কোয়ারেন্টিনে থাকা ভারতফেরত এক ব্যক্তির মৃত্যু - করোনা আপডেট - দৈনিকশিক্ষা


কোয়ারেন্টিনে থাকা ভারতফেরত এক ব্যক্তির মৃত্যু

যশোর প্রতিনিধি |

যশোর শহরের বলাকা হোটেলে কোয়ারেন্টিনে থাকা ভারতফেরত এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। আজ রোববার বেলা সোয়া তিনটার দিকে হোটেলকক্ষে বিমল চন্দ্র দে (৫৬) নামের ওই ব্যক্তি মারা যান। বিমল চন্দ্র শরীয়তপুর সদর উপজেলার পালং এলাকার গৌরাঙ্গ চন্দ্র দের ছেলে।

আরও পড়ুন : দৈনিক শিক্ষাডটকম পরিবারের প্রিন্ট পত্রিকা ‘দৈনিক আমাদের বার্তা’

পুলিশ ও স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসার জন্য বিমল চন্দ্র ভারতে যান। ৮ মে তিনি বেনাপোল ইমিগ্রেশন দিয়ে দেশে ফেরেন। অসুস্থ অবস্থায় ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে বলাকা হোটেলে তাঁকে রাখা হয়। আজ দুপুরে তিনি হোটেলেই মারা যান।

মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে যশোরের সিভিল সার্জন শেখ আবু শাহীন বলেন, করোনা নেগেটিভ সনদ নিয়ে তিনি ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করেন। ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে তিনি মারা যান। তাঁর শরীরে করোনাভাইরাস ছিল কি না, তা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

অ্যান্টিজেন পরীক্ষায় পাঁচজনের করোনা

এদিকে ১৪ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকার পর করোনা পরীক্ষার মাধ্যমে ছাড়পত্র দেওয়ার জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। গত শুক্রবার এ প্রজ্ঞাপন জারির পর অ্যান্টিজেন পরীক্ষার মাধ্যমে গতকাল শনিবার থেকে কোয়ারেন্টিনে থাকা যাত্রীদের ছাড়পত্র দেওয়া হচ্ছে। গতকাল অ্যান্টিজেন পরীক্ষায় পাঁচজনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। পরে তাঁদের আবার পিসিআর ল্যাবে করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়।

দৈনিক আমাদের বার্তার ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব ও ফেসবুক পেইজটি ফলো করুন

স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, অ্যান্টিজেন পরীক্ষায় যাঁদের শরীরে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়, তাঁরা সবাই করোনা নেগেটিভ অবস্থায় ভারত থেকে দেশে ফেরেন। কোয়ারেন্টিনে থেকেই তাঁরা করোনা পজিটিভ হয়েছেন। তাঁদের যশোর জেনারেল হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি রাখা হয়েছে।

তবে আজ থেকে অ্যান্টিজেন পরীক্ষা বাদ দিয়ে সরাসরি পিসিআর ল্যাবে পরীক্ষার জন্য কোয়ারেন্টিনে থাকা ব্যক্তিদের নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে। কোয়ারেন্টিনে থাকা ৬৯ জনের নমুনা সংগ্রহ করে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনোম সেন্টার ল্যাবে পিসিআর পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। তাঁদের মধ্যে যাঁদের করোনা নেগেটিভ হবে, তাঁদের নিজ বাড়িতে ফেরার জন্য ছাড়পত্র দেওয়া হবে।

সিভিল সার্জন শেখ আবু শাহীন বলেন, স্বাস্থ্য বিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ী ভারত থেকে ফেরা যাত্রীদের ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন শেষে করোনাভাইরাস পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। যাঁদের করোনা নেগেটিভ প্রতিবেদন আসবে, তাঁরাই কেবল ছাড়পত্র পাবেন। কারণ, কোয়ারেন্টিনে থেকে অনেকে করোনা পজিটিভ হচ্ছেন।

পলাতক করোনা রোগীর সন্ধান মেলেনি

যশোর জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, ভারতে নতুন ধরনের করোনা ছড়িয়ে পড়ার পর সরকার গত ২৬ এপ্রিল ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে সীমান্ত বন্ধ করতে বিধিনিষেধ জারি করে। ২৬ এপ্রিল থেকে আজ পর্যন্ত বেনাপোল দিয়ে দেশে ফেরেন ২ হাজার ৭৯৬ জন। এর মধ্যে ১ হাজার ২৭৬ জন যশোরে এবং খুলনা বিভাগের অন্যান্য জেলায় ১ হাজার ৫১৫ জনকে কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়। যশোরের বিভিন্ন আবাসিক হোটেল থেকে এ পর্যন্ত ৬২১ জন ছাড়পত্র নিয়ে বাড়িতে ফিরে গেছেন।

এদিকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে দেশে ফেরার পর যশোর জেনারেল হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যাওয়া ইউনুস আলীর খোঁজ তিন দিনেও পাওয়া যায়নি। গত বৃহস্পতিবার তাঁকে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা যশোর জেনারেল হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে পাঠান। কিন্তু সন্ধ্যার দিকে তিনি ওই হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যান।

জানতে চাইলে যশোরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কাজী সায়েমুজ্জামান বলেন, মুঠোফোন ট্র্যাক করে পলাতক করোনা রোগীর অবস্থান নির্ণয়ের চেষ্টা করা হচ্ছে। পুলিশের দুটি দল তাঁকে আটকের জন্য অভিযান চালাচ্ছে।

কাজী সায়েমুজ্জামান বলেন, যশোর জেনারেল হাসপাতাল থেকে দুই দফায় ১১ জন করোনা রোগী পালিয়ে গেছেন। কেন বারবার রোগী পালিয়ে যাচ্ছেন, তা তদন্তের জন্য দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যায় করোনা প্রতিরোধ কমিটির জরুরি সভায় এ বিষয়ে কয়েকটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।


পাঠকের মন্তব্য দেখুন
৪৩ লাখ শিক্ষার্থীর টিউশন ফি-উপবৃত্তির হাজার কোটি টাকা বিতরণ শুরু - dainik shiksha ৪৩ লাখ শিক্ষার্থীর টিউশন ফি-উপবৃত্তির হাজার কোটি টাকা বিতরণ শুরু এসএসসি-এইসএসসি পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত শিগগির : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha এসএসসি-এইসএসসি পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত শিগগির : শিক্ষামন্ত্রী দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে - dainik shiksha দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবিতে ‘শিক্ষক-অভিভাবক’ সমাবেশ ২৬ জুন - dainik shiksha শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবিতে ‘শিক্ষক-অভিভাবক’ সমাবেশ ২৬ জুন এনজিওর হাতে যাচ্ছে সরকারি হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা! - dainik shiksha এনজিওর হাতে যাচ্ছে সরকারি হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা! বিলের মধ্যে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্র: এক চিঠিতেই আটকে গেল ভূমি অধিগ্রহণ - dainik shiksha বিলের মধ্যে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্র: এক চিঠিতেই আটকে গেল ভূমি অধিগ্রহণ ঢাকার রাস্তায় প্রাইভেট ক্যামেরা, ফুটেজের ব্যবসা! - dainik shiksha ঢাকার রাস্তায় প্রাইভেট ক্যামেরা, ফুটেজের ব্যবসা! নির্মাণাধীন ম্যাটসে মেঝে ভরাটে বালুর পরির্বতে মাটি - dainik shiksha নির্মাণাধীন ম্যাটসে মেঝে ভরাটে বালুর পরির্বতে মাটি উচ্চশিক্ষার ক্ষতি পোষাতে শিক্ষাবর্ষের সময় কমানো ও ছুটি বাতিলের পরামর্শ - dainik shiksha উচ্চশিক্ষার ক্ষতি পোষাতে শিক্ষাবর্ষের সময় কমানো ও ছুটি বাতিলের পরামর্শ please click here to view dainikshiksha website