস্ব প্রতিবেদক |

ভুল প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে সাবেক শিক্ষা সচিব এন আই খানের বিদেশ যাত্রার ওপর হাইকোর্টের দেয়া নিষেধাজ্ঞার  আদেশ স্থগিত করেছেন চেম্বার আদালত। গত বছর হাইকোর্টের আদেশে ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের চেয়ারম্যান নিযুক্ত হন সাবেক শিক্ষাসচিব মো: নজরুল ইসলাম খান। কিন্তু গত মাসে হাইকোর্টের আরেকটি বেঞ্চ পিকে হালদারসহ ২৫জনের বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞায় এন আই খানের নামও যুক্ত করে। এত বড় ভুলে সামাজিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হন এন আই খান। হাইকোর্টের আদেশ দেখে সারাদেশে সমালোচনার ঝড় ওঠে। এরপর বাংলাদেশ ব্যাংক তাদের এক প্রতিবেদনে হাইকোর্টকে জানায় ভুলক্রমে ২৫জনের তালিকায় এন আই খানের নাম চলে এসেছে।  এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও রিলায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রশান্ত কুমার (পিকে হালদার) হালদারের সঙ্গে ভুলক্রমে এন আই খানের নাম যুক্ত হয়। 

হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে আর্থিক প্রতিষ্ঠানটির করা আবেদনের শুনানি নিয়ে রোববার (২৪ জানুয়ারি) বিচারপতি মো. নূরুজ্জামানের চেম্বার আদালত এ স্থগিতাদেশ দেন।

আদালতে দুদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক। ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মেহেদি হাসান চৌধুরী।

এর আগে ভুক্তভোগীদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে পিকে হালদারের মা লিলাবতী হালদারসহ ২৫ জনের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা দেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে ওই ২৫ জনকে প্রয়োজনে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারবে বলেও আদেশ দেন আদালত। গত ৫ জানুয়ারি বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

বিদেশ গমনে যাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়, তারা হলেন প্রতি সপ্তাহে পিকে হালদারের সঙ্গে যোগাযোগকারী: ১. হারুনুর রশিদ ( ফার্স্ট ফাইন্যান্স), ২. উজ্জ্বল কুমার নন্দী, ৩. সামি হুদা, ৪. অমিতাভ অধিকারী, ৫. মিস অবন্তিকা বড়াল, ৬. মিস শামীমা ( ইন্টারন্যাশনাল লিজিং), ৭. মিস রুনাই ( ইন্টারন্যাশনাল লিজিং), ৮. আই খান  ( ইন্টারন্যাশনাল লিজিং), ৯. সুকুমার মৃধা (ইনকাম ট্যাক্স আইনজীবী), ১০. মিস অনিন্দিতা মৃধা, ১১. তপন দে, ১২. স্বপন কুমার মিস্ত্রি, ১৩. অভিজিৎ চৌধুরী, ১৪. রাজিব সোম, ১৫. ইরফান উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী (ব্যাংক এশিয়া’র সাবেক এমডি), ১৬. অঞ্জন মোহন রায়, ১৭. নঙ্গ চৌ মং, ১৮. নিজামুল আহসান, ১৯. মানিক লাল সমাদ্দার, ২০. সোহেল সামস। এছাড়া পিকে হালদারকে বিভিন্নভাবে তথ্য দিয়ে সহযোগিতাকারী ১.  মাহবুব মুসা, ২. একিও সিদ্দিকী, ৩. মোয়াজ্জেম হোসেন  ৪, পিকে হালদারের মা লিলাবতী হালদার এবং ৫. বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর এসকে শুরকেও বিদেশ গমনে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন আদালত।

গত ৩ জানুয়ারি পিকে হালদারের প্রতারণার শিকার সাবেক প্রধান বিচারপতি মোস্তফা কামালের মেয়েসহ ভুক্তভোগী বিনিয়োগকারীরা রুল শুনানিতে পক্ষভুক্ত হন।

২০২০ খ্রিষ্টাব্দের ৭ সেপ্টেম্বর হাইকোর্টের একই বেঞ্চে এ সংক্রান্ত একটি আবেদন করেছিল আইএলএফএসএল। সেই আবেদনের শুনানি নিয়ে আদালত জানিয়েছিলেন, পিকে হালদার কবে, কখন, কীভাবে দেশে ফিরতে চান তা আইএলএফএসএল লিখিতভাবে জানালে সে বিষয়ে পরবর্তী আদেশ দেয়া হবে।

পরবর্তীতে পিকে হালদারের দেশে ফেরার বিষয়ে ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের ২০ অক্টোবর হাইকোর্টকে জানায়। পিকে হালদারের প্রতিষ্ঠান আইএলএফএসএল’র পক্ষ থেকে হাইকোর্টকে জানানো হয়, পরে ২৫ অক্টোবর দুবাই থেকে অ্যামিরেটস এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে ঢাকা আসার জন্য টিকিট কেটেছেন। বাংলাদেশ সময় সকাল ৮টায় ফ্লাইটটি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করার কথা রয়েছে।

সার্বিক দিক বিবেচনার পর প্রশান্ত কুমার (পিকে হালদার) হালদারকে দেশে ফেরার অনুমতি দেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে পিকে হালদার দেশে ফেরার সঙ্গে সঙ্গে তাকে গ্রেফতার করতে পুলিশের আইজি এবং ইমিগ্রেশন পুলিশকে নির্দেশ দেন আদালত। পাশাপাশি কারাগারে থাকাবস্থায় পিকে হালদার যেন অর্থ পরিশোধের সুযোগ পান, সে বিষয়ে সুযোগ দিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। পিকে হালদারের দেশে ফেরার বিষয়ে আইএলএফএসএলের করা আবেদনের শুনানি শেষে বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চ এসব আদেশ দেন। তবে পরে আর তিনি অসুস্থ্যতার কারণ দেখিয়ে দেশে ফেরেননি।

প্রসঙ্গত, ইন্টারন্যাশনাল লিজিং থেকেই ১ হাজার ৫০০ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে পিকে হালদারের বিরুদ্ধে। এছাড়াও সব মিলিয়ে প্রায় ৩ হাজার ৫০০ কোটি টাকা তিনি আত্মসাৎ করেছেন বলে বিভিন্ন গণমাধ্যমে একের পর এক সংবাদ প্রকাশিত হয়। এসময় গোপনে কানাডায় পাড়ি জমান তিনি।


পাঠকের মন্তব্য দেখুন
গাড়িচাপায় নারীর মৃত্যু : ঢাবির সেই চাকরিচ্যুত শিক্ষক গ্রেফতার - dainik shiksha গাড়িচাপায় নারীর মৃত্যু : ঢাবির সেই চাকরিচ্যুত শিক্ষক গ্রেফতার প্রাথমিকের বৃত্তি পরীক্ষা ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে - dainik shiksha প্রাথমিকের বৃত্তি পরীক্ষা ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে স্বজনদের না পাওয়ায় অপারেশন হচ্ছে না গণপিটুনির শিকার শিক্ষকের - dainik shiksha স্বজনদের না পাওয়ায় অপারেশন হচ্ছে না গণপিটুনির শিকার শিক্ষকের স্কুলে কর্মচারী নিয়োগে ৬০ লাখ টাকা ঘুষ, তদন্ত শুরু - dainik shiksha স্কুলে কর্মচারী নিয়োগে ৬০ লাখ টাকা ঘুষ, তদন্ত শুরু কোচিংয়ে পড়তে না চাওয়ায় ছাত্র ও তার বাবাকে মারধর - dainik shiksha কোচিংয়ে পড়তে না চাওয়ায় ছাত্র ও তার বাবাকে মারধর কলকাতায় ১০ম বাংলাদেশ বইমেলা শুরু - dainik shiksha কলকাতায় ১০ম বাংলাদেশ বইমেলা শুরু কর্মকর্তাদের নাম ভাঙিয়ে প্রতারণা, শিক্ষা অধিদপ্তরের সতর্কতা - dainik shiksha কর্মকর্তাদের নাম ভাঙিয়ে প্রতারণা, শিক্ষা অধিদপ্তরের সতর্কতা please click here to view dainikshiksha website Execution time: 0.0035409927368164