প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে গোপনে পাঠ্যবই বিক্রির অভিযোগ - বই - দৈনিকশিক্ষা


প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে গোপনে পাঠ্যবই বিক্রির অভিযোগ

রাজশাহী প্রতিনিধি |

রাজশাহী গোদাগাড়ী উপজেলার মাটিকাটা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইসমত আরা গোপনে বিক্রি করেছেন ৪০ মণ সরকারি বই। এর আগেও গাছের ডাল বিক্রি ও স্কুলের জমি ইজারার লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছেন বলে অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। নির্দেশ থাকলেও বই বিক্রির বিষয়ে শিক্ষা কর্মকর্তাকে কোনো কিছু জানাননি তিনি।

জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন বলেন, প্রধান শিক্ষক সরকারি বই বিক্রি করে দিয়ে থাকলে অপরাধ করেছেন। অভিযোগ পেলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জানা গেছে, স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সদস্য সাদিকুল ইসলাম গত ১৯ সেপ্টেম্বর গোদাগাড়ী ইউএনও ছাড়াও রাজশাহী জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ও গোদাগাড়ী উপজেলা মাধ্যমিক কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ জমা দিয়েছেন।

অভিযোগকারী সাদিকুল ইসলাম জানান, গত ১৫ সেপ্টেম্বর সকাল ৭টার সময় পরিচ্ছন্নতাকর্মী শরিফুল ইসলাম স্কুল পরিস্কার করার জন্য এলে তিনি দেখতে পান পিয়ন রাসেল ২০ বস্তা বই ভ্যানে তুলছেন। পিয়ন রাসেলের কাছে বই কোথায় নিয়ে যাচ্ছে-জানতে চাইলে তিনি জানান, বইগুলো হেড ম্যাডাম বিক্রি করে দিয়েছেন। একই দিন স্কুল সন্ধ্যা ৭টার পর পিয়ন রাসেল আবারও পাঁচটি ভ্যান নিয়ে স্কুলে ঢোকেন। এসব ভ্যানে বইয়ের বস্তা তোলার সময় স্কুলের নৈশপ্রহরী রবিউল ইসলাম ডিউটিতে আসেন। তিনি বই নিয়ে যেতে বাধা দিলে পিয়ন রাসেল তাকেও জানান, হেড ম্যাডাম বই বিক্রি করেছেন। তাকে বইয়ের বস্তাগুলো ভ্যানে তুলে দিতে বলেছেন। পিয়ন রাসেল দ্রুত বস্তাগুলো ভ্যানে তুলে নিয়ে অফিসকক্ষে তালা মেরে দ্রুত স্কুল ভবন ত্যাগ করেন।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, বছর তিনেক আগে ইসমত আরা প্রধান শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ পান। এরপর থেকেই প্রতি বছর স্কুলের শিক্ষার্থীর সংখ্যা দ্বিগুণ দেখিয়ে বই উত্তোলন করে আসছেন। শিক্ষার্থীদের মধ্যে অর্ধেক বই বিতরণ করে বাকি বই গোপনে বিক্রি করে অর্থ আত্মসাৎ করেছেন।

স্কুলের একজন সিনিয়র শিক্ষক বলেন, প্রধান শিক্ষক স্কুলের বিভিন্ন খাতের বিপুল টাকা আত্মসাৎ করেছেন। রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে তাকে অবৈধভাবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল। তিনি যখন যা পান তাই বিক্রি করে টাকা হাতিয়ে নেন।

রাজশাহী জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার নাসির উদ্দিন বলেন, বই বিতরণের পর অবশিষ্ট থাকলে মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে জানাতে হবে। তিনি অধিদপ্তরকে জানাবেন। অধিদপ্তর বই বিক্রির অনুমতি দিলে উপজেলা মাধ্যমিক কর্মকর্তাকে প্রধান করে নিলাম কমিটি গঠন করতে হবে। ওই কমিটি উন্মুক্ত নিলামে বই বিক্রি করতে পারবে। সেই টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দিতে হবে।' তিনি বলেন, প্রধান শিক্ষক কোনোভাবেই নিজ উদ্যোগে বই বিক্রি করতে পারেন না। বিষয়টি প্রমাণ হলে তাকে তাৎক্ষণিকভাবে বরখাস্তের নির্দেশ রয়েছে।

প্রধান শিক্ষক ইসমত আরার দাবি, বই বিক্রির বিষয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে মৌখিকভাবে জানানো হয়েছে। তবে এ বিষয়ে কথা বলতে রাজি নয় উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা দুলাল আলম।


পাঠকের মন্তব্য দেখুন
১৬তম শিক্ষক নিবন্ধনে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মেধাতালিকায় অন্তর্ভুক্তি ‘শিগগিরই’ - dainik shiksha ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধনে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মেধাতালিকায় অন্তর্ভুক্তি ‘শিগগিরই’ বৃহস্পতিবার সব প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অর্ধদিবস কর্মবিরতি পালনের আহ্বান - dainik shiksha বৃহস্পতিবার সব প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অর্ধদিবস কর্মবিরতি পালনের আহ্বান প্রভাষকদের পদোন্নতির রূপরেখা প্রণয়নে ফের সভা বৃহস্পতিবার - dainik shiksha প্রভাষকদের পদোন্নতির রূপরেখা প্রণয়নে ফের সভা বৃহস্পতিবার ৩৫ বছর ধরে কলেজে উর্দু শিক্ষার্থী নেই, তবু নিয়োগ হচ্ছে শিক্ষা ক্যাডার - dainik shiksha ৩৫ বছর ধরে কলেজে উর্দু শিক্ষার্থী নেই, তবু নিয়োগ হচ্ছে শিক্ষা ক্যাডার ‘শিক্ষার্থীদের বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী পড়তে হবে’ - dainik shiksha ‘শিক্ষার্থীদের বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী পড়তে হবে’ সুস্থ আছেন খালেদা জিয়া, অসুস্থতা নিয়ে বিভ্রান্তি না ছড়ানোর অনুরোধ : ফখরুল - dainik shiksha সুস্থ আছেন খালেদা জিয়া, অসুস্থতা নিয়ে বিভ্রান্তি না ছড়ানোর অনুরোধ : ফখরুল বঙ্গমাতার নামে সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নামকরণের সিদ্ধান্ত - dainik shiksha বঙ্গমাতার নামে সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নামকরণের সিদ্ধান্ত এসএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্টের নম্বর এন্ট্রির সুযোগ বৃহস্পতিবার পর্যন্ত - dainik shiksha এসএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্টের নম্বর এন্ট্রির সুযোগ বৃহস্পতিবার পর্যন্ত please click here to view dainikshiksha website