জাল নিবন্ধন সনদে শিক্ষকতা, সরকারিকরণের পর ধরা - কলেজ - দৈনিকশিক্ষা


জাল নিবন্ধন সনদে শিক্ষকতা, সরকারিকরণের পর ধরা

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি |

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ সরকারি মাহতাব উদ্দীন ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক ফাতেমা খাতুন জাল সনদে চাকরি করছেন। জাল সনদে প্রতিষ্ঠানটির বেসরকারি আমলে চাকরি নিলেও সম্প্রতি কলেজটি সরকারি হলে জালসনদের বিষয়টি ফাঁস হয়েছে। একই জালসনদে তিনি তিনটি কলেজে চাকরি করেছেন বলেও অভিযোগ আছে। সম্প্রতি প্রভাষক ফাতেমা খাতুনের সনদটি জাল বলে যাচাই প্রতিবেদন দিয়েছে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যায়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)। একই সাথে জালসনদধারী এ শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতে বলা হয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষকে। 

সরকারি মাহতাব উদ্দীন ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক ফাতেমা খাতুন

অভিযোগ আছে, কালীগঞ্জের মাহতাব উদ্দীন ডিগ্রী কলেজটি সরকারিকরণের পক্রিয়া শুরু হলে তড়িঘড়ি করে যোগদান করেন ফাতেমা খাতুন। এখন তিনি প্রতিষ্ঠানটির ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক হিসেবে কর্মরত আছেন। ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের আগস্টে ২৭১টি কলেজের সাথে প্রতিষ্ঠানটি সরকারি হয়। এরপর আত্তীকরণের প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে প্রভাষক ফাতেমা খাতুনের সনদটি যাচাইয়ের জন্য এনটিআরসিএতে পাঠানো হয়েছে। গত ১৭ সেপ্টেম্বর তার সনদ যাচাই করে প্রতিবেদন দিয়েছে এনটিআরসিএ।   


     
এনটিআরসিএ দেয়া প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যে সনদটি ব্যবহার করে প্রভাষক ফাতেমা খাতুন চাকরি নিয়েছেন শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ন আব্দুল লতিফের মেয়ে ফতেমা খাতুনের। ওই প্রার্থীর বাবা ও মায়ের নাম আলাদা। সে সনদে বাবা-মায়ের নাম পরিবর্তন করে সনদটি জাল করে নিজের নামে চালিয়ে দেন প্রভাষক ফাতেমা।  

কয়েকটি সূত্র দৈনিক শিক্ষাডটকমকে জানায়, কালীগঞ্জের ইয়াকুব আলীর মেয়ে ফাতেমা খাতুন ২০১২ খ্রিষ্টাব্দে ৮ম নিবন্ধন পরীক্ষার জাল সনদ নিয়ে প্রথমে যশোরের একটি কলেজে চাকরি নেন। সেখান থেকে এমপিওভুক্ত হয়ে কালীগঞ্জ শহীদ নুর আলী কলেজে যোগদান করেন। ওই জাল সনদের সাহায্যেই এমপিওভোগ করতেন তিনি। 

এনটিআরসিএর দেয়া সনদ যাচাই প্রতিবেদনে, জাল ও ভুয়া সনদধারী শিক্ষকের বিরুদ্ধে কালীগঞ্জ থানায় মামলা রুজু করতে সরকারী মাহতাব উদ্দীন ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। 

এ বিষয়ে কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আব্দুল মজিদ মন্ডল জানান, আমি এখনো বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যায়ন কর্তৃপক্ষর চিঠি পায়নি। চিঠি পেলে নির্দেশমতে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে দৈনিক শিক্ষার চ্যানেলের সাথেই থাকুন। ভিডিওগুলো মিস করতে না চাইলে এখনই দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন এবং বেল বাটন ক্লিক করুন। বেল বাটন ক্লিক করার ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে সয়ংক্রিয়ভাবে ভিডিওগুলোর নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে।

দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE  করতে ক্লিক করুন।


পাঠকের মন্তব্য দেখুন
১৩তম গ্রেডে বেতন পাবেন প্রাথমিকের সব শিক্ষক - dainik shiksha ১৩তম গ্রেডে বেতন পাবেন প্রাথমিকের সব শিক্ষক প্রাথমিকে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীর সংখ্যা জানতে চেয়ে চিঠি - dainik shiksha প্রাথমিকে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীর সংখ্যা জানতে চেয়ে চিঠি স্বপদে বহাল ষাটোর্ধ্ব প্রধান শিক্ষক, সরকারি আদেশ উপেক্ষা - dainik shiksha স্বপদে বহাল ষাটোর্ধ্ব প্রধান শিক্ষক, সরকারি আদেশ উপেক্ষা দেশে এল করোনার টিকা - dainik shiksha দেশে এল করোনার টিকা ইএফটিতে বেতন : এমপিও সংশোধন নিয়ে শিক্ষকদের দুশ্চিন্তা বন্ধের উদ্যোগ চাই - dainik shiksha ইএফটিতে বেতন : এমপিও সংশোধন নিয়ে শিক্ষকদের দুশ্চিন্তা বন্ধের উদ্যোগ চাই অ্যাসাইনমেন্টেই এইচএসসি বিএম-ভোকেশনালের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন - dainik shiksha অ্যাসাইনমেন্টেই এইচএসসি বিএম-ভোকেশনালের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন টাইমস্কেল : শিক্ষকদের রিট নিষ্পত্তির আদেশ নিয়ে যা বললেন আইনজীবী (ভিডিও) - dainik shiksha টাইমস্কেল : শিক্ষকদের রিট নিষ্পত্তির আদেশ নিয়ে যা বললেন আইনজীবী (ভিডিও) পিকে হালদার কাণ্ডে এন আই খানের নাম ভুলভাবে যুক্ত হওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের আবেদন - dainik shiksha পিকে হালদার কাণ্ডে এন আই খানের নাম ভুলভাবে যুক্ত হওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের আবেদন বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় ন্যূনতম ফি নেয়ার সিদ্ধান্ত - dainik shiksha বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় ন্যূনতম ফি নেয়ার সিদ্ধান্ত সংসদে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবি - dainik shiksha সংসদে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবি please click here to view dainikshiksha website