ঝাড়ুদার মাকছুদা অতিথি হওয়ায় কৃতজ্ঞ অধ্যক্ষ

দৈনিক শিক্ষাডটকম, সাবিহা সুমি |

দৈনিক শিক্ষাডটকম, সাবিহা সুমি : ‘অনেক ভালো লাগতেছে, আনন্দ লাগতেছে। আমি যে অংশগ্রহণ করছি, আমার অনেক আনন্দ লাগতাছে, ভালো লাগতাছে, ফূর্তি লাগতাছে।’

এই স্বতস্ফূর্ত অনুভূতি পরিচ্ছন্নতা কর্মী মাকছুদা বেগমের। বৃহস্পতিবার তিনি ছিলেন সরকারি মোহাম্মদপুর মডেল স্কুল এন্ড কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি।  

স্বামী অনেক আগেই গত। দুই ছেলে ও এক মেয়ে নিয়ে মাকছুদার বসবাস গাবতলী সিটি কলোনিতে। ঢাকার উত্তর সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্নতা কর্মী হয়ে কাজ করে আসছেন বহুবছর। তার কাজ রাস্তা ঝাড়ু দেয়া। নাগরিক ময়লা পরিষ্কার করেন প্রতিদিন।

যাদের ময়লা পারিষ্কার করেন তারা কখনো তার দিকে ফিরেও চান না। তাই কখনো স্কুলের অনুষ্ঠানে তাকে বিশেষ অতিথি করা হবে এমন চিন্তা কস্মিনকালেও করেননি। করার কথাও নয়। কদিন আগেও এমন কিছু সম্ভব কিনা জানতে চাইলে হয়তো বলতেন- অসম্ভব। কিন্তু আপাত অসম্ভব এই কর্মটিরই সফল বাস্তবায়ন করেছেন সরকারি মোহাম্মদপুর মডেল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ লে. কর্নেল কামাল আকবর।

কেনো এমন ব্যতিক্রমী মহতি উদ্যোগ- দৈনিক আমাদের বার্তার এমন প্রশ্নের উত্তরে অধ্যক্ষ বলেন, আমাদের মাকছুদা আপা, যিনি আমার পাশে বসে আছেন, উনি যে কাজটি করেন সে কাজটি অনেক সম্মানের, এটা আমাদের প্রথম উপলব্ধি। কাজ, কাজই। সব কাজের প্রতি আমাদের সম্মান দেখাতে হবে। আমাদের তিন সহস্রাধিক শিক্ষার্থী, প্রতিদিন প্রবেশপথ ময়লা আবর্জনায় ভরে যায়, প্রত্যেকদিন সকালবেলা মাকছুদা আপা নিরলসভাবে সেটা পরিচ্ছন্ন করেন, চকচকে করে রাখেন। এখানে তার আন্তরিক যে একটা ইচ্ছা এবং কাজের প্রতি উনার যে একটা সম্মান, সেটা উপলব্ধি করেই, আমরা মাকছুদা আপাকে ইনভাইট করতে চেষ্টা করেছি। আমরা কৃতজ্ঞ যে উনি আমাদের এই দাওয়াতটাকে গ্রহণ করেছেন। মাকছুদা আপার মাধ্যমে আমাদের এই বাংলাদেশের আরো যারা আছেন, বিভিন্ন শ্রেণি-পেশায় যারা আছেন,  তাদের অবদানকে আমাদের এই কলেজের পক্ষ থেকে স্বীকৃতি দিতে চাই। মনেপ্রাণে সম্মান জানাতে চাই। মাকছুদা বেগম হচ্ছেন সেটার একটা সিম্বল। তার মাধ্যমে আমরা সেই ভালোবাসা ও সম্মানটা প্রকাশ করতে চেয়েছি। 

 

অধ্যক্ষ আকবর আরো বলেন, আমাদের এই জনবহুল দেশে শুধু পরিচ্ছন্নতাকর্মী নয়, আরো অনেক জায়গায় বিভিন্ন কর্মী রয়েছেন, তারা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন, আমার কাছে মনে হয় তাদেরকে আরো অনেক সম্মান দেয়ার সুযোগ রয়েছে। উনার এই অবদানকে আমাদের স্বীকৃতি দিতে হবে, সম্মানও করতে হবে। উনি আমাদের বিশেষ অতিথি, বিশেষভাবেই তাকে সম্মান দিতে চাই।

প্রসঙ্গত, গতকালের অনুষ্ঠানে ঢাকা মেট্রোর নির্বাহী প্রকৌশলী হাসান শওকত ও মোহাম্মদপুর থানা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার রাজু আহমেদের সঙ্গে বিশেষ অতিথির আসন অলংকৃত করেন মাকছুদা বেগম। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. তারেক রেজা। 

শিক্ষাসহ সব খবর সবার আগে জানতে দৈনিক আমাদের বার্তার ইউটিউব চ্যানেলের সঙ্গেই থাকুন। ভিডিওগুলো মিস করতে না চাইলে এখনই দৈনিক আমাদের বার্তার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন এবং বেল বাটন ক্লিক করুন। বেল বাটন ক্লিক করার ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভিডিওগুলোর নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে।

দৈনিক আমাদের বার্তার ইউটিউব চ্যানেল  SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।


পাঠকের মন্তব্য দেখুন
কওমি মাদরাসা নিয়ে সিদ্দিকুর রহমান খানের অনবদ্য গ্রন্থ - dainik shiksha কওমি মাদরাসা নিয়ে সিদ্দিকুর রহমান খানের অনবদ্য গ্রন্থ ভিকারুননিসার ১৬৯ শিক্ষার্থীর ভর্তি বাতিল - dainik shiksha ভিকারুননিসার ১৬৯ শিক্ষার্থীর ভর্তি বাতিল বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়-ব্যয়ে স্বচ্ছতা নিশ্চিত চায় ইউজিসি - dainik shiksha বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়-ব্যয়ে স্বচ্ছতা নিশ্চিত চায় ইউজিসি ১৫ শতাংশ ভ্যাট : পূর্ণাঙ্গ রায়ের অপেক্ষায় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় মালিকরা - dainik shiksha ১৫ শতাংশ ভ্যাট : পূর্ণাঙ্গ রায়ের অপেক্ষায় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় মালিকরা পরীক্ষা শুরুর আগেই উত্তরপত্রের ছড়াছড়ি, দু’জনকে জিজ্ঞাসাবাদ - dainik shiksha পরীক্ষা শুরুর আগেই উত্তরপত্রের ছড়াছড়ি, দু’জনকে জিজ্ঞাসাবাদ ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি হতে পারেনি সুনামগঞ্জের সাড়ে ২৯ হাজার শিক্ষার্থী - dainik shiksha ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি হতে পারেনি সুনামগঞ্জের সাড়ে ২৯ হাজার শিক্ষার্থী বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়কে ১৫ শতাংশ ট্যাক্স দিতেই হবে: আপিল বিভাগ - dainik shiksha বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়কে ১৫ শতাংশ ট্যাক্স দিতেই হবে: আপিল বিভাগ ছাত্রকে শাসন করায় প্রধান শিক্ষককে মারধর - dainik shiksha ছাত্রকে শাসন করায় প্রধান শিক্ষককে মারধর দৈনিক শিক্ষাডটকমের ফেসবুক পেজ দেখুন - dainik shiksha দৈনিক শিক্ষাডটকমের ফেসবুক পেজ দেখুন please click here to view dainikshiksha website Execution time: 0.0023159980773926