শিষ্য সন্তোষের হাতেই ধরা খেলো ‘গুরু’ এসপি বাবুল - বিবিধ - দৈনিকশিক্ষা


শিষ্য সন্তোষের হাতেই ধরা খেলো ‘গুরু’ এসপি বাবুল

নিজস্ব প্রতিবেদক |

চট্টগ্রামে ভয়ংকর অপরাধীদের বিরুদ্ধে পুলিশি অভিযানে বাবুল আক্তারের ছায়াসঙ্গী ছিলেন পরিদর্শক সন্তোষ চাকমা। চট্টগ্রাম মহানগর গোয়েন্দা পুলিশে বাবুল আক্তারের নেতৃত্বে দীর্ঘদিন একসঙ্গে কাজ করতে গিয়ে গড়ে উঠেছিল সখ্যও। ডিজিটাল তদন্তে সন্তোষ চাকমার দক্ষতা থাকায় বাবুলও অভিযান ও তদন্তে আলাদাভাবে গুরুত্ব দিতেন তাকে। মিতু হত্যার পর বাবুল আক্তার চাকরি ছেড়ে দিলে সন্তোষ চাকমাও সিএমপি ছেড়ে বদলি হয়ে চলে যান পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনে (পিবিআই)। সেখানে গিয়ে বহু ক্লু-লেস মামলার সমাধানও করেছেন সন্তোষ। আলোচিত মিতু হত্যা মামলার তদন্তভার সন্তোষ চাকমার হাতে আসার পর সে মামলার তদন্ত ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে যায়। স্ত্রী মিতুকে খুনের দায়ে একসময়ের শিষ্য সন্তোষের হাতে গ্রেপ্তার হন 'গুরু' সাবেক এসপি বাবুল আক্তার।

মিতু হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই পরিদর্শক সন্তোষ চাকমা সাংবাদিকদের বলেন, সিএমপিতে অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার ও উপপুলিশ কমিশনার হওয়ার পর বাবুল আক্তারের নেতৃত্বে খুব কাছ থেকেই কাজ করেছিলাম আমরা। তার নেতৃত্বে শীর্ষ সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ী, জঙ্গি থেকে শুরু করে ভয়ংকর অপরাধীদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় এনেছি। আমরা তখনও সবাই পেশাগত দায়িত্ব পালন করেছি। মিতু হত্যা মামলার তদন্তভার পেয়ে এখনও পেশাগত দায়িত্ব পালন করছি। তারই অংশ হিসেবে তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে স্ত্রী খুনের পরিকল্পনাকারী হিসেবে বাবুল আক্তারকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এক প্রশ্নের জবাবে সন্তোষ চাকমা বলেন, দীর্ঘদিন একসঙ্গে কাজ করতে গিয়ে সিনিয়র অফিসার হিসেবে তার (বাবুল) কাছ থেকে অনেক দিকনির্দেশনা পেয়েছিলাম। সেই অর্থে গুরুর মতোই হয়ে উঠেছিলেন। আমরা জুনিয়র হিসেবে তার কাছ থেকে অনেক কিছু শিখতে পেরেছি, জানতে পেরেছি।

মিতু খুন হওয়ার সংবাদ পেয়ে অন্যদের মতো সেদিন বাবুল আক্তারের চট্টগ্রাম শহরের বাসায় ছুটে গিয়েছিলেন সন্তোষ চাকমা। বাবুল আক্তারের পাশে গিয়ে তাকে সান্ত্বনাও দিয়েছিলেন। পাশে থেকে শক্তি জুগিয়েছিলেন অন্য কর্মকর্তাদের মতো তিনিও। চার বছরের মাথায় এসে সেই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করতে হবে, তা ভাবনাতেও ছিল না এই কর্মকর্তার।


পাঠকের মন্তব্য দেখুন
পরীক্ষা এক বছর না দিলে ক্ষতি হবে না : শিক্ষামন্ত্রী - dainik shiksha পরীক্ষা এক বছর না দিলে ক্ষতি হবে না : শিক্ষামন্ত্রী সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি ৩০ জুন পর্যন্ত - dainik shiksha সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি ৩০ জুন পর্যন্ত ৫ শর্তে অনলাইনে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়োগ পরীক্ষা নেয়ার অনুমতি দিলো ইউজিসি - dainik shiksha ৫ শর্তে অনলাইনে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়োগ পরীক্ষা নেয়ার অনুমতি দিলো ইউজিসি এনটিআরসিএর নতুন চেয়ারম্যানকে আদালত অবমাননার মামলায় অন্তর্ভুক্তির নির্দেশ - dainik shiksha এনটিআরসিএর নতুন চেয়ারম্যানকে আদালত অবমাননার মামলায় অন্তর্ভুক্তির নির্দেশ এক স্কুলশিক্ষার্থীর শরীরে করোনা পেয়েই তড়িঘড়ি ৩ দিনের লকডাউন - dainik shiksha এক স্কুলশিক্ষার্থীর শরীরে করোনা পেয়েই তড়িঘড়ি ৩ দিনের লকডাউন গভীর রাতে পরীক্ষার সময় রেখে পাবিপ্রবিতে রুটিন প্রকাশ - dainik shiksha গভীর রাতে পরীক্ষার সময় রেখে পাবিপ্রবিতে রুটিন প্রকাশ ২০ বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত - dainik shiksha ২০ বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত লকডাউন বাড়লে পেছাতে পারে বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা - dainik shiksha লকডাউন বাড়লে পেছাতে পারে বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে - dainik shiksha দৈনিক আমাদের বার্তায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ৩০ শতাংশ ছাড়ে ৬ষ্ঠ-৯ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ষষ্ঠ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ - dainik shiksha ৬ষ্ঠ-৯ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ষষ্ঠ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ please click here to view dainikshiksha website