গ্রন্থাগার শিক্ষক-প্রভাষক নিয়োগের দায়িত্ব কার? - কলেজ - দৈনিকশিক্ষা


গ্রন্থাগার শিক্ষক-প্রভাষক নিয়োগের দায়িত্ব কার?

নিজস্ব প্রতিবেদক |

দীর্ঘ অপেক্ষার পর শিক্ষক মর্যাদা পেয়েছেন স্কুল ও কলেজে কর্মরত গ্রন্থাগারিক এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক ও ক্যটালগাররা। কিছুদিন আগে জারি করা বেসরকারি স্কুল ও কলেজের এমপিও নীতিমালা ও জনবলা কাঠামোতে গ্রন্থাগারিকদের পদের নতুন নাম ‘গ্রন্থাগার প্রভাষক’ এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যটালগারদের পদের নতুন নাম 'সহকারী শিক্ষক (গ্রন্থাগার ও তথ্য বিজ্ঞান)' করা হয়েছে। তবে, এতে নতুন প্রশ্ন সামনে এসেছে। এ পদগুলোতে নিয়োগ কি আগের মত হবে নাকি কমিটির মাধ্যমে নিয়োগ হবে নাকি এন্ট্রি লেভেলের অন্যান্য শিক্ষক পদের মতে পদগুলোতে এনটিআরসিএ নিয়োগ দেবে?-সে প্রশ্ন সারাদেশের শিক্ষক, প্রতিষ্ঠান প্রধান এবং এসব পদে নিয়োগ প্রত্যাশীদের।

যদিও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা বলছেন শিগগিরই এ বিষয়ে সুস্পষ্ট নির্দেশনা দেয়া হবে।

পঞ্চগড় থেকে শিক্ষক সাখাওয়াত প্রধান ডলার দৈনিক শিক্ষা ডটকমকে জানান, সহকারী শিক্ষক (গ্রন্থাগার ও তথ্য বিজ্ঞান) পদটি জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা ( স্কুল-কলেজ) ২০২১ এ শিক্ষক প্যাটার্নভুক্ত হয়েছে। এন্ট্রি লেভেলের প্যাটার্নভুক্ত শিক্ষক নিয়োগের ক্ষমতা এনটিআরসিএর। নীতিমালার ৭.১ ধারায় উল্লেখ আছে প্যাটার্নভুক্ত শূন্য পদের শিক্ষক-প্রদর্শক নিয়োগের তালিকা এনটিআরসিএতে পাঠাবেন । কিন্তু সারাদেশের কিছু অসৎ প্রতিষ্ঠান প্রধান মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে এই পদটিতে নিয়োগের পায়তারায় মেতে উঠেছেন। অনেকে আবার পূর্বের তারিখে নিয়োগ দেওয়ার চেষ্টা করছেন। 

তিনি আরও বলেন, কলেজের সংশ্লিষ্ট বিষয়ের প্রভাষক নিয়োগে গ্রন্থাগার ও তথ্য বিজ্ঞান বিষয়টি আগে থেকেই এনটিআরসিএর নিবন্ধন পরীক্ষার অন্তর্ভুক্ত ছিল। কিন্তু স্কুলে সহকারী শিক্ষক (গ্রন্থাগার ও তথ্য বিজ্ঞান) পদটি নতুন প্যাটার্নভুক্ত হওয়ায় দ্রুত এনটিআরসিএর অধীনে নেয়া উচিৎ।

এনটিআরসিএর অধীনে পদটির নিয়োগ নিলে স্কুল বা কলেজ কমিটিকে আর মোটা অংকের টাকা দিতে হবেনা। তাছাড়া নিবন্ধন পরীক্ষার আওতায় আসলে সহকারী  শিক্ষক( গ্রন্থাগার ও তথ্য বিজ্ঞান) পদটির মান বাড়বে এবং মেধাবীরা এই পেশার প্রতি আগ্রহী হবে।

দৈনিক শিক্ষা ডটকমের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে জানতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগ করা হয়। মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোমিনুর রশিদ আমিন দৈনিক শিক্ষাডটকমকে বলেন, 'গ্রন্থাগারিক এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক ও ক্যটালগাররা শিক্ষক মর্যাদার দাবি জানিয়েছিলেন। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে তারা শিক্ষক মর্যাদা পান কিন্তু বাংলাদেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে তাদের কর্মচারী হিসেবে বিবেচনা করা হতো। নতুন নীতিমালায় সে সমস্যা দূর করা হয়েছে। তাদের শিক্ষক মর্যাদা দেয়া হয়েছে।' 

তিনি দৈনিক শিক্ষাডটকমকে আরও বলেন, 'এ পদগুলোতে নিয়োগ কি পদ্ধতিতে হবে সে বিষয়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। শিগগিরই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়ে আদেশ জারি করে সকলকে জানানো হবে। লকডাউনের পরই আমরা বিষয়টি নিয়ে বসবো।' 

তিনি আরও বলেন, ' যদি এনটিআরসিএর মাধ্যমে এ পদে নিয়োগ দিতে হয়, সেক্ষেত্রে তাদের নিয়োগ পদ্ধতি পরীক্ষা পদ্ধতি এবং সক্ষমতা ইত্যাদি যাচাই করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। সার্বিক বিষয় পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব।'

তিনি আর বলেন, এমপিও নীতিমালাতেও বলা হয়েছে, কোন ধারার বিষয়ে সুস্পষ্ট নির্দেশনা লাগলে তা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ জারি করতে পারবে আমরা শিগগিরই এ বিষয়ে নির্দেশনা দিয়ে দেব।

২০১৩ খ্রিষ্টাব্দের ৫ মে এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে সহকারী গ্রন্থাগারিকদের কর্মচারী অর্থাৎ নন-টিচিং স্টাফ থেকে বাদ দেয় সরকার। কিন্তু তাদের অবস্থান কোন ক্যাটাগরিতে হবে তা উল্লেখ করা হয়নি। ফলে প্রতিদিনই তাঁরা নানাভাবে লাঞ্ছনা ও বঞ্চনার শিকার হচ্ছেন। 

মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী গ্রন্থাগারিকরা বিভিন্নভাবে অবহেলা ও বঞ্চনার শিকার হচ্ছিলেন। তারা জাতীয় বেতন স্কেলের ১০ম গ্রেডে বেতন-ভাতা পাওয়ার পরেও স্কুলে নানাভাবে অবহেলিত ছিলেন। সহকারী গ্রন্থাগারিকরা মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের নির্দেশনায় লাইব্রেরি ক্লাস নেন। পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানের চাহিদা মোতাবেক শ্রেণিকক্ষেও পাঠদান করান।

এদিকে শিক্ষক মর্যাদা পওয়ায় সন্তুষ্ট সারাদেশে কর্মরত গ্রন্থাগারিক এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক ও ক্যটালগাররা। তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনি, উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল ও শিক্ষাসচিব মো: মাহবুব হোসেন, অতিরিক্ত সচিব মোমিনুর রশিদ আমিনের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছে। আরও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন দৈনিক শিক্ষার প্রতি।

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেলের সাথেই থাকুন। ভিডিওগুলো মিস করতে না চাইলে এখনই দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন এবং বেল বাটন ক্লিক করুন। বেল বাটন ক্লিক করার ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভিডিওগুলোর নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে।

দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল  SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।


পাঠকের মন্তব্য দেখুন
কঠোর বিধিনিষেধ বাড়তে পারে আরও এক সপ্তাহ : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী - dainik shiksha কঠোর বিধিনিষেধ বাড়তে পারে আরও এক সপ্তাহ : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর উপহার পেলেন কিন্ডারগার্টেনের ১০০ শিক্ষক - dainik shiksha প্রধানমন্ত্রীর উপহার পেলেন কিন্ডারগার্টেনের ১০০ শিক্ষক বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ও স্টাডি সেন্টার বিদ্যমান আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক - dainik shiksha বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ও স্টাডি সেন্টার বিদ্যমান আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক দুই ধরনের দুই ডোজ টিকা নিলে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে - dainik shiksha দুই ধরনের দুই ডোজ টিকা নিলে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে করোনার প্রভাবে শিক্ষক এখন কচু ব্যবসায়ী - dainik shiksha করোনার প্রভাবে শিক্ষক এখন কচু ব্যবসায়ী মিতু হত্যা : সাবেক এসপি বাবুল আক্তারকে প্রধান আসামি করে মামলা - dainik shiksha মিতু হত্যা : সাবেক এসপি বাবুল আক্তারকে প্রধান আসামি করে মামলা ঘরে বসেই নতুন শিক্ষকদের ১০ দিনের অনলাইন প্রশিক্ষণ - dainik shiksha ঘরে বসেই নতুন শিক্ষকদের ১০ দিনের অনলাইন প্রশিক্ষণ এমপিও কমিটির ভার্চুয়াল সভা ১৭ মে - dainik shiksha এমপিও কমিটির ভার্চুয়াল সভা ১৭ মে শিক্ষক পাবেন পাঁচ হাজার, কর্মচারী আড়াই হাজার টাকা করে - dainik shiksha শিক্ষক পাবেন পাঁচ হাজার, কর্মচারী আড়াই হাজার টাকা করে সেহরি ও ইফতারের সূচি - dainik shiksha সেহরি ও ইফতারের সূচি দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে - dainik shiksha দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে ‘কওমি মাদরাসায় জাতীয় চেতনা ও সংস্কৃতিবোধ উপেক্ষিত’ - dainik shiksha ‘কওমি মাদরাসায় জাতীয় চেতনা ও সংস্কৃতিবোধ উপেক্ষিত’ please click here to view dainikshiksha website