পাঠ্যবইয়ে সেক্টর কমান্ডারদের ভূমিকা অন্তর্ভুক্তির দাবি - বই - দৈনিকশিক্ষা


পাঠ্যবইয়ে সেক্টর কমান্ডারদের ভূমিকা অন্তর্ভুক্তির দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক |

মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সংরক্ষণ এবং তা তরুণ প্রজন্মের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে স্বাধীনতা যুদ্ধের সেক্টর কমান্ডার ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বীরত্বগাথা পাঠ্যবইয়ে অন্তর্ভুক্তির দাবি জানিয়েছেন বিশিষ্টজন।

 তারা বলেছেন, দেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকে সময়ের পরিক্রমায় সেক্টর কমান্ডার ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের অনেকেই পৃথিবী থেকে বিদায় নিয়েছেন। যারা জীবিত আছেন তাদের অনেকে এখন বার্ধক্যে উপনীত। অথচ ৫০ বছর আগে তাদের বীরত্বেই দেশ স্বাধীন হয়েছিল। তাই তাদেরকে তরুণ প্রজন্মের মাধ্যমে স্বাধীন বাংলাদেশের ইতিহাসের পরিক্রমায় চিরঞ্জীব করে রাখতে হবে। এ জন্য পাঠ্যক্রমে তাদের বীরত্বগাথা গুরুত্ব সহকারে তুলে ধরা প্রয়োজন।

গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর কমান্ডার প্রয়াত মেজর জেনারেল সিআর দত্ত বীরউত্তম ও লে. কর্নেল আবু ওসমান চৌধুরী এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ারুল আলম শহীদ স্মরণে আয়োজিত সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন। সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ ৭১ এ সভার আয়োজন করে।

স্বাধীনতা যুদ্ধে সেক্টর কমান্ডার ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বীরত্বগাথা পাঠ্যবইয়ে অন্তর্ভুক্তির দাবি বিশিষ্টজনদের। ছবি : সংগৃহীত

সংগঠনের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) কেএম সফিউল্লাহ বীরউত্তমের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য দেন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাকালীন মহাসচিব সাবেক সেনাপ্রধান লে. জেনারেল (অব.) হারুন অর রশিদ বীরপ্রতীক, মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি ডা. সারওয়ার আলী, সাবেক অ্যাডিশনাল আইজিপি মোহাম্মদ নুরুল আলম, সাবেক কূটনীতিক মহিউদ্দিন আহমেদ, আমিনুল ইসলাম বেদু প্রমুখ। সংগঠনের যুগ্ম মহাসচিব আবুল কালাম আজাদ পাটোয়ারীর সঞ্চালনায় সভায় সংগঠনের মহাসচিব হারুন হাবীব তিন দফা প্রস্তাব তুলে ধরেন। এতে পাঠ্যবইয়ে সেক্টর কমান্ডার ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বীরত্বগাথা অন্তর্ভুক্ত করা, মুক্তিযুদ্ধের ১১টি যুদ্ধ অঞ্চলে সরকারি উদ্যোগে একটি করে 'মুক্তিযুদ্ধ ও গণহত্যা জাদুঘর' প্রতিষ্ঠা এবং বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যবিরোধীদের বিরুদ্ধে সরকারি কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি জানানো হয়।

কেএম সফিউল্লাহ বলেন, প্রয়াত মেজর জেনারেল সিআর দত্ত বীরউত্তম ও লে. কর্নেল আবু ওসমান চৌধুরী এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ারুল আলম শহীদ নিজেদের যুদ্ধ অঞ্চলে বীরত্বপূর্ণ যে ভূমিকা রেখেছেন, তা জাতীয় ইতিহাসের সম্পদ। তাদের বীরত্বগাথা তরুণ প্রজন্মের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে হবে।

হারুন অর রশিদ বলেন, গত ৫০ বছরে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের পূর্ণাঙ্গ

তালিকা করা সম্ভব হয়নি। কবে হবে, কেউ জানে না। এখন আবার নতুন করে ৩০ জানুয়ারি বীর মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই-বাছাই শুরুর ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। তিনি যাচাই-বাছাইয়ের নামে মুক্তিযোদ্ধাদের 'অপমান' না করার দাবি জানান।

সারওয়ার আলী বলেন, মুক্তিযুদ্ধে সিলেট অঞ্চলে সিআর দত্ত এবং কুষ্টিয়া অঞ্চলে আবু ওসমান চৌধুরী যে অসামান্য অবদান রেখেছেন, তা স্বাধীনতার ইতিহাসে উজ্জ্বলতম অধ্যায়। তিনি জাতীয় বীরদের স্মৃতি রক্ষার আহ্বান জানান। সভায় প্রয়াত জাতীয় বীরদের পবিত্র স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দাঁড়িয়ে ১ মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।


পাঠকের মন্তব্য দেখুন
শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার গাইড লাইন প্রকাশ, তিন ফুট দূরত্বে ক্লাসরুমের বেঞ্চ - dainik shiksha শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার গাইড লাইন প্রকাশ, তিন ফুট দূরত্বে ক্লাসরুমের বেঞ্চ স্কুল-কলেজ খোলার দুই মাসের মধ্যে পরীক্ষা নয় - dainik shiksha স্কুল-কলেজ খোলার দুই মাসের মধ্যে পরীক্ষা নয় ক্লাসরুমে সর্বোচ্চ ১৫ শিক্ষার্থী, প্রতি বেঞ্চে ১ জন - dainik shiksha ক্লাসরুমে সর্বোচ্চ ১৫ শিক্ষার্থী, প্রতি বেঞ্চে ১ জন প্রধান তিন পদ খালি থাকায় বেহাল বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় - dainik shiksha প্রধান তিন পদ খালি থাকায় বেহাল বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক মিজানুর রহমান খানের স্মরণসভা মঙ্গলবার - dainik shiksha সাংবাদিক মিজানুর রহমান খানের স্মরণসভা মঙ্গলবার আলিম পরীক্ষার্থীদের রেজিস্ট্রেশন কার্ড বিতরণ শুরু ২৬ জানুয়ারি - dainik shiksha আলিম পরীক্ষার্থীদের রেজিস্ট্রেশন কার্ড বিতরণ শুরু ২৬ জানুয়ারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে প্রস্তুতি ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে - dainik shiksha শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে প্রস্তুতি ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে স্কুলে ফিরবে না করোনাকালে কাজে যুক্ত হওয়া অনেক শিক্ষার্থী - dainik shiksha স্কুলে ফিরবে না করোনাকালে কাজে যুক্ত হওয়া অনেক শিক্ষার্থী জেডিসির রেজিস্ট্রেশন কার্ড বিতরণ শুরু মঙ্গলবার - dainik shiksha জেডিসির রেজিস্ট্রেশন কার্ড বিতরণ শুরু মঙ্গলবার দাখিলে বৃত্তি পাওয়া শিক্ষার্থীদের তথ্য সফটওয়্যারে অন্তর্ভুক্তির নির্দেশ - dainik shiksha দাখিলে বৃত্তি পাওয়া শিক্ষার্থীদের তথ্য সফটওয়্যারে অন্তর্ভুক্তির নির্দেশ পদোন্নতির সংশোধিত খসড়া তালিকায় সরকারি স্কুলের সাত হাজার শিক্ষক - dainik shiksha পদোন্নতির সংশোধিত খসড়া তালিকায় সরকারি স্কুলের সাত হাজার শিক্ষক জেডিসির খাতা দেখার সম্মানী চান শিক্ষকরা - dainik shiksha জেডিসির খাতা দেখার সম্মানী চান শিক্ষকরা ভুয়া পেইজ: পুলিশি অ্যাকশন নিতে কারিগরি বোর্ডের চিঠি - dainik shiksha ভুয়া পেইজ: পুলিশি অ্যাকশন নিতে কারিগরি বোর্ডের চিঠি প্রভাষক-সহকারী অধ্যাপকদের বদলির আবেদনের সুযোগ ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত - dainik shiksha প্রভাষক-সহকারী অধ্যাপকদের বদলির আবেদনের সুযোগ ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত please click here to view dainikshiksha website