ঝুঁকিতে ফেলে পরীক্ষা নেয়া হবে না: শিক্ষা উপমন্ত্রী - বিবিধ - দৈনিকশিক্ষা


ঝুঁকিতে ফেলে পরীক্ষা নেয়া হবে না: শিক্ষা উপমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক |

শিক্ষার্থী মূল্যায়নে তৈরি করা হচ্ছে বিশেষায়িত বডি ‘ন্যাশনাল অ্যাসেসমেন্ট অ্যান্ড অ্যাক্সামিনেশন সেন্টার’। এর মাধ্যমে গতানুগতিক পরীক্ষা পদ্ধতির বাইরে গিয়ে বিকল্প পদ্ধতিতেও শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নের সুযোগ রাখা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। করোনা পরিস্থিতিতে ২০২১ খ্রিষ্টাব্দের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের ঝুঁকির মধ্যে ফেলে কোনো পাবলিক পরীক্ষা নেয়া হবে না বলেও জানিয়েছেন তিনি।

পরীক্ষা না হলে আগের ক্লাসের পরীক্ষার মূল্যায়নের ওপর ভিত্তি করে এসএসসির ফল তৈরির পরামর্শ শিক্ষাবিদদের। এদিকে দীর্ঘদিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় মানসিক চাপে থাকা অনেক শিক্ষার্থী ও অভিভাবকের দাবি অটো প্রমোশনের।

করোনা পরিস্থিতির কারণে প্রায় ১০ মাস ধরে বন্ধ সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। তবে, অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম চালু থাকলেও সেটা কতটা ফলপ্রসূ তা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে সম্প্রতি শিক্ষামন্ত্রী সিলেবাস ছোট করে এসএসসি পরীক্ষা নেয়ার আভাস দিলেও এর কিছুদিন পর প্রধানমন্ত্রী বলেন, পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে  শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হবে না। এমন অনিশ্চয়তার মধ্যে পরীক্ষা নিয়ে মানসিক চাপে রয়েছে অনেক পরীক্ষার্থী। আর করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি নিয়ে চিন্তিত অভিভাবকরা।

পরীক্ষার্থীরা বলছেন, অনলাইনে ঠিকভাবে ক্লাস করতে পারিনি। সরকার থেকেও ঠিকভাবে কোনো সিদ্ধান্ত আসছে না। যার কারণে আমরা একটা মানসিক চাপের মধ্যে আছি। তাই তারা অটোপাসের দাবি জানাচ্ছেন। অভিভাবকদের দাবি শিক্ষার্থীদের ঝুঁকিতে না ফেলে ভিন্নভাবে মূল্যায়ন করা হোক।

করোনা পরিস্থিতিতে পরীক্ষা না নিয়ে বিকল্প পদ্ধতিতে মূল্যায়নের ক্ষেত্রে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে সৃজনশীল হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন শিক্ষাবিদরা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক সংবাদিকদের বলেন, প্রায় ২০ লাখ পরীক্ষার্থী। স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদের পরীক্ষা নেওয়া খুবই কষ্টকর ব্যাপার। সৃজনশীলতা ছাড়া এই কঠিন পরিস্থিতি মোকাবিলা করা সম্ভব নয়। কিন্তু কোনো না কোনোভাবে তাদের মূল্যায়ন করতেই হবে। 

এ অবস্থায় পরীক্ষার্থীদের পাঠদান ও মূল্যায়নে বিকল্প পদ্ধতি প্রণয়নের আভাস দিয়েছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। তিনি গনমাধ্যমকে বলেন, বিনা পাঠে পরীক্ষা চাপিয়ে দেয়ার চিন্তা কারো নেই। আমরা বিশেষভাবে এই ব্যাপারটি দেখছি ও ভাবছি। কমিটিও গঠন করা হচ্ছে। বিকল্প পদ্ধতিতে মূল্যায়নের আভাস দিলেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্বাভাবিক শিক্ষা-কার্যক্রম ও পাঠদানে প্রস্তুতি নেয়ারও পরামর্শ দিয়েছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী।

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেলের সাথেই থাকুন। ভিডিওগুলো মিস করতে না চাইলে এখনই দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব (লিংক যাবে) করুন এবং বেল বাটন ক্লিক করুন। বেল বাটন ক্লিক করার ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে সয়ংক্রিয়ভাবে ভিডিওগুলোর নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে।

দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল  SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।


পাঠকের মন্তব্য দেখুন
শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার গাইড লাইন প্রকাশ, তিন ফুট দূরত্বে ক্লাসরুমের বেঞ্চ - dainik shiksha শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার গাইড লাইন প্রকাশ, তিন ফুট দূরত্বে ক্লাসরুমের বেঞ্চ স্কুল-কলেজ খোলার দুই মাসের মধ্যে পরীক্ষা নয় - dainik shiksha স্কুল-কলেজ খোলার দুই মাসের মধ্যে পরীক্ষা নয় ক্লাসরুমে সর্বোচ্চ ১৫ শিক্ষার্থী, প্রতি বেঞ্চে ১ জন - dainik shiksha ক্লাসরুমে সর্বোচ্চ ১৫ শিক্ষার্থী, প্রতি বেঞ্চে ১ জন প্রধান তিন পদ খালি থাকায় বেহাল বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় - dainik shiksha প্রধান তিন পদ খালি থাকায় বেহাল বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক মিজানুর রহমান খানের স্মরণসভা মঙ্গলবার - dainik shiksha সাংবাদিক মিজানুর রহমান খানের স্মরণসভা মঙ্গলবার আলিম পরীক্ষার্থীদের রেজিস্ট্রেশন কার্ড বিতরণ শুরু ২৬ জানুয়ারি - dainik shiksha আলিম পরীক্ষার্থীদের রেজিস্ট্রেশন কার্ড বিতরণ শুরু ২৬ জানুয়ারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে প্রস্তুতি ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে - dainik shiksha শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে প্রস্তুতি ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে স্কুলে ফিরবে না করোনাকালে কাজে যুক্ত হওয়া অনেক শিক্ষার্থী - dainik shiksha স্কুলে ফিরবে না করোনাকালে কাজে যুক্ত হওয়া অনেক শিক্ষার্থী জেডিসির রেজিস্ট্রেশন কার্ড বিতরণ শুরু মঙ্গলবার - dainik shiksha জেডিসির রেজিস্ট্রেশন কার্ড বিতরণ শুরু মঙ্গলবার দাখিলে বৃত্তি পাওয়া শিক্ষার্থীদের তথ্য সফটওয়্যারে অন্তর্ভুক্তির নির্দেশ - dainik shiksha দাখিলে বৃত্তি পাওয়া শিক্ষার্থীদের তথ্য সফটওয়্যারে অন্তর্ভুক্তির নির্দেশ পদোন্নতির সংশোধিত খসড়া তালিকায় সরকারি স্কুলের সাত হাজার শিক্ষক - dainik shiksha পদোন্নতির সংশোধিত খসড়া তালিকায় সরকারি স্কুলের সাত হাজার শিক্ষক জেডিসির খাতা দেখার সম্মানী চান শিক্ষকরা - dainik shiksha জেডিসির খাতা দেখার সম্মানী চান শিক্ষকরা ভুয়া পেইজ: পুলিশি অ্যাকশন নিতে কারিগরি বোর্ডের চিঠি - dainik shiksha ভুয়া পেইজ: পুলিশি অ্যাকশন নিতে কারিগরি বোর্ডের চিঠি প্রভাষক-সহকারী অধ্যাপকদের বদলির আবেদনের সুযোগ ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত - dainik shiksha প্রভাষক-সহকারী অধ্যাপকদের বদলির আবেদনের সুযোগ ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত please click here to view dainikshiksha website