মালালার ছবি ছাপানোয় পাঠ্যবই বাজেয়াপ্ত করল পাকিস্তান - বই - দৈনিকশিক্ষা


মালালার ছবি ছাপানোয় পাঠ্যবই বাজেয়াপ্ত করল পাকিস্তান

দৈনিক শিক্ষা ডেস্ক |

১৯৬৫ খ্রিষ্টাব্দে পাকিস্তান যুদ্ধের নায়ক মাজ আজিজ ভাট্টি শাহিদের পাশে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি হিসেবে নারী আন্দোলনকর্মী মালালা ইউসুফজাইকে রাখায় পাকিস্তানের পাঞ্জাবে সপ্তম গ্রেডের শিক্ষার্থীদের জন্য ছাপা সোশ্যাল স্টাডিজ বিষয়ের বই বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি প্রেস (ওইউপি) ওই বই ছাপায়। গত সোমবার পাকিস্তানের পাঞ্জাব কারিকুলাম অ্যান্ড টেক্সট বুক বোর্ড (পিসিটিবি) বইটি জব্দ করে।

পাকিস্তানের দ্য ডনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বইটির ৩৩ পৃষ্ঠায় পাকিস্তানের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি হিসেবে পাকিস্তানের প্রতিষ্ঠাতা মুহাম্মদ আলী জিন্নাহ, দেশটির জাতীয় কবি আল্লামা ইকবাল, দার্শনিক সায়েদ আহমেদ খান, দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী লিয়াকত আলী খান, কিংবদন্তি সমাজসেবী আবদুল সাত্তার এধী, বেগম রানা লিয়াকত আলী খান, নিশান-ই-হায়দার পুরস্কারপ্রাপ্ত মাজ আজিজ ভাট্টি ও আন্দোলনকর্মী মালালা ইউসুফজাইয়ের ছবি প্রকাশ করা হয়েছে।

বইটি ইতিমধ্যে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বিলি করা হয়েছে বলে সূত্র জানিয়েছে। এখন পিসিটিবি, পুলিশ ও অন্যান্য সংস্থা মিলে পাঞ্জাব শহরের বিভিন্ন দোকানে অভিযান চালাচ্ছে।

আরও পড়ুন : দৈনিক শিক্ষাডটকম পরিবারের প্রিন্ট পত্রিকা ‘দৈনিক আমাদের বার্তা

গত সোমবার পিসিটিবির একদল কর্মকর্তা গুলবার্গের মিনি মার্কেটে ওইউপির অফিসে অভিযান চালান এবং সেখানে থাকা সব কপি বাজেয়াপ্ত করেন। ওই প্রতিনিধিদল গণমাধ্যমে চিঠি দিয়ে বলেছে, ওই বই প্রকাশের অনুমতি দেওয়া হয়নি।

নাম প্রকাশ না করে এক প্রকাশক বলেন, বইটি পর্যালোচনার জন্য পিসিটিবিতে জমা দেওয়া হয়েছিল ২০১৯ সালে। তখন বইটি প্রকাশের অনুমতি চাওয়া হয়েছিল। তবে পিসিটিবি বোর্ড কনটেন্ট পর্যালোচনা করার পর বইটি প্রকাশের অনুমতি দেয়নি। অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি প্রেস অনুমতি না নিয়েই বইটি প্রকাশ করে।

দৈনিক আমাদের বার্তার ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব ও ফেসবুক পেইজটি ফলো করুন

পিসিটিবির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, বইটি অনুমোদন ছাড়াই প্রকাশ করায় এ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

গত বছর পিসিটিবির পক্ষ থেকে ১০০ পাঠ্যবই নিষিদ্ধ করা হয়। অভিযোগ করা হয়, এসব বইয়ে দ্বিজাতিতত্ত্বের বিরুদ্ধে কথা ছিল এবং কিছু কিছু ক্ষেত্রে অনৈতিক ও অবৈধ বিষয়বস্তু রাখা হয়।


পাঠকের মন্তব্য দেখুন
শহীদ মিনার থাকা বিদ্যালয়ের তালিকা চেয়েছে সরকার - dainik shiksha শহীদ মিনার থাকা বিদ্যালয়ের তালিকা চেয়েছে সরকার ..পিস্তল রেখে ঘুমাতাম, ..বাচ্চাকে দেশছাড়া করমু: ভিকারুননিসা অধ্যক্ষ বচনে হইচই - dainik shiksha ..পিস্তল রেখে ঘুমাতাম, ..বাচ্চাকে দেশছাড়া করমু: ভিকারুননিসা অধ্যক্ষ বচনে হইচই ভালোমানের স্কুল এমপিওভুক্তি ও জাতীয়করণের সুপারিশ - dainik shiksha ভালোমানের স্কুল এমপিওভুক্তি ও জাতীয়করণের সুপারিশ মাদরাসার গ্রন্থাগারিকরাও শিক্ষক মর্যাদা পেলেন - dainik shiksha মাদরাসার গ্রন্থাগারিকরাও শিক্ষক মর্যাদা পেলেন এবারের এইচএসসির অ্যাসাইনমেন্ট এখনও হাতে পায়নি শিক্ষা অধিদপ্তর - dainik shiksha এবারের এইচএসসির অ্যাসাইনমেন্ট এখনও হাতে পায়নি শিক্ষা অধিদপ্তর মাদরাসায় গ্রন্থাগার শিক্ষক নিয়োগ : নিবন্ধন সিলেবাস প্রণয়নের নির্দেশ - dainik shiksha মাদরাসায় গ্রন্থাগার শিক্ষক নিয়োগ : নিবন্ধন সিলেবাস প্রণয়নের নির্দেশ দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনে ৩০ শতাংশ ছাড় - dainik shiksha দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনে ৩০ শতাংশ ছাড় মাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট স্থগিত - dainik shiksha মাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট স্থগিত উচ্চমাধ্যমিকের অ্যাসাইনমেন্ট ফের স্থগিত - dainik shiksha উচ্চমাধ্যমিকের অ্যাসাইনমেন্ট ফের স্থগিত লকডাউনের পর অনলাইনে এইচএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণ - dainik shiksha লকডাউনের পর অনলাইনে এইচএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণ please click here to view dainikshiksha website